শুক্রবার, ০৩ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:০৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

টেকনাফে দুষ্কৃতকারীদের আগুন পাহাড় জ্বলে নিশ্চিহ্ন

  • সময় মঙ্গলবার, ৬ এপ্রিল, ২০২১
  • ২২৩ বার পড়া হয়েছে

আজিজ উল্লাহ,টেকনাফ:
টেকনাফের বাহারছড়া উত্তর শিলখালী পূর্বের গহীন পাহাড়ে অদৃশ্য দুষ্কৃতকারী পাহাড়কেখোদের আগুনে পুড়ে সবুজ শ্যামল পাহাড় নিশ্চিহ্ন হয়ে গেছে। গত সাপ্তাহে যে পাহাড় সবুজ অরণ্যে আচ্ছাদিত ছিল শ্যামলে ভরপুর ছিল তা আজ যেন পুড়া মাটি। প্রতিনিয়ত পাহাড়ে আগুন,জোরজবরদস্তি করে পাহাড় দখল করে আম বাগান,লেবু বাগানসহ জুম চাষ কারার জন্য আগুন লাগানোর কারণে গহীন অরণ্যের পাহাড় উজাড় হয়ে যাচ্ছে। অথচ বাহারছড়ার এসব পাহাড় গত ১৫/২০ বছর আগে বন বিভাগের একটি সমীক্ষা বলছে যে পাহাড়ে ২৮৮টি প্রজাতির বিভিন্ন পশুপাখি জীবজন্তুর অবাধ বিচরণ ছিল।জীববৈচিত্র্যের পাশাপাশি প্রাণ বৈচিত্র্যও ভরপুর ছিল।যে বন আম-জাম সেগুনে ভরা ছিল সন্ধ্যার বর্ণিল আলোকসজ্জায় বিভিন্ন পাক পাকালির কিচিরমিচির শব্দে পরিবেশ মুখরিত ছিল। আজকাল দুষ্কৃতীকারীদের পাহাড়ে আগুন,পাহাড় দখল করার ফলে বন উজাড় হয়ে গেছে পশুপাখি জীবজন্তু বিলুপ্ত হয়ে গেছে ২৮৮ টি প্রজাতির জীবজন্তু থেকে বনে আজ গুটি কয়েক হাতি বানর ছাড়া তেমন একটা প্রাণী চোখে পড়ে না। এদিকে বন বিভাগের কর্মকর্তাদের নিরব ভূমিকার কারণে পাহাড় দখল হয়ে যাচ্ছে বলে স্থানীয় সচেতন মহলের অভিযোগ রয়েছে। সাম্প্রতিক সময়ে পাহাড়ে পশুপাখি নেই বললেই চলে তার উপর গাছপালা উজাড়ের পর সরকারিভাবে যে বনায়ন করা হচ্ছে তা প্রয়োজনের তুলনায় একেবারে নগন্য।এদিকে হাজার হাজার একর বনভূমি পড়ে আছে তাতে বনায়ন নেই।তার মধ্যে প্রাকৃতিকভাবে অঙ্কুরিত সবুজ পাহাড় জ্বালিয়ে নিশ্চিহ্ন করে জ্বালাচ্ছে কতিপয় স্থানীয় পাহাড়কেখোরা। বাহারছড়া শিলখালী রেঞ্জের কর্মকর্তা মোহাম্মদ হাসান জানান দুষ্কৃতিকারী পাহাড় দখল করতে চুরি করে আগুন দেয় তাই তাদের ধরা কঠিন,।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: