বুধবার, ২৮ জুলাই ২০২১, ১১:৪৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

চেয়ারম্যান-মেম্বারে যোগসাজোগে ঈদগাঁও ইসলামবাদে পানি চলাচলের ব্রীজ দখল স্থানীয় প্রশাসনের অবহেলার কারণে

  • সময় মঙ্গলবার, ৯ মার্চ, ২০২১
  • ১২৩ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
ঈদগাঁও কক্সবাজার সদর উপজেলার ইসলামবাদে ব্রীজ দখল করে পানি চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়াল নির্মানের গুরুতর অভিযোগ উঠেছে । ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মধ্যম গজালিয়া এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় এলাকাবাসীর মাঝে ক্ষোভের সঞ্চার হয়েছে । সরেজমিনে দেখা যায়, ইসলামাবাদ ইউনিয়নের ৯নং ওয়ার্ড মধ্যম গজালিয়া এলাকার চরপাড়া সড়কের বড় ব্রীজ দিয়ে বর্ষা মৌসুমে এলাকার বৃষ্টির পানি ও পাহাড়ি ঢলের পানিসহ যাবতীয় পানি যাতায়াত করে থাকে । এ ব্রীজে দিয়ে পানি নিষ্কাশনের ফলে এলাকাবাসী বন্যা কবলিত হওয়ার হাত থেকে রক্ষা পায় । অন্যদিকে কৃষি নির্ভরশীল এ এলাকার লোকজনে ধান চাষ ও ক্ষেত খামার করে আসছে নির্বিঘ্নে । সম্প্রতি এলাকার মৃত আবুল খায়েরের ছেলে রশিদ আহমদ উক্ত সড়কের পানি চলাচলের রাস্তা বন্ধ করে দেওয়াল নির্মানের কাজ শুরু করে। এতে এলাকার লোকজন বাঁধা দিতে গিয়ে উভয় পক্ষ মুখোমুখি অবস্থানে । এ ঘটনাকে কেন্দ্র করে রক্তক্ষয়ী সংঘর্ষের আশঙ্কা দেখা দিয়েছে বর্নিত এলাকায় ।

এ ব্যপারে অভিযোগ ওঠা রশিদ আহমদের সাথে কথা হলে জায়গা পাবে বলে দাবী করেন এবং পানি নিষ্কাশনের বিকল্প ব্যবস্থা করে রাখছেন বলে জানান । স্থানীয় এলাকাবাসীর সাথে কথা হলে বলনে আমরা বিগত ছয়-সাত-বছর আগে এই ব্রীজ না থাকায় আমার চলাচল করতে পারতাম না বন্যার পানির কারণে চাষের জমিতে চাষ করতে পারতামনা এখন আমরা তিন বছর পরে এই ব্রীজ পাওয়া চলাচল করতে পারি চাষাবাদ করার উপযোগী হয় যদি ব্রীজের পানি চলাচলের মুখ বন্ধ করে দিলে ছয়শত পরিবার আবারো কষ্টে জীবন যাপন করতে হবে আমাদের ছেলে মেয়েরা বন্যার সময় স্কুল কলেজে যেতে পারবেনা এই জন্য আমাদের দাবি সরকার ও স্থানীয় প্রশাসনের কাছে পানি চলাচলের রাস্তা করে দেওয়া হোক স্থানীয় মেম্বার সিরাজুল ইসলামের সাথে কথা হলে চেয়ারম্যান সহ ঘটনা স্থল পরিদর্শন করেন বলে জানান,চেয়ারম্যান ২০ ফুট যায়গা রেখে কাজ করতে বলছেন, তিনি বিগত পাঁচ বছর আগে বর্ষা মৌসুমের বৃষ্টি পানি এবং বন্যার পানির জন্য মানুষ চলাচল করতে পারতোনা তাই আমি আই ডি সি, প্রকল্পের সহায়তায়,৩৯ লক্ষ টাকা বাজেটে,প্রতিবেদক জানতে চাইলে মেম্বার কাছে অভিযুক্ত রশীদ আহমেদ দাবি করেন আমার খতিয়ান যায়গায় ব্রীজ দিচ্ছে আরো বলেন ব্রীজটি করার সময়,আমি যখন বাঁধা দিয়েছি তখন আমাকে বলেন ব্রীজের মুখ পরে বন্ধ করে দিতে পারবে। মেম্বার সিরাজুল ইসলাম বলেন এই ব্রীজ কারো খতিয়ানের উপর দিয়ে করা হয় নাই এটা খাস যায়গার গোপাট ছিল তাই সরকারি ভাবে এই ব্রীজ করা হয়েছে। এই বিষয়ে চেয়ারম্যান নুর ছিদ্দিক জানান ,আমি ঘটনাস্থলে গিয়ে ২০ফুট যায়গা রেখে। দেওয়াল নির্মান করার জন্য বলে আসছি । এই বিষয়ে উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা সুরাইয়া আক্তার সুইটি সাথে মোটোফোনে যোগাযোগ করা হলে এই বিষয়ে আমি চেয়ারম্যান কে অবগত করছি।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: