শুক্রবার, ২৩ এপ্রিল ২০২১, ১০:৪৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

দৈনিক আলোকিত উখিয়া সংবাদপত্রে প্রকাশিত “নজির মেম্বারের বিরুদ্ধে রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখল করার অভিযোগ ” শীর্ষক সংবাদ প্রসঙ্গে নজির মেম্বারের বিবৃতি

  • সময় মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১
  • ২১০ বার পড়া হয়েছে

দৈনিক আলোকিত উখিয়া সংবাদপত্রে প্রকাশিত “নজির মেম্বারের বিরুদ্ধে রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখল করার অভিযোগ ” শীর্ষক সংবাদ প্রসঙ্গে নজির মেম্বারের বিবৃতি গত ৮ মার্চ দৈনিক আলোকিত উখিয়া সংবাদপত্র ও অনলাইন পোর্টালে ” নজির মেম্বারের বিরুদ্ধে রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখল করার অভিযোগ ” শীর্ষক সংবাদটি আমার দৃষ্টি গোচর হয়েছে। আমি উক্ত সংবাদের তীব্র প্রতিবাদ জানাচ্ছি এবং উক্ত সংবাদের আলোকে ঘটনার আসল চিত্র তুলে ধরে আমার বক্তব্য আকারে বিবৃতি প্রদান করছি। আমার জেটা হাজী ওয়ালি আহমদ পিতা আবদুল জলিলের সাবরাং মৌজার ২ নং সীটের ৯৯২ নং খতিয়ানের বিএস ৮৪৬১নং দাগের আন্দর ১.১৪ একর জমি। আমার পিতা হাজী আলী আহমদ এর মালিকানাধীন আর.এস.খতিয়ান নং ১১১২/৬০২ , আর.এস. দাগ নং ৩৯৪৪/১০৪৯৭ এর আন্দর ০.৭০ একর জমি,আর,এস, ৩৯৪২/১০৫৯৮ নং দাগের আন্দর ০.৪৪ একর জমি সর্বমোট ১.১৪ একর জমির ওয়ারিশ সূত্রে প্রাপ্ত হয়। ২০০৫-৬ ইংরেজি সনে বাংলাদেশ সরকারের কাছ থেকে ১নং খাস খতিয়ানের বিএস ৮৪৫০ দাগের আন্দর ০.৭০ একর এবং বিএস ৮৪৬১ দাগের আন্দর ০.৫৫ একর জমিসহ মোট ১.২৫ একর জমি ১০৯৭ নং দলিল মূলে ১০ বছরের জন্য লিজ গ্রহন করি। ২০১৭ ইংরেজি সনে ৭৯৭ নং দলিল মূলে পুনরায় লিজ গ্রহনকরা জমির লিজ নবায়ন করে যথারীতি ভোগদখলকার হিসাবে আছি। আমি আমার পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত জমিতে লবণ চাষের জমি তৈরী করতে গেলে সাবরাং বাজার পাড়ার হাজী আবদুল করিমের ছেলে আবদুর রহিম ও তার ভাই এবং ছেলেরা দা লাঠি নিয়ে আমার জমিনে কাজ করারত মজুরদের কাজে বাঁধা দেয়।

পরে স্থানীয় সালিশকারদের মাধ্যমে সালিসি বৈঠকে সিদ্ধান্ত হয় যে পক্ষদ্বয়ের মধ্যে বিরোধীয় জমি সার্ভেয়ারের মাধ্যমে পরিমাপ করার সিদ্ধান্ত গৃহীত হয়। সেই মোতাবেক স্থানীয় সার্ভেয়ারের মাধ্যমে আমরা পক্ষগণের উপস্থিতিতে জমি পরিমাপ করলে আমার ওয়ারিশ সূত্রে প্রাপ্ত জমি দ্বিতীয় পক্ষ আবদুর রহিমদের দখলের মধ্যে পড়েছে দেখা যায়। সার্ভেয়ারের পরিমাপ এবং সালিশকার গণের সিদ্ধান্ত মতে আমার খতিয়ান ভুক্ত জমি আবদুর রহিম গংরা ফেরত দিতে বাধ্য হয়। পরিমাপ পরবর্তী সময়ে তাদের দখলে থাকা আমার পৈত্রিক সূত্রে প্রাপ্ত জমি আমাকে ফেরত দিতে হওয়ায়। আবদুর রহিম গং আমার উপর ক্ষিপ্ত হয়ে গত ০৭/০৩/২০২১ ইং তারিখ টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর আমার বিরুদ্ধে জনগণের চলাচলের রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট করার অভিযোগ এনে একখানা আবেদন করেন। সেই আবেদনের প্রেক্ষিতে সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিসের তহশিলদার সরজমিন উপস্থিত হয়ে আমার দ্বারা কোন প্রকার রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট করা হচ্ছে না দেখে আবদুর রহিমের করা মিথ্যা ষড়যন্ত্র মূলক আবেদনের পরবর্তী কার্যক্রম অগ্রবর্তী করার কথা বলে তহশিলদার টেকনাফ ভুমি অফিসে চলে যায়। তহশিলদারের কথা শুনে আবদুর রহিম গংরা ক্ষিপ্ত হয়ে সাংবাদিক ভাইদের ভুল তথ্য দিয়ে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ষড়যন্ত্র মূলক সংবাদ প্রকাশ করেন। তারই অংশ হিসাবে গত ৮ মার্চ দৈনিক আলোকিত উখিয়া সংবাদপত্রে আমার বিরুদ্ধে মিথ্যা ষড়যন্ত্র মূলক সংবাদ প্রকাশ করিয়েছেন। যাহা ডাহা মিথ্যা ছাড়া আর কিছুই নহে। পক্ষান্তরে ইতিমধ্যে হাজী আবদুল করিমের ছেলে আবদুর রহিম ও তার ভাই আবদুল হামিদ, আফছারুল করিম ও ছেলে সাইফুল ইসলাম গংরা জনগণের চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে রাস্তার উপর নিজেরাই লবণের স্তুপ করে রাখে।

যে কারণে সাধারণ মানুষের চলাচলের রাস্তা একপ্রকার বেআইনি ভাবে বন্ধ করে রেখেছে। শুধু তাই নয় সাবরাং পুরাতন বাজারের ১নং খাস খতিয়ানের জায়গা জবর দখল করে দোকান ঘর নির্মাণ করলে টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) অফিস থেকে লোক এসে দোকান ঘর নির্মাণ না করতে নিষেধ করেন। যার প্রেক্ষিতে এই চক্রটি আমার উপর ক্ষুব্ধ হয়ে বিভিন্ন প্রপাগাণ্ডা ছড়াচ্ছে। সেই ক্ষুব্ধতার বহিঃপ্রকাশ হিসাবে আমার বিরুদ্ধে রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাটের উদ্ভট মিথ্যা ষড়যন্ত্র মূলক আবেদন করে আমার সামাজিক সুনাম ক্ষুন্ন করার অপচেষ্টা চালাচ্ছে। আমি সাংবাদিক ভাইদের কাছে অনুরোধ জানাচ্ছি সরজমিন উপস্থিত হয়ে ঘটনার আসল চিত্র তুলে ধরার জন্য। গত ৮ মার্চ দৈনিক আলোকিত উখিয়া সংবাদপত্রে প্রকাশিত ” নজির মেম্বারের বিরুদ্ধে রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখলের অভিযোগ ” শীর্ষক সংবাদে বিভ্রান্ত না হওয়ার জন্য আইন প্রয়োগকারী সংস্থা এবং আমার শুভাকাঙ্ক্ষীদের প্রতি অনুরোধ জানাচ্ছি। আমার দেওয়া উপর্যুক্ত বক্তব্যই হল ঘটনার আসল চিত্র। বিবৃতি প্রদানকারীঃ নজির আহমেদ পিতা মৃত হাজী আলী আহমদ সাং সাবরাং বাজার পাড়া, সাবরাং টেকনাফ।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: