সোমবার, ০১ মার্চ ২০২১, ০৪:১০ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ায় আপনাকে স্বাগতম

ধরা হচ্ছে ইয়াবা রয়ে যাচ্ছে মূল ইয়াবার গডফাদার থেমে নেই ইয়াবা পাচার

  • সময় সোমবার, ১৮ জানুয়ারী, ২০২১
  • ২৭৮ বার পড়া হয়েছে

ক্রাইম প্রতিবেদন আলোকিত উখিয়া।

কক্সবাজার উখিয়া উপজেলার পালংখালী বটতলী এলাকার আঞ্জুমান পাড়ার মিজান, কামাল র‍্যাবের এর হাতে গত ১৩ তারিখ দশ হাজার ইয়াবা নিয়ে আটক হলেও ধরা ছোঁয়ার বাহির মূল ইয়াবার গডফাদার আঞ্জুমান পাড়ার ছৈয়দুল বশর তাহার বিরুদ্ধে রয়েছে অহরহ অভিযোগ ইয়াবার ছোঁয়ায় কোটিপতি হওয়া বেশ কয়েকজনের মধ্যে ছৈয়দুল বশর ও রয়েছেন।

বটতলী এলাকার আঞ্জুমান পাড়া সীমান্ত ভর্তি এলাকা হওয়াই হটাৎ আঙুল ফুলে কলাগাছ হয়েছে এই ছৈয়দুল বশর,র‍্যাব এর হাতে আটক হওয়া মিজান এর পিতা বশির আহমেদ জানান তাহার ছেলে কে তিনি টাকার লোভে ফেলে এমন অপরাধ কাজে লিপ্ত করেছেন, তবে অনুসন্ধানে উঠে আসে বশির আহমেদ ছেলে মিজান, আলী আহমেদ এর ছেলে কামাল হোসেন দীর্ঘদিন ধরে এ-সব কর্ম ইয়াবা বহন করে আসছে এতদিন ছৈয়েদুল বশর এবং তাদের ভয়ে মুখ খুলতে রাজি হননি, তাদের রয়েছে অঢেল সম্পদের মালিক হয়েছে ইয়াবার চালান বহন করে, গাড়ি বাড়ি সব কিছুর মালিক এখন তাহারা তাদের রয়েছে ইয়াবা বহনের নিজস্ব সিএনজি,

কক্সবাজারের সীমান্ত উপজেলা উখিয়া এখন মাদক ও স্বর্ণের চালান এর স্বর্গরাজ্যে পরিনত হয়েছে। একদিনেও প্রায় বিজিবি, র‍্যাব, পুলিশ, কোস্ট গার্ডের হাতে ১০ লাখের উপরে ইয়াবা আটক হচ্ছে নজর বিহীন ঘটনা, ডিসেম্বর মাসে নতুন করে রোহিঙ্গা মাদক কারবারি বন্দুকযুদ্ধে নিহত হলেও এবিষয়ে মাদক কারবারিদের কোনো আতংক নেই। ইয়াবার চালান আটক ও মামলা চলমান থাকলেও থেমে নেই ইয়াবা পাচার।

ফলে উদ্বেগ উৎকন্ঠার মাঝে কাটছে উখিয়া, থাইংখালী, পালংখালীর মানুষের জীবন। তবে সীমান্ত উপজেলার পুলিশ, র‌্যাব, ও বিজিবি বলছে আইনশৃঙ্খলা বাহিনী কঠোর থেকে কঠোরতর অভিযানের কারণে প্রায় ৬০ শতাংশ ইয়াবা পাচার কমে আসছিল। কিন্তু এখন নতুন করে আবার মাথা চড়া দিয়ে উঠেছে ইয়াবা কারবারিরা।

উল্লেখ্য, গত ১৩ জানুয়ারি টিভি টাওয়ার সংলগ্ন এরিয়া থেকে ৯ হাজার ৯০০ ইয়াবা নিয়ে আটক র‍্যাব ১৫ মিজান, কামাল কে তাহারা দীর্ঘদিন ধরে এই ছৈয়দুল বশর এর ইয়াবার চালান বহন করে আসছে বলে স্বীকার ও করে।

র‍্যাব ১৫ সংস্থার নজর রয়েছে এমন একজন গোয়েন্দা কর্মকর্তা জানান, তাদের পরিবারে রয়েছে কয়েকটি ইয়াবা কারবারি সিন্ডিকেট। আমরা তাদের বিরুদ্ধে শীঘ্রই ব্যবস্থা নেওয়া হবে আশা করছি।

কক্সবাজার জেলা এসপি হাসানুজ্জামান জানান, ইয়াবা কারবারি যতই ক্ষমতাধর হোন কাউকে ছাড় দেওয়া হবে না তাদের শিকড় পর্যন্ত উপড়ে ফেলা হবে বলে জানান।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: