সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ০৯:২৫ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

পেকুয়ার শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন কিশোরগ্যাং এর মাধ্যমে অপরাধ বিস্তার করছ !

  • সময় শনিবার, ১৯ জুন, ২০২১
  • ৩১০ বার পড়া হয়েছে

ক্রাইম প্রতিবেদন-১
পেকুয়া উপজেলার সদর ইউনিয়নের পশ্চিম গোয়াখালী ১নং ওয়ার্ডের মিয়া পাড়ার হেলাল উদ্দিনের ছেলে বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামি এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসী বাহাদুর হেলালী লিটন (৩৫) এলাকার উঠতি বয়সের ছেলেদের নিয়ে একটি অস্ত্রধারী কিশোরগ্যাং গড়ে তুলে অস্ত্রের প্রশিক্ষণ দিয়ে পেকুয়া এলাকায় নানা ধরনের অপরাধী কর্মকাণ্ড পরিচালিত করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

সূত্রে জানা যায় বিভিন্ন মামলার পলাতক আসামি শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন এলাকার তরুন যুবকদের নিয়ে নিজস্ব একটি কিশোরগ্যাং তৈরী করে পেকুয়া সদরে জায়গা দখল, চাঁদাবাজি এলাকার চিহ্নিত মাদক কারবারির ইন্ধনে মরণ নেশা ইয়াবা লুট করে এলাকায় চিহ্নিত ইয়াবা কারবারিদের কাছে বিক্রি করা, চুরি- ছিনতাই থেকে শুরু করে নানা অপরাধী কর্মকাণ্ড চালিয়ে যাচ্ছে।

শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন নিজে অস্ত্র হাতে নিয়ে কিভাবে অস্ত্র চালাতে হয় তার প্রশিক্ষণ প্রদান করে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় বাসিন্দারা। শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন অস্ত্র হাতে প্রশিক্ষণ দেওয়ার স্থিরচিত্র আমাদের ক্রাইম নিউজ প্রতিনিধি হাতে পেয়েছেন। যে স্থিরচিত্রটি সংবাদের শিরো ভাগে প্রকাশ করা হয়েছে।

শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটনের কিশোরগ্যাং এর অপরাপর সদস্যরা হল পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম গোয়াখালী মিয়া পাড়ার মৃত কালু মিয়ার ছেলে জাহেদুল ইসলাম, সাবের আহমেদের ছেলে মুজাফফর প্রকাশ মিয়া, হেলাল উদ্দিনের ছেলে মামুন, নুরুল আজিমের ছেলে ফুরকান এবং কালু মিয়ার ছেলে শফি আলম।
এই সশস্ত্র সন্ত্রাসী কিশোরগ্যাং এর আস্তানা এলাকার আবদুল গফুরের স্ত্রী ফরিদা বেগমের বসত বাড়ি বলে জানান স্থানীয় বাসিন্দারা। ফরিদা বেগমের বসত বাড়িই হল তাদের নিরাপদ আস্তানা।

অভিযোগ সম্পর্কে বাহাদুর হেলালী লিটনের সাথে তার মুঠোফোনে কথা বললে আমাদের প্রতিনিধিকে জানান, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা ষড়যন্ত্র মূলক। লিটন আরো জানান, আগামী ইউনিয়ন পরিষদ নির্বাচনে সে পেকুয়া সদর ইউনিয়নের ৩ নং ওয়ার্ডের একজন সম্ভাব্য মেম্বার পদপ্রার্থী। সেই সূত্রে তার প্রতিপক্ষ আগের মতো এই রকম ষড়যন্ত্র শুরু করেছে বলে জানিয়েছেন। দেশীয় তৈরী বন্দুক সহ তার ছবি সম্পর্কে জানতে চাইলে লিটন এই ছবি ১০ বছর আগের বলে জানিয়েছে।

আমাদের প্রতিনিধির কাছে লিটনের বিরুদ্ধে ৪টি মামলার তথ্য এসেছে। যার মধ্যে চকরিয়া থানার জিআর মামলা নং ১৫৯, চকরিয়া থানা জিআর মামলা নং ২০, এসটি মামলা নং ১২৬৭ কক্সবাজার ও সিআর মামলা নং ১৮২ চকরিয়া।

এই বাহিনীর হাতে বিভিন্ন সময়ে হামলার শিকার স্থানীয় বাসিন্দারা আমাদের প্রতিনিধিকে জানিয়েছেন শীর্ষ সন্ত্রাসী বাহাদুর হেলালী লিটনের বিরুদ্ধে ডাকাতি, মারামারি, ছিনতাই ও অস্ত্র মামলা সহ অন্তত পাঁচটি মামলা রয়েছে।

স্থানীয় সচেতন মহলের অভিমত জরুরী ভিত্তিতে শীর্ষ সন্ত্রাসী পলাতক আসামি লিটনকে গ্রেফতার করতে না পারলে এলাকার আইনশৃঙ্খলা পরিস্থিতির মারাত্মক অবনতি হবার আশঙ্কা রয়েছে। তাই স্থানীয় বাসিন্দারা অবিলম্বে শীর্ষ সন্ত্রাসী লিটন সহ তার বাহিনীর অপর সশস্ত্র সন্ত্রাসীদের গ্রেফতার করার জোর দাবী জানিয়েছেন।

সন্ত্রাসী লিটনের বিষয়ে আমাদের প্রতিনিধি আরো খোঁজ খবর নিচ্ছে তা দেখার জন্য চোখ রাখুন ” দৈনিক আলোকিত উখিয়া “র পেইজে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: