বুধবার, ২২ সেপ্টেম্বর ২০২১, ০৫:৫৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে আবারো জমি দখল করল ভূমিদস্যু ইয়াবা আমিন,

  • সময় শনিবার, ১৩ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৬৯০ বার পড়া হয়েছে

হামলার শিকার জমির প্রকৃত মালিক ১৪৪ ধারা ভঙ্গ করে আবারো জমি দখল করল ভূমিদস্যু ইয়াবা আমিন, হামলার শিকার জমির মালিক কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংজা ইউনিয়নের দরগাহ পাড়া গ্রামের আব্দু শুক্কুরের পুত্র আমিনুল হক আমিন প্রকাশ ইয়াবা আমিনের ভূমিদস্যুতা ও দখলবাজিতে অতিষ্ঠ এলাকার সাধারণ মানুষ। এমন কোন অপকর্ম নাই যেটি আমিন ও তার ভাইয়েরা করে নাই। আজ সকাল ৮ টায় দরগাহ পাড়ার মৃত ছৈয়দ আহমেদর মালিকানাধীন খরুলিয়া মৌজার ক্ষেতের জমি ১৪৪ ধারা ভেঙে আদালতের আদেশ অমান্য করে দখল করতে যায় আমিন ও তার ভাই সহ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা। এসময় মৃত ছৈয়দ আহমেদর ছেলেরা বাধা দিলে আমিন ও তার ভাই সহ ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসীরা তাদের ওপর হামলা চালিয়ে কুপিয়ে মারাত্নক আহত করে জোর করে অবৈধভাবে তাদের জমিটি দখল করে নেয়। তাদের হামলায় আহত মৃত ছৈয়দ আহমেদর ভাতিজা আব্দুল আজিজের অবস্থা আশংকাজনক। সূত্রে জানা যায়, একসময়কার শিবির ক্যাডার আমিন হুন্ডির টাকায় ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সাধারণ সম্পাদকের পদ ভাগিয়ে নেয় । নিজেকে কক্সবাজার সদর-রামু আসনের সাংসদ সাইমুম সরওয়ার কমল এমপি ও ঝিলংজা ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান টিপু সুলতানের ঘনিষ্ঠ আস্থাভাজন দাবী করে এলাকার সাধারণ মানুষদের জিম্মি করে রাখে। ইয়াবা, হুন্ডি ব্যাবসা, মানব পাচার, রোহিঙ্গাদের পার্সপোর্ট তৈরি করে দেওয়া, জমি দখলবাজি, বাঁকখালী নদী থেকে ড্রোজার দিয়ে অবৈধভাবে বালি উত্তোলন, ফসলি জমি কেটে মাটি বিক্রি সহ এমন কোন অপকর্ম নাই আমিন ও তার ভাইয়েরা করে নাই। তার ভাই মুজিবের ইয়াবা ব্যাবসার ধারাবাহিক প্রতিবেদন প্রকাশ করেছিল বেসরকারি টিভি চ্যানেল এন টিভি। তার আরেক ভাই নুরুল আলমের বিরুদ্ধে একই এলাকার নুরুল কবিরের জমি দখলের অভিযোগে বেশ কয়েকটি মামলা হয়। তার ছোট ভাই রুবেল কয়েকদিন আগে ইয়াবা সেবন করে মাতাল হয়ে দরগাহ পাড়ার ছালাম মিয়া বাবুলের ফসলের ক্ষেত ও চৌকিঘর ভাঙচুর করে এবং প্রতিবাদ করায় তার ছোট ছেলে মামুনকে মারধর করে। যেটি কক্সবাজার সদর মডেল থানায় অভিযোগ হিসেবে রুজু করা হয়। তার আরেক ভাই খোরশেদ জোর করে দরগাহ পাড়ার মৃত নুরুল হকের ছেলে জিসানের দোকান দখল করে ইয়াবা ব্যাবসা চালিয়ে যাচ্ছে। আমিনের বড় ভাই আজিজুল হক অবৈধভাবে মানব পাচার, হুন্ডি ব্যাবসা এবং রোহিঙ্গাদের বাংলাদেশি পার্সপোর্ট করে দিত। এলাকাবাসী জানান, আমিন ও তার ভাইদের বিরুদ্ধে কেউ প্রতিবাদ করলে তাদের ওপর মামলা – হামলা করা হয়। এলাকার লোকজনদের বলে বেড়ায় তাদের অবৈধ টাকা দিয়ে নাকি ডিসি, এসপি, থানা, টিএনও কে ম্যানেজ করে থাকে । তাদের হাত থেকে রক্ষা পেতে এলাকাবাসী সংশ্লিষ্ট প্রশাসনের সহযোগিতা কামনা করছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: