বৃহস্পতিবার, ১৩ মে ২০২১, ০৭:১২ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

পালংখালী ফাহিম এর দৃশ্যমান আয়ের উৎস কি বিমানে যাতায়াত করে প্রতিনিয়ত

  • সময় মঙ্গলবার, ৯ ফেব্রুয়ারী, ২০২১
  • ৩৩৬ বার পড়া হয়েছে

ক্রাইম প্রতিবেদন আলোকিত উখিয়া।

সম্প্রতি উখিয়ার পালংখালী ইউনিয়নের থাইংখালী পালংখালী, আঞ্জুমান পাড়া সীমান্ত এলাকা দিয়ে ব্যাপক হারে বেড়েছে ইয়াবা পাচার। রাতের আধারে রোহিঙ্গাদের মাধ্যমে ইয়াবার চালান নিয়ে আসছে থাইংখালী উত্তর রহমতের বিল আঞ্জুমান পাড়া গ্রামে একটি শক্তিশালী ইয়াবা ও মাদক কারবারি সিন্ডিকেট।

সম্প্রতি সময়ে মাদক কারবারি গুলো প্রশাসন কে প্রশ্নবিদ্ধ করে তুলেছেন প্রতিদিন আটক হচ্ছে বড় ছোট ইয়াবা কারবারি গুলো এরপরে ও থেমে নেই ইয়াবা কারবারিরা পালংখালী বটতলী এলাকার মোহাম্মদ আলম এর পুত্র ফাহিম উদ্দিন ইয়াবার ছোঁয়ায় এখন চলাচল ভিন্ন রূপের রুপান্তিত হয়েছে যে কিনা রিকশা ভাড়া যোগাড় করতে পারতেন না সেই এখন চলাচল করে এয়ারলাইনসে স্হানীয় সাধারণ মানুষ হতবাক তাহার ফেইসবুক স্টাটাস দেখে, কিন্তু এসবের কারণ কি? খুব অল্প দ্বীনের মধ্যে এমন দৃশ্যমান আয়ের উৎস কি, এমন এক রাজার হাত ধরেছেন তিনি সেই আর কেউ নয় থাইংখালী কলিমু উল্লাহ বলির পুত্র রহমতের বিল এলাকার সবচেয়ে ইয়াবা গডফাদার কামাল উদ্দিন তাহার সঙ্গে ঢাকা যাতায়াত তার সঙ্গে একি ফ্লাইট বিমানে যাতায়াত সাপ্তাহিক সফর শেষে আবারও বিমানে চড়ে কক্সবাজার, সব কিছুর মূল ইয়াবার ছোঁয়ায় কোটিপতি হতে কামাল উদ্দিন এর সাথে পুরনো ইয়াবা লেনদেন হিসেবে করতে ঢাকা গিয়েছেন এই ফাহিম, সম্প্রতি সময়ে তাহার বিরুদ্ধে কয়েকটি পেইজ বুক আইডি থেকে সেই ইয়াবা গডফাদার বলে পোস্ট ও আপলোড করেছেন আফরোজা নামে একটি আইডি থেকে।

কিন্তু ফাহিম এসবের তোয়াক্কা করে না কারণ তিনি রয়েছে রাজনৈতিক এর সাথে জড়িত বেশ কিছু দিন আগে তাহার নিজের ফেইসবুক পেইজ থেকে নিজের কুকর্মের কয়েকটি ছবি ভাইরাল হয়েছিল উলঙ্গ নারী নিয়ে টাকার বাজেট হেরে যায় নারীরা ও স্হানীয় সাধারণ মানুষের দাবী আইনের আওতায় আনা হোক তাহাকে গ্রেফতারে বাহির হয়ে আসবে ইয়াবা গডফাদার এর আস্তানা।

সরজমিন সীমান্ত এলাকা ঘুরে বিভিন্ন লোকজনের সাথে কথা বলে জানা গেছে, ২০১৭ সালে রোহিঙ্গা আসার পর কিছুদিন সীমান্ত দিয়ে ইয়াবা বন্ধ ছিল। কিন্তু সম্প্রতি পুরোদমে আবারো এই ব্যবসা শুরু করেছে পূর্বের চিহ্নিত ইয়াবা ও মাদক কারবারিরা। সীমান্তরক্ষী বাহিনী গুটি কয়েক ইয়াবার চালান আটক করতে সক্ষম হলেও বৃহৎ চালান গুলো সীমান্ত দিয়ে ক্যাম্পে ঢুকে পড়ছে। পরে সুযোগ বুঝে পাচারকারীরা তা দেশের বিভিন্ন স্থানে পাচার করে থাকে বলে অভিমত তাদের।

নির্ভরযোগ্য সুত্রে জানা গেছে, ইয়াবা গডফাদাররা নিরাপদ স্থান হিসেবে রহমতেরবিল, আঞ্জুমান পাড়া, ঘুমধুম সীমান্ত এলাকাকে বেঁচে নিয়েছে ফাহিম আর কামাল উদ্দিন।

এই বিষয়ে উখিয়া থানা অফিসার ইনচার্জ আহমেদ সজ্জুর মোরশেদ জানিয়েছেন ইয়াবা কারবারি কামাল উদ্দিন এর কথা আমি শুনেছি তার সঙ্গে যে-ই থাকুক কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না আমরা ইতি মধ্যে ভিন্ন যায়গাতে বলে যাচ্ছি মাদক কারবারি যে-ই হোক আইনের আওতায় আনা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: