রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৫:০৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

দীর্ঘদিনের বসত বাড়ি ভেঙ্গে দিলেন বিট কর্মকর্তা অঞ্জন বিশ্বাস

  • সময় বৃহস্পতিবার, ৮ এপ্রিল, ২০২১
  • ১৬৪ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ-
কক্সবাজারের মহেশখালীতে ছোটমহেশখালী ইউনিয়নের বশিরাখোলা এলাকায় জোর পূর্বক দীর্ঘদিনের একটি বসত বাড়ি  ভেঙ্গে দেওয়ার অভিযোগ পাওয়া গেছে। এমনটি অভিযোগ করেছেন ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির মালিক মোঃ কাউছার। সূত্রে জানা যায়, ছোটমহেশখালীর ১২ নং মৌজার বশিরাখোলা এলাকায় দীর্ঘ  দিন ধরে বসবাস করে আসছিল  মোঃ কাউছার। সামনে বর্ষা মৌসুমের কথা চিন্তা করে সে নতুন করে একটি বাড়ি তৈরি করতে গেলে হঠাৎ করে ৭ এপ্রিল (বুধ বার)  দুপুরে মুদিরছড়া বিট কর্মকর্তা অঞ্জন বিশ্বাস লোকজন সহকারে গিয়ে মোঃ  কাউছারের বসত বাড়িটি ভেঙ্গে দেয়। এসময় মোঃ কাউছার এবং তার পরিবার বাধা দেওয়ার চেষ্টা করলে বিট কর্মকর্তা ব্ল্যাংক ফায়ার দিয়ে ভীতিকর পরিস্থিতি সৃষ্টি করে বলে জানান মোঃ কাউছার। এসময় গুলির শব্দ পেয়ে মোঃ কাউছার সরে গেলেও তার স্ত্রী শারমিন আকতার সহ অন্যান্য মহিলারা বাধা প্রদান করতে চাইলে  বিট কর্মকর্তা অঞ্জন বিশ্বাস সহ তাদের লোকজন ঐসব মহিলাদের ধাক্কা দেয় এবং নাজেহাল করেছে বলে অভিযোগ করেছেন  ক্ষতিগ্রস্ত বাড়ির  মহিলারা। এব্যাপারে ছোটমহেশখালী মুদিরছড়া বিট কর্মকর্তা অঞ্জন বিশ্বাসের সাথে যোগাযোগ করা হলে তিনি জানান, ছোটমহেশখালী ১২ নং মৌজায় মহেশখালী রেঞ্জের অধীনে  উচ্ছেদের আওতায় মোঃ  কাউছার এর বাড়িটি ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে। উচ্ছেদ অভিযান কি আজকে থেকে শুরু নাকি আগে থেকে চলমান রয়েছে এমন প্রশ্নের জবাবে তিনি বলেন এটি একটি চলমান প্রক্রিয়া৷ অসহায় দিন মজুর ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ির মালিক মোঃ কাউছার বিট কর্মকর্তার বিরুদ্ধে  অভিযোগ করে আরো বলেন, সেই বিট কর্মকর্তা বাড়িটি তৈরি করতে বিশ হাজার টাকা দাবী করেন। আগে দশ হাজার টাকা দেওয়ার পর বাড়িটির খুঁটি এবং স্থাপনা তৈরি করা হয়। বাকি দশ হাজার টাকা না দেওয়ায় তার বাড়িটি ভেঙ্গে দিয়েছে বলে এমন অভিযোগ করেন  মোঃ কাউছার। টাকা দাবীর বিষয়টি অস্বীকার করেন বিট কর্মকর্তা অঞ্জন বিশ্বাস। তবে তিনি ব্ল্যাংক ফায়ার দেওয়ার বিষয়টি এবং বাড়ি ভেঙ্গে দেওয়ার বিষয়টি স্বীকার করেন।অসহায় দিন মজুর মোঃ কাউছার আরো বলেন, বশিরাখোলা এলাকায় শত শত বাড়ি ঘর রয়েছে। কয়েকদিনে নতুন করে বেশ কয়েকটি বাড়ি তৈরি করা হয়েছে। উচ্ছেদ এর কথা বলে অন্যান্য বাড়ি ঘর না ভাঙ্গলেও শুধু মাত্র মোঃ কাউছার এর বাড়িটি ভেঙ্গে দেওয়ায় বিষয়টি মিশ্র প্রতিক্রিয়া দেখা দিয়েছে। আরো উল্লেখ্য যে, মোঃ কাউছার বাড়িটি ব্যক্তি মালিকানাধীন নাল জমির উপর তৈরি করছিল। তিনি কোন সরকারি পাহাড় কেটে বা সরকারি বনায়ন নষ্ট করে বাড়িটি তৈরি করাছিলনা। তারপরও কেন তার বাড়িটি উচ্ছেদ এর কথা বলে ভেঙ্গে দেওয়া হয়েছে? এব্যাপারে ক্ষতিগ্রস্থ বাড়ির মালিক মোঃ কাউছার প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেছেন।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: