রবিবার, ২০ জুন ২০২১, ০৪:০৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

ইয়াবার ছোঁয়ায় কোটিপতি এখন আঞ্জুমান পাড়ার মঞ্জুর

  • সময় রবিবার, ২১ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩০১ বার পড়া হয়েছে

ক্রাইম প্রতিবেদন।

উখিয়া উপজেলার পালংখালী আনজুমান পাড়ার ইয়াবা সম্রাট ও রোহিঙ্গা অপহরণের মূল হোতা মনজুর আলম সিন্ডিকেট পের সক্রিয় বেশ কিছু দিন আত্মগোপনে গেলে ও এখন প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে। সরকার পূর্ব ঘোষিত মাদক নিমূলের অংশ হিসাবে গত মাসাধিক কাল পূর্বে আইন – শৃংখলা বাহিনীর সাথে কথিত বন্দুক যুদ্ধে চিহ্নিত অনেক ইয়াবা কারবারি নিহত হন, অন্য দিকে বাংলাদেশের সবচাইতে আলোচিত সাংবাদিক আকরাম হোসেনের মধ্যেস্থায় একাংশ টেকনাফ পাইলট উচ্চ বিদ্যালয়ের মাঠে স্বরাষ্ট্র মন্ত্রীর উপস্থিতিতে ইয়াবা কারবারি আত্নসমর্পণ করেন।

বাকি অংশ প্রকৃত মাদক ব্যবসায়ী প্রকাশ্যে দিবালোকে ঘুরে বেড়াচ্ছে আইন -শৃংখলা বাহিনীর নাকের ডগায়, তেমনি একজন উখিয়া উপজেলার পালংখালী ইউনিয়নের ৯ ওয়াড়ের আনজুমান পাড়ার ইয়াবা ডন খ্যাত মৃত আব্দুস সালামের ছেলে মনজুর আলম, সে জিরো থেকে ইয়াবার উছিলায় এখন কোটিপতি । ইয়াবা পাচারের মামলা থেকে রক্ষা এবং ইয়াবার তকমা লোকাতে লাখ টাকার মিশণ নিয়ে পুলিশের নিকট না গেলেও দালাল দারস্থ হয়েছে । ফলে মনজুর আলমের এর নেতৃত্বে রোহিঙ্গা অপহরণ করে টাকা আদায় বিরামহীন ইয়াবা পাচার, চালিয়ে যাচ্ছে ইয়াবা ব্যাবসা,গত কয়েক দিন আগে আরেক ইয়াবা ডন ডাকাত আব্দুল গনি বিজিবির হতে ইয়াবা সহ গ্রেফতার হলেও অধরা সম্রাট মনজুর। ও ফের সাক্রিয় হয়ে উঠেছে পুরোনো কায়দায় কৌশলে আইন শৃংখলা বাহিনীর নজরদারী ফাঁকি দিয়ে ব্যবসার ধরণ পাল্টিয়ে খুব সহজে ইয়াবা ব্যবসা করে আসছে।

একেক সময় একেক রকম ইয়াবা পাচারের পদ্ধতি ব্যবহার করে সারাদেশে ইয়াবা পাঠাচ্ছে। সে ১৪-১৫ ক্যাম্পের রোহিঙ্গা সহ স্থানীয় ইয়াবা গডফাদারদের সাথে গড়ে তুলেছে ইয়াবা ব্যবসাও অপহরণ সিন্ডিকেট। স্থানীয় প্রভাবশালী মহলের চত্র ছায়ায় থেকে সরকার বিরোধী কর্মকান্ড চালিয়ে যাচ্ছে মনজুর আলম সে স্থানীয় ওয়াড় যুবদলের নেতা। গত কয়েক দিন অগে আন-অফিসিয়াল এক গোয়েন্দা সংস্থার তদন্ত রিপোটে দেখা যায়,মনজুর আলম কয়েক বছরে অনেক অবৈধ সম্পদের হিসাব রিপোটে দেখা যায় পালংখালী মোচার খোলা এলাকায় ২০ লক্ষ টাকা দিয়ে ঘর বিটা ও চাষি জমি ক্রয়, জামতলিও ঘর বিটা ক্রয়, আল-আরফা ইসলামি ব্যাংকের কোটবাজার শাখার পিক্স ডিপোজিট ৫০ লক্ষ টাকা, সম্প্রতি সময়ে ঘটনা তাহার ইয়াবা নিয়ে চট্টগ্রাম আটক হয়েছিল হামিদ মেম্বার এর ভাই জামাল তাহার রয়েছে আরো নামে বেনামে অবৈধ সম্পদের অজনা রয়েছে তিনি বলেন তদন্ত চলমান সে একজন চাষি পরিবারের ছেলে। এক সময়ের জেলে মনজুর ইয়াবা ব্যবসা করে কোটিপতি বনেছে , সে এখন লাখ টাকা দামের বাইক গাড়িদিয়ে করে চলাফেরা করে, সচেতন মহলের দাবী এইসব অবৈধ ইয়াবা ব্যবসায়ীর বিরুদ্ধে প্রশাসনের আরো কঠোর নজরদারী প্রয়োজন, স্থানীয়দের দাবী এইসব ইয়াবা গডফাদারকে আইনের আওতায় না আনলে মাদক নির্মূল সম্ভব নয়।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: