সোমবার, ২৬ জুলাই ২০২১, ১০:২৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

নজির মেম্বারের বিরুদ্ধে সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখলে অভিযোগ

  • সময় সোমবার, ৮ মার্চ, ২০২১
  • ৩০৭ বার পড়া হয়েছে

বিশেষ প্রতিনিধি;
জনগণের চলাচলের রাস্তা কেটে সাবরাং ইউনিয়নস্থ সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে সাবেক মেম্বার নজির আহমেদের বিরুদ্ধে। সাবরাং বাজার পাড়া এলাকার মৃত আলী আহমদ সওদাগরের ছেলে সাবরাং ইউনিয়নের সাবেক মেম্বার নজির আহমেদের বিরুদ্ধে সাবরাং বাজার পাড়া (পুরাতন মগ পড়া) এলাকার পেছনের(ওয়াপ্রিদিয়া) বিভিন্ন জনের লবন মাঠ ও মৎস্য প্রকল্পে যাতায়তের স্থানীয় জনগণের দীর্ঘদিনের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি কেটে সাবরাং মৌজার ১নং খাস খতিয়ানের ৮৪৪৯ ও ৮৪৫০ দাগে স্থিত শতাধিক বছরের পুরানো খালটি ভরাট করে জবর দখল করার অভিযোগ পাওয়া গেছে।

এব্যাপারে গত ৭ মার্চ জরুরী ভিত্তিতে আইনানুগ ব্যবস্থা গ্রহনের আবেদন জানিয়ে টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) টেকনাফ বরাবর ক্ষতিগ্রস্ত জমির মালিকদের পক্ষে সাবরাং এলাকার মৃত হাজী আবদুল করিমের ছেলে আবদুর রহিম একখানা আবেদন পত্র দাখিল করেন। উল্লেখিত রাস্তা কাটা ও খাল ভরাট করা জরুরী ভিত্তিতে বন্ধ করা না হলে পার্শ্ববর্তী জমির মালিকেরা তাদের জোত জমিতে লবণ চাষ করতে মারাত্মক ব্যাঘাত ঘটবে বলে জানিয়েছেন স্থানীয় ভুক্তভোগীরা।

তহশিলদারের কাছে জানতে চাইলে,তিনি আলোকিত উখিয়াকে জানায়;আমি কোন খাল ভরাট করতে দেখি নায় এবং কোন রাস্তা কাটতে ও দেখি নাই বলে জানিয়েছেন। নজির মেম্বারের কাছে এসব বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি বলেন; আমি কোন খাল ভরাট করি নায় এবং রাস্তার মাটি ও কাটে নাই বলে জানালেও সরজমিন চিত্র অন্যরকম। এদিকে টেকনাফ সহকারী কমিশনার (ভূমি) বরাবর যে আবেদন করা হয়েছিল সেই আবেদনের সত্যতা যাচাই কল্পে টেকনাফ ভূমি অফিসের তহশিলদার ঘটনাস্থলে গিয়ে উল্টো রাস্তা কেটে সাবরাং খাল ভরাট কারীদের পক্ষে কথা বলেন বলে জানা যায়।

এই বিষয়ে তহশিলদারের কাছে জানতে চাইলে তিনি আলোকিত উখিয়াকে জানায়, আমি কোন খাল ভরাট করতে দেখি নায় এবং কোন রাস্তা কাটতে ও দেখি নাই বলে জানিয়েছেন। তবে সরজমিন উপস্থিত হয়ে দেখা গেছে জনসাধারণের চলাচলের রাস্তা কেটে একাংশ বিলীন করে ফেলেছে। যাহা ছবির মাধ্যমে প্রকাশ করা হয়েছে। দীর্ঘদিন ধরে এই এলাকার সরকারের ১নং খাস খতিয়ানের কয়েক একর জায়গা বিভিন্ন সময়ে এলাকার প্রভাবশালী মহল বেড়িবাঁধ কেটে নিজেরাই জবর দখল করে রেখেছে বলে জানিয়েছেন এলাকাবাসী।

বর্তমান সময়ে যেভাবে জনগণের চলাচলের একমাত্র রাস্তাটি কেটে সাবরাং খাল ভরাট করে জবর দখলে নেবার যে কর্মজজ্ঞ শুরু করেছে এর লাগাম টেনে না ধরতে পারলে অদূর ভবিষ্যতে সাবরাং খালের অস্তিত্ব বিলীন হয়ে যাবে এমনটায় মনে করছেন বিজ্ঞ জনেরা। এই বিষয়ে স্থানীয় নদী খাল রক্ষা কমিটির জেলা পর্যায়ের একাধিক নেতার সাথে কথা বলে জানা যায়, প্রশাসনের কিছু দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের সহযোগিতায় জেলার বিভিন্ন নদী খাল ভরাট করে ভূমিদস্যুরা জবর দখল করার সুযোগ পাচ্ছে বলে মনে করেন। এ ব্যপারে কক্সবাজার জেলা নদী ও খাল রক্ষা কমিটি সেই সমস্ত দুর্নীতিবাজ কর্মকর্তাদের চিহ্নিত করে আইনের আওতায় আনার জন্য মহামান্য হাইকোর্টের দারস্থ হবেন বলে অভিমত ব্যক্ত করেন। জরুরী ভিত্তিতে সাবরাং খাল ভরাট বন্ধ করা না হলে স্থানীয় লবণ চাষের মারাত্মক ক্ষতি হবে বলে মনে করেন স্থানীয় লবণ চাষীরা।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: