রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৩:০২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

মাদকের অভয়ারাণ্য সদরের ঈদগাঁও

  • সময় সোমবার, ১০ মে, ২০২১
  • ৩৬৯ বার পড়া হয়েছে

প্রকাশ্যে বসছে ইয়াবার হাট ইয়াবায় দ্বিতীয় টেকনাফে পরিণত হয়েছে কক্সবাজার সদরের ঈদগাঁও কক্সবাজার জেলার বাণিজ্যিক এলাকা ঈদগাঁওর আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতি দিন দিন অবনতি হচ্ছে। হাত বাড়ালেই পাওয়া যাচ্ছে ইয়াবা, মদ ও হেরোইন। বর্তমানে পানের দোকান থেকে শুরু করে বৃহত্তর ঈদগাঁওর গ্রামেগঞ্জে মরণ নেশা ইয়াবাই যুব সমাজকে ধ্বংস করে ফেলেছে। স্থানীয় প্রশাসন দেখেও না দেখার ভান করে থাকায় দিন দিন এ অবস্থা সৃষ্টি হয়েছে। দিন দিন যুব সমাজ মরণ নেশা ইয়াবা, ফেনসিডিল, গাঁজা, মদ, আফিমসহ অপরাধ জগতে পা বাড়াচ্ছে। বিশেষ করে ইসলামবাদ ইউনিয়নের খোদাই বাড়ি,বাসস্টেশনের লাল ব্রীজ,হরিপুর, গরুর বাজার, জাগির পাড়া সড়ক, কলেজ গেইট, দরগাহ পাড়া সড়ক, ইসলামাবাদের আলোচিত খুশির শিয়া, তেতুলতলি, শাহ্ ফকির বাজার, হাসির দিঘী, , বাঁশঘাটা, পোকখালী ইউনিয়নের মুসলিম বাজার, নাইক্ষ্যংদিয়ার গোমাতলী, চৌফলদন্ডী ইউনিয়নের নতুন মহাল, ভাঙ্গামুরা, মাঝের পাড়া, নাইক্ষ্যংদিয়া সড়ক, উপকূলীয় এলাকা, চৌফলদন্ডী সেতু এলাকা, জালালাবাদের মোহন বিলা, ফরাজী পাড়া, ইসলামপুরের বটতলী এলাকা, বামন কাটাসহ একাধিক এলাকায় প্রকাশ্য দিবালোকে এ মাদক ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে। অনেকে প্রতিবাদ করতে গিয়ে মাদক ব্যবসায়ীদের কবল থেকে রেহাই পাচ্ছে না। বিশেষ করে ইসলামাবাদের খুশির শিয়া এলাকার ৪ বোনের নিয়ন্ত্রণে ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে আসলেও প্রশাসন কোন ব্যবস্থা নিচ্ছে না। ইতিপূর্বে শাহ্ ফকির বাজারের নৈশ পহরি জালাল আহমদ ছেলে শাহাজান সিরাজ,এছাড়া গরুর বাজার এলাকার শামসুইয়াসহ ও আবু বক্কর সিদ্দিকী প্রকাশ গোটি (ইমন) শাহজালাল সহ একাধিক গড ফাদার পাইকারী হারে ইয়াবাসহ যাবতীয় মাদক বিক্রি করতে দেখা যাচ্ছে। দু’ মাদক সম্রাট শাইয়্যা ও গফুরইয্যা দীর্ঘ এক যুগ যাবত তাদের এ ব্যবসা চালিয়ে আসলেও বর্তমানে সে হাল ধরছে তাদের ছেলেও জামাতারা। বর্তমানে ঈদগাঁও বাস স্টেশনে লাল ব্রিজ নিচে সড়ক দিয়ে সন্ধ্যা হলেই মানুষ মাদকের দূর্গন্ধে চলাফেরা করতে পারছে না। এছাড়া ঐ এলাকায় সন্ধ্যা হলেই পতিতাদের উপস্থিতিও চোখে পড়ার মত। সম্প্রতি ঈদগাঁও থানা পুলিশ ইসলামাবাদের মাস্টার হাবিবুর রহমান ছেলে লাভলু, সরদার বধুরুর ছেলে কলিম উল্লাহ মৃত ফজল করিমের ছেলে শাহাজান মৃত শাহাআলমের ছেলে ইমন বারমাইয়া সেলিম ও ইদ্রিস মাস্টারের ছেলে তৌহিদ ইসলামপুরে বেলাল (প্রকাশ) ইয়াবা বেলাল ব্লিজার পাড়ার নবি হোসেন। আউলিয়াবাদের আমেনা খাতুন, হরিপুরের শামসুল আলম, জুইন্যাবি,ও গরুর বাজার এলাকার শাইয়ার পুত্র গ্রেফতার হলেও বর্তমানে এ ব্যবসার মুলে রয়েছে আলোচিত খুশির শিয়ার, ইয়াবা বাবুল ও মমতাজ আহম্মদ ছেলে মোবারক, ৪ বোন। এছাড়া পোকখালী ইউনিয়নের নাইক্ষ্যংদিয়া এলাকার এক প্রভাবশালী পুত্র বার্মাইয়া মহিলার মাধ্যমে এ ব্যবসা অব্যাহত রেখেছে। স্থানীয় পুলিশ অভিযান না চালালে গোটা এলাকার আইন-শৃঙ্খলা পরিস্থিতির অবনতি হবে। তাই এলাকাবাসীর দাবী, কে বা কারা বা কিভাবে বার্মা থেকে ইয়াবাসহ বিভিন্ন মাদক ঈদগাঁওতে এনে পাইকারী হারে বিক্রি করছে তা প্রশাসনের জানা রয়েছে। পুরো এলাকায় পুলিশ টহল অব্যাহত রাখলে অপরাধীরা পার পাবে না। তাই বর্ণিত এলাকাগুলোতে পুলিশী অভিযান জরুরী হয়ে পড়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: