রবিবার, ০৫ ডিসেম্বর ২০২১, ০৪:২৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

সিলেটে শ্রমিক-পুলিশ সংঘর্ষ : মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় অবরোধ

  • সময় বুধবার, ১৭ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ১৭৬ বার পড়া হয়েছে

সিলেট নগরীর চৌহাট্টায় সিলেট সিটি কর্পোরেশনের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষের ঘটনায় চলছে মোড়ে মোড়ে অবরোধ। বুধবার (১৭ ডিসেম্বর) বেলা ১ টার দিকে চৌহাট্টায় অবৈধ মাইক্রোবাস স্ট্যান্ড উচ্ছেদকে কেন্দ্র করে এ সংঘর্ষ তৈরি হলে শ্রমিকরা ঢাকা-সিলেট মহাসড়কের বিভিন্ন জায়গায় পরিবহন অবরোধ করেছে।

পরিবহন শ্রমিকরা মহাসড়কের শেরপুর, গোয়ালাবাজার, তাজপুর, রশিদপুরসহ বিভিন্ন জায়গায় হঠাৎ করে পরিবহন অবরোধ শুরু করলে শতশত যান আটকা পড়ে। দুরপাল্লার যাত্রী, রোগীসহ ভোগান্তিতে নাজেহাল হচ্ছেন সাধারণ মানুষ। অবরোধের পাশাপাশি শ্রমিকরা বিক্ষোভ প্রদর্শন কর।

এর আগে দুপুরে চৌহাট্টা এলাকায় স্যান্ড উচ্ছেদ করতে যান সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী ও সিসিকের কর্মকর্তা-কর্মচারীরা। এসময় মেয়রের সাথে একল ট্রাফিক পুলিশ উপস্থত ছিলেন। শ্রমিকরা অবৈধ ভাবে দখল করে রাখা স্ট্যান্ড না ছাড়লে সিসিকের পক্ষ থেকে উচ্ছেদ অভিযান শুরু করলে লাঠিসোঁটা নিয়ে হামলা চালান শ্রিমকরা। শুরু হয় ইটপাটকেল নিক্ষেপ। এসময় রণক্ষেত্রের পরিণত হয় আশপাশের এলাকা। আতঙ্কে দোকানপাট বন্ধ করে দেন ব্যবসায়ীরা। তাতক্ষনিক ঘটনাস্থলে উপস্থিত হয় সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশ। এসময় পুলিশের সাথেও চলে সংঘর্ষ শ্রমিকদের সংঘর্ষ। পরে প্রায় ঘন্টাখানেক পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রনে নিয়ন্ত্রণে আসে।

এদিকে সংঘর্ষ চলাকালে আগ্নেয়াস্ত্রসহ এক যুবকে আটক করে পুলিশ। আটক যুবক তার নাম ফাহাদ বলে জানায়। এমনকি সে নগরীর পীর মহল্লা এলাকার বাসিন্দা বলেও জানায়। এসময় বেশ কয়েকটি গাড়ি ভাংচুর হয়। ভাংচুর হওয়া এসব গাড়ি হেফাজতে নিয়েছে পুলিশ।

অপরদিকে সিসিক মেয়র আরিফুল হক চৌধুরী সাংবাদিকদের জানান, আমরা দীর্ঘদিন থেকে চেষ্টা করছি অবৈধ ভাবে দখল করা স্ট্যান্ডটি উচ্ছেদ করতে। তারা চৌহাট্টা-আম্বরখানা সড়কের পাশ দখল করে রাখার কারণে গুরুত্বপূর্ণ এ সড়কটিতে যানজট লেগেই থাকে। আজ যখন উচ্ছেদ করতে আসি তখন শ্রমিকরা তাদের স্ট্যান্ডের জায়গা দিতে বলেন। কিন্তু আমাদের কথা হলো এখানে সকল গাড়ি প্রাইভেট পারমিট নিয়ে পরিবহণ ব্যবসা করছে। পরে তাদের কথা না মানায় তারা হামলা চালায়।

আর সিলেট জেলা সড়ক পরিবহণ শ্রমিক ইউনিয়নের সাধারণ সম্পাদক আব্দুল মুহিত জানান, নগরীর সকল মোড়ে অবরোধ চলছে। যতক্ষণ না সিসিক মেয়রের পদত্যাগ করছেন ও ট্রাফিক পুলিশের ডিসির অপসারণ না হচ্ছে ততক্ষণ অবরোধ চলবে।

আব্দুল মুহিত অভিযোগ করে বলেন, আমাদের শ্রমিকদের মারধর করা হয়েছে।গাড়ি ভাংচুর করা হয়েছে। তাই আমরা মেয়রের পদত্যাগ চাই একই সাথে ট্রাফিক পুলিশের ডিসির অপসারণ চাই।

তবে এ প্রতিবেদন লেখা পর্যন্ত চৌহাট্টায় জান চলাচল স্বাভাবিক রয়েছে। দীর্ঘ চেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এনেছে পুলিশ। তবে এখনো উত্তেজনা বিরাজ করছে। আর যে কোন ধরণের পরিস্থিতি মোকাবেলায় প্রস্তুত রয়েছে প্রশাসন।

এদিকে চৌহাট্টায় গাড়ি চলাচল স্বাভাবিক করার পর সিলেট মেট্রোপলিটন পুলিশের অতিরিক্ত কমিশনার (উত্তর) আজবাহার আলী শেখ সাংবাদিকদের বলেন, আমরা খবর পাই সিসিকের সাথে শ্রমিকদের সংঘর্ষ হচ্ছে। খবর পাওয়ার সাথে সাথে আমরা ঘটনাস্থলে এসে উপস্থিত হয়ে দীর্ঘ চেষ্টার পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে আনি। ঘটনাস্থল থেকে আগ্নেয়াস্ত্রসহ একজনকে আটক করা হতেছে। তার কাছ থেকে ৩ রাউন্ড গুলি উদ্ধার করা হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: