শনিবার, ০৮ মে ২০২১, ০৭:৪৫ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

হোয়াইক্যং তুলাতলীর মাদক সিন্ডিকেট এখনো বহাল তবিয়তে

  • সময় বুধবার, ৩ মার্চ, ২০২১
  • ২৫১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক::
হোয়াইক্যং ইউনিয়নের ২নং ওয়ার্ড তুলাতলী খারাইংগা ঘুনা এলাকায় ইয়াবার সিন্ডিকেট এখনো বহাল তবিয়তে রয়েছে বলে খবর পাওয়া গেছে। মাদকের সাথে সংশ্লিষ্ট উক্ত সিন্ডিকেটের নেতারা প্রকাশ্যে ঘুরাফিরা করায় জনমনে নানা প্রশ্নের উকি দিয়েছে।
জানা যায়, এলাকার মৃত আবুল মন্জুরের পুত্র মোঃ হোছন,গুরামিয়ার পুত্র ধলাইয়্যা,দুদু মিয়ার পুত্র আনোয়ার, শুক্কুরের পুত্র নুরুল হক কালু,ফায়সাল,হাবিবুররহমানের পুত্র নাছির উদ্দিন, মোস্তাক আহমদের পুত্র ইসলাম, ছৈয়দ আহমদের পুত্র ছাবেরা আহমদ, ফরিদুল্লাহর পুত্র হোছন আহমদ সহ ১০/১২ জনের সিন্ডিকেট তুলাতলী সীমান্তের মাদক তথা ইয়াবা,বিদেশী মদ,বিয়ার,কারেন্টজাল,কাপড় সহ নানান প্রকারের চোরাইপন্য আনা নেয়ার মূল গোতা ১২ জনের উক্ত সিন্ডিকেট। স্থানিয়রা জানায়, এই চিহ্নিত মাদককারবারীদের যতদিন আইনের আওতায় না আনা হবে,ততোদিন তুলাতলী খারাইংগাঘুনার মাদক প্রতিরোধ অসম্ভব হয়ে পড়বে। উল্লেখ্য যে,
গত ১৭ ফেব্রুয়ারি-২০২১ (বৃহস্পতিবার) ভোর রাতে টেকনাফ উপজেলার অন্তর্গত হোয়াইক্যং ইউনিয়ন খারিঙ্গাঘোনা এলাকা থেকে ২০ হাজার ইয়াবার চালান উদ্ধারের ঘটনায় উক্ত সিন্ডিকেট জড়িত বলে একাধিক মহল জানান।
টেকনাফ উপজেলার হোয়াইক্যং ইউনিয়ন এর খারিঙ্গাঘোনা এলাকার চিহ্নিত মাদক ব্যবসায়ী মো: হোছন এর বাড়িতে ইয়াবার একটি চালান মজুদ রয়েছে মর্মে খবর পেলে পুলিশ তার বাড়িতে হানা দিয়ে ২০ হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে। এলাকাবাসীও প্রত্যক্ষদর্শিরা জানায়, আবুল মন্জুরের পুত্র মো: হোছনের বাড়ি থেকে পুলিশ ইয়াবা উদ্ধার করলে ও এ ঘটনায় আসামী করা হয় মোঃ হোছনের ভাই আনোয়ার কে।
অথচ আনোয়ারের বাড়ি আলাদা।ভাত-পানি সব কিছু আলাদা। এমতাবস্থায় ইয়াবা উদ্ধারের ঘটনায় ইয়াবার মূল মালিক মোঃ হোছন কে মামলা থেকে আড়াল করার প্রশ্ন ঘুরপাক খাচ্ছে বার বার। এলাকাবাসীর মতে, বিষয়টি নিরপেক্ষ ভাবে আরো তদন্ত করা উচিত। এতে বেরিয়ে আসতে পারে ইয়াবা কিং মোঃ হোছনের অজানা তথ্যাদি। হোয়াইক্যং পুলিশ ফাড়ি সুত্রে জানা যায়, উক্ত ঘটনায় এস.আই.নুরে আলম বাদী হয়ে আনোয়ার,জাহেদ আলম,জামাল সহ অজ্ঞাত নামা ৫/৬ জন কে আসামী করে মাদকদ্রব্য আইনে মামলা দায়ের করে। মামলার তদন্তকারী কর্মকর্তা এস.আই মুজিবর জানায়,এ বিষয়ে পুলিশী তদন্ত অব্যাহত আছে। মাদকের সাথে জড়িত কেউ রেহায় পাবেনা।
এদিকে কাটাখালীর সাবেক ওসি প্রদীপের স্নেহভাজন এক চৌকিদার মাদকের সাথে জড়িত বেশ কয়েকজনের সাথে দরকষাকষি করছে বলে খবর পাওয়া গেছে। টাকা দাও,নয় মামলায় ঢুকায় দেব বলে উক্ত চৌকিদার মোবাইলে বার বার হুমকি দিচ্ছে বলে অভিযোগ পাওয়া গেছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: