শনিবার, ১৬ অক্টোবর ২০২১, ০৩:৩৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

দাম বেড়েছে আদা-রসুনের, স্থিতিশীল মসলার বাজার

  • সময় শনিবার, ১৭ জুলাই, ২০২১
  • ২১০ বার পড়া হয়েছে

আলকিত ডেস্কঃ
ঘনিয়ে আসছে ঈদুল আজহা (কোরবানির ঈদ) ভিড় জমেছে গরু, ছাগলসহ মসলার বাজারে। তবে বিগত বছরের তুলনায় এবারের ঈদের বাজারে ব্যাতিক্রমী রুপ নিয়ে এসেছে করোনা ভাইরাসের প্রাদুর্ভাব। সরকারের দেয়া লকডাউন আর সাধারণ মানুষের আয় কমে যাওয়ার প্রভাব পড়েছে মসলার বাজারেও। বাজারে আদা, রসুনের দাম বাড়লেও স্থিতিশীল রয়েছে মসলার বাজার। ব্যাবসায়ীরা কারণ‌ হিসেবে মনে করছে আগের তুলনায় ক্রেতাদের চাহিদা কমে যাওয়া।

শনিবার (১৭ জুলাই) রাজধানীর রায়েরবাগ ও যাত্রাবাড়ী এলাকার কয়েকটি বাজার ঘুরে এমনটি দেখা যদেস্ক
বাজারে গিয়ে দেখা যায়, একই বাজারের দোকান ভেদে ভিন্ন দামে বিক্রি করছে আদা। কোথাও ২০০ টাকা কেজি, কোথাও ২২০ টাকা কেজি, আবার কোথাও একই আদা ২৫০ টাকা কেজি দরে বিক্রি হচ্ছে। যা গত দশ দিন আগে বিক্রি হয়েছে ১৫০- ১৭০ টাকা কেজি। আদার প্রতি কেজিতে দাম বেড়েছে ৩৫- ৪০ টাকা। এছাড়া দেশি রসুন বিক্রি হচ্ছে ৭০-৮০ টাকা কেজি দরে। ইন্ডিয়ান রসুন বিক্রি হচ্ছে ১৫০ টাকা কেজি। যা গত দশ দিন আগে বিক্রি হয়েছে দেশি রসুন ৬০ টাকা কেজি আর ইন্ডিয়ান রসুন ১৩০ টাকা কেজি। প্রতি কেজি রসুনে দাম বেড়েছে ২০ টাকা।

মসলার বাজার ঘুরে দেখা যায়, প্রায় সব ধরনের মসলার দাম গত দশ দিনের বাজার দর হিসেবে স্থিতিশীল রয়েছে। খুচরা বাজারে জিরা ৩৩০- ৩৪০ টাকা কেজি, শুকনা মরিচ ২০০ টাকা কেজি, সাদা এলাচ ২১০০ টাকা কেজি, কালো এলাচ ৭৫০ টাকা কেজি, সাগু দানা ২৫০০ টাকা কেজি, দারুচিনি ৩২০ টাকা কেজি, জয় ফল ১০ টাকা প্রতি পিছ, হলুদ ২২০-২৩০ টাকা কেজি এবং লবঙ্গ ১১০০ টাকা কেজি। যা গত দশ দিন ধরে একই দামে বিক্রি হচ্ছে।

রায়েরবাগ বাজারের ক্রেতা রুহুল আমিন বলেন, কোরবানির বাজার আজকে করলাম। আদার দামটা হঠাৎ করেই বেড়ে গেছে, এছাড়া সব কিছুরই দাম আগের মতোই আছে। ভেবেছিলাম হয়তো মসলার দাম বাড়বে কিন্তু এখন পর্যন্ত বাড়েনি।

যাত্রাবাড়ীর মসলা ব্যাবসায়ী ফজলুল হক বলেন, এখন পর্যন্ত যে মাল কিনছি কোনটার দাম বাড়েনি। কালকে আবার মোকামে যাব মালা কিনতে তখন কি হয় বলতে পারছিনা। এখন পর্যন্ত দাম মোটামুটি আগের মতোই আছে।

মসলার পাইকারি ব্যাবসায়ী শামীম বলেন, প্রতি বছরই কোরবানির ঈদের সময় মসলার দাম বাড়ে কিন্তু এবার দাম বাড়ার লক্ষণ দেখছি না। লকডাউনের কারণে মানুষের হাতে পয়সা নাই। অনেকে ঈদ করতে ঢাকার বাইরে গেছে, এজন্য বাজারে কস্টমারের চাপ নাই। বিক্রিও কম তাই এবার কোন মসলার দাম বাড়েনি। আদা কাঁচা মাল এখন এক রকম দাম আছে আবার অন্য সময় আরেক রকম হবে এর ঠিক নাই। তবে মসলার বাজার স্থিতিশীল রয়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: