শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:৫১ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

লকডাউনে আটকে পড়াদের ২য় ডোজ নিতে দুশ্চিন্তা নেই

  • সময় রবিবার, ১১ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৫৯ বার পড়া হয়েছে

করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিনের (টিকা) প্রথম ডোজ গ্রহণকারীদের অনেকেই চলমান লকডাউনের কারণে বিপাকে পড়েছেন। দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করার জন্য সরকারের তরফ থেকে মোবাইলে খুদে বার্তা পাঠানো হলেও নিজস্ব জেলা বা উপজেলা থেকে অন্য কোথাও অবস্থান করায় অনেকেই ভ্যাকসিন নিতে পারছেন না।
যানবাহন চলাচলে বিধি নিষেধ থাকায় প্রথম ডোজ যে কেন্দ্র থেকে গ্রহণ করেছেন সেই কেন্দ্রে উপস্থিত হতে পারছেন না। এতে করে চরম দুঃশ্চিন্তায় পড়া মানুষের জন্য সুখবর দিয়েছে স্বাস্থ্য বিভাগ। নির্দিষ্ট কিছু শর্ত মানলেই প্রথম ডোজ গ্রহণকারীদের যে যেখানে অবস্থান করছেন সেখানকার নিকটবর্তী কেন্দ্রে গিয়ে ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে পারবেন।
যশোরের সিভিল সার্জন জানিয়েছেন, করোনাভাইরাস প্রতিরোধী ভ্যাকসিনের প্রথম ডোজ গ্রহণ করার আগে বাধ্যতামূলকভাবে অনলাইন রেজিস্ট্রেশন করতে হয়েছে। রেজিস্ট্রেশনের সময় নির্দিষ্ট কেন্দ্রের নাম উল্লেখ করে মানুষ ভ্যাকসিন গ্রহণ করেছেন। নির্ধারিত ৮ সপ্তাহ পার হওয়াদের দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণের আমন্ত্রণ জানিয়ে মোবাইলে খুদে বার্তা পাঠানো হচ্ছে। সরকারি নির্দেশনানুযায়ী নির্দিষ্ট কেন্দ্র ব্যতিত ভ্যাকসিনের দ্বিতীয় ডোজ দেয়া হচ্ছে না। কিন্তু করোনা সংক্রমণ মাত্রাতিরিক্ত বেড়ে যাওয়ায় সরকার দেশব্যাপি লকডাউন ঘোষণা করায় যানবাহন চলাচল বন্ধ থাকায় অনেকেই নির্দিষ্ট কেন্দ্রে আসতে পারছেন না। ফলে প্রথম ডোজ গ্রহণকারীদের অনেকেই দুশ্চিন্তায় পড়েছেন, আদৌ দ্বিতীয় ডোজ গ্রহণ করতে পারবে কীনা! হতাশার কোনো কারণ নেই। প্রথম ডোজ গ্রহণের ১২ সপ্তার মধ্যে দ্বিতীয় ডোজ নিতে পারবেন।
সিভিল সার্জন আরও জানিয়েছেন, প্রথম ডোজ গ্রহণকারীদের কেউ যদি নির্দিষ্ট কেন্দ্র ব্যতিত তাদের সুবিধামতো কাছাকাছি কোনো কেন্দ্র থেকে ভ্যাকসিন গ্রহণ করতে চান তাহলে কিছু শর্ত মানতে হবে। চাকরিরতদের মধ্যে বদলি জনিত কারণে কেন্দ্র পরিবর্তন করতে চাইলে অফিসিয়াল কাগজপত্র ও ভ্যাকসিন কার্ডসহ সিভিল সার্জন কার্যালয় অথবা উপজেলা স্বাস্থ্য ও পরিবার পরিকল্পনা কর্মকর্তার কার্যালয়ে আবেদনপত্র জমা দিতে হবে। অন্যরাও সুনির্দিষ্ট কারণ উল্লেখ করে কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদনপত্র জমা দিতে পারেন। স্বাস্থ্য বিভাগের তরফ থেকে কেন্দ্র পরিবর্তনের আবেদনপত্র নিয়ন্ত্রণকারী সংস্থার কাছে প্রেরণ করে কেন্দ্র পরিবর্তনের ব্যবস্থা করা হবে। সেক্ষেত্রে ভ্যাকসিন গ্রহণের যোগ্যতা সম্পন্নদের মোবাইলে খুদে বার্তা প্রেরণ করা হবে। নির্দিষ্ট কেন্দ্রে মোবাইলে খুদে বার্তা দেখাতে না পারলে ভ্যাকসিন প্রদান করা হবে না।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: