সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১০:২০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

নবাবগঞ্জের চড়ারহাট কলেজের শিক্ষকদের বেতনের দাবিতে অধ্যক্ষ অবরুদ্ধ

  • সময় বৃহস্পতিবার, ১ জুলাই, ২০২১
  • ৬২ বার পড়া হয়েছে

মোঃ আল হেলাল চৌধুরী,
দিনাজপুরের নবাবগঞ্জ উপজেলার চড়ারহাট শহীদ স্মৃতি কলেজের শিক্ষকরা বেতন-ভাতা উত্তোলনের দাবিতে অধ্যক্ষকে দিনভর অবরুদ্ধ করে রাখে। অধ্যক্ষের বড় ভাই জুয়েল আহাম্মদের অঙ্গিকারের শর্তে গতকাল মঙ্গলবার রাত ৯টা ৩০ মিনিটে পুলিশ তাকে অবমুক্ত করেছেন।

শিক্ষকদের অভিযোগ, চড়ারহাট শহীদ স্মৃতি কলেজের অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফার গাফিলতি ও বিভিন্ন দূর্ণীতির কারণে দীর্ঘদিন থেকে ঐ কলেজে ম্যানেজিং কমিটি নেই। একারণে শিক্ষকেদের বেতন ভাতা পেতে সমস্যায় পড়তে হয়। কলেজে ম্যানেজিং কমিটি গঠণ করা হবে মর্মে স্ট্যাম্পে লিখিত অঙ্গিকার নামা দিয়ে অধ্যক্ষ ও শিক্ষকরা ২০২০ সালের ডিসেম্বর থেকে ২০২১ সালের এপ্রিল মাস পর্যন্ত ৫ মাসের বেতন উত্তোলন করেছেন। অঙ্গিকার দেওয়ার পরও ম্যানেজিং কমিটি গঠণ না করা করায় শিক্ষক-কর্মচারীরা মে মাসের বেতন তুলতে পারেনি। বেতন ভাতা তুলতে না পারায় শিক্ষক-কর্মচারীরা পরিবার পরিজন নিয়ে এই করোনাকালীন সময়ে চরম বিপাকে পড়েছে। এছাড়া আসন্ন ঈদুল আজহা পালন নিয়ে তারা অনিশ্চয়তায় পড়েছে।

এ নিয়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠণের জন্য শিক্ষক কর্মচারিরা অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফাকে বার বার বলা সত্বেও অধ্যক্ষ কোন ব্যবস্থা গ্রহণ করেন নাই। বাধ্য হয়ে শিক্ষক কর্মচারিরা গতকাল মঙ্গলবার অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফাকে কলেজ কক্ষে দিনভর অবরুদ্ধ করে রাখেন। অধ্যক্ষ দ্রুততম সময়ে ম্যানেজিং কমিটি গঠনের অঙ্গিকার করলে, অধ্যক্ষের বড় ভাই জুয়েল আহাম্মদের অঙ্গিকারের শর্তে শিক্ষককের অবরোধ থেকে রাত ৯টা ৩০ মিনিটে পুলিশ এসে অধ্যক্ষকে মুক্ত করেন।

রাস্ট্র বিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক রেজাউর রহমান বলেন, কলেজে ম্যানেজিং কমিটি না থাকার সুযোগে অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা শিক্ষার্থী ভর্তি, বেতন ও অন্যান্য টাকা কোথায় রাখেন, কিভাবে খরচ করেন তা কাউকে কিছুই জানান না। এভাবে অধ্যক্ষ কলেজের টাকা লুটপাট করে খাচ্ছে।

মনোবিজ্ঞান বিভাগের শিক্ষক এমদাদুল হক ও রসায়ন বিভাগের প্রভাষক রেহেনা বেগম জানান, কলেজে কমিটি না থাকায় তাঁরাসহ অন্যান্য সিনিয়র শিক্ষকদের পদোন্নতির কাগজপত্র মন্ত্রনালয়ে পাঠাতে পারছেন না। এতো কিছু জানার পরও অধ্যক্ষ ম্যানেজিং কমিটি গঠণে কোন পদক্ষেপ গ্রহণ করেন নাই।

এব্যাপারে অধ্যক্ষ গোলাম মোস্তফা যুগান্তরকে বলেন, পূর্বে মামলার কারণে কলেজের কমিটি করা যায়নি। তবে এখন বোর্ডের সাথে কথা বলে তিনি অচিরেই ম্যানেজিং কমিটি গঠণের ব্যবস্থা গ্রহণ করবেন।

শিক্ষক-কর্মচারিরা বলেন, অচিরেই ম্যানেজিং কমিটি গঠণ এবং কলেজের টাকা পয়সার হিসাব অনুসন্ধান করলেই অধ্যক্ষের দুর্ণীতির থলের বিড়াল বেরিয়ে আসবে।

নবাবগঞ্জ উপজেলা নির্বাহী অফিসার অনিমেষ সোম বলেন, চড়ারহাট শহীদ স্মৃতি কলেজের অধ্যক্ষকে এডহক কমিটি গঠনের নির্দেশ দেওয়া হয়েছিল। কেন তিনি তা করেন নাই সে ব্যাপারে তদন্ত করে ব্যবস্থা নেওয়া হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: