সোমবার, ২৩ নভেম্বর ২০২০, ১০:৩২ অপরাহ্ন

কক্সবাজার বাস টার্মিনালে ইয়াবার ত্রাস বড়’দা !

  • সময় রবিবার, ২২ নভেম্বর, ২০২০
  • ৩২১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদন:

মরণনেশা ইয়াবার স্বর্গরাজ্য দ্বিতীয় টেকনাফ খ্যত কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালস্থ পূর্ব লাহার পাড়া, পশ্চিম লাহার পাড়া ও ইসলামাবাদ। কক্সবাজার সদরের আলোচিত বেশির ভাগ ইয়াবা ব্যবসায়ির বসবাস অত্র এলাকায় হওয়ায় এলাকার প্রায় পরিবারে সদস্যরা জড়িয়ে পড়ছে ইয়াবা ব্যবসায়। সম্প্রতি মেজর সিনহা হত্যা কান্ডের পর থেকে আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান শিথিল হওয়ায় কক্সবাজারের বিভিন্ন পয়েন্টে মাদক ব্যবসায়ি ও সন্ত্রাসীরা ফের সক্রিয় হয়ে উঠেছে, এতে আইনশৃঙ্খলার অবনতির পাশাপাশি জমজমাট ভাবে চলছে মরণনেশা ইয়াবা ব্যবসা। স্থবিরতা কাটিয়ে মাদক ব্যবসায়ীরা স্বস্তি ফিরে পেয়েছে, আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযানের শিথিলতাকে পুজি করে জেল থেকে বের হয়ে আবার মরণনেশা ইয়াবা ব্যবসা চাঙ্গা করে তুলেছেন বাস টার্মিনালের আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা।

আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা টেকনাফের বাসিন্দা হলেও বর্তমানে সে কক্সবাজার সদরের ঝিলংজা ইউনিয়নের ১ নং ওয়ার্ড ইসলামাবাদ এলাকার অঘোষিত বাদশা ! যাকে সকলে বড়’দা নামেই চিনে।

খোঁজ নিয়ে জানাগেছে, আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা টেকনাফ সদর ইউনিয়নের কচুবনিয়া এলাকার মৃত নুর আহাম্মদ প্রকাশ শিয়াইল্লার পুত্র। সে বিগত ৬/৭ বছর আগে ইয়াবা ব্যবসার টাকার জন্য ঝগড়ার এক পর্যায়ে আপন সম্মন্ধিকে খুন করে এককাপড়ে চলে আসেন কক্সবাজার।

আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা কক্সবাজার আসার পর ভবঘুরে থাকতে থাকতে পরিচয় হয় তৎসময়কার ঠুকাই প্রকৃতির কিশোর গ্যং এর সদস্যদের সাথে। ঠুকাইদের সাথে মিসে সে একসময় টার্মিনাল, কলাতলি সহ শহরের বিভিন্ন স্পটে ছিনতাই, চুরি সহ নানা অপরাধে জড়িয়ে যায়। আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা তৎসময় চুরি ছিনতাইয়ের অপরাধের সাথে সাথে শহরের ও টার্মিনাল এলাকার শীর্ষ সন্ত্রাসীদের নিয়ে গড়ে তুলেছিলেন এক সিন্ডিকেট। যে সিন্ডিকেটের সদস্যদের নিয়ে টেকনাফ থেকে আগত ইয়াবা ব্যবসায়ীদের ইয়াবার চালান ছিনতাই করত ও যাদের কাছে ইয়াবা পাওয়া যেতোনা তাদেরকে ইসলামাবাদ এর ভিতরে পাহাড়ে নিয়ে গিয়ে বেধে নির্যাতন করত এবং মুক্তিপন আদায় করত।

দুয়েক বছর ইয়াবা ছিনতাই ও অপহরণ করে আয় করলেও কক্সবাজার ও রাজধানী ঢাকার বেশ কিছু ইয়াবা ব্যবসায়ীর সাথে পরিচয় হলে ঠুকাইগিরি ছেড়ে দিয়ে হয়ে যায় বড় মানের ইয়াবা ব্যবসায়ী। টার্মিনাল এলাকায় জনশ্রুতি আছে টেকনাফের ছেলে হওয়াতে খুব অল্প সময়ে বড় মাপের ইয়াবা ব্যবসায়ী হয়ে যায় এই বড়’দা।

আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা বেশ কয়েকবার ইয়াবা সহ আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হয়ে জেল হাজতে গেলেও ইয়াবার কালো টাকার প্রভাবে জামিনে বের হয়ে আসেন। আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর অভিযান যখন সচল ছিল কক্সবাজার সদর মডেল থানার একজন প্রভাবশালী সোর্স এর মাধ্যমে সম্প্রতি বিদায়ী কিছু অসাধু অফিসারের সাথে পরিচয় হয়ে তাদের সাথে কাজ করে এলাকায় পুলিশের সোর্স পরিচয়ে পুলিশের মেরে দেওয়া ইয়াবা বিক্রির নাম দিয়ে ইসলামাবাদে একপ্রকার প্রকাশ্যে ইয়াবা বিক্রি করত। কক্সবাজার পুলিশের সাথে সখ্যতার কারনে দীর্ঘ সময় আরামে ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে গেলেও এই বছরের প্রথমের দিকে রাজধানী ঢাকায় ইয়াবা বিক্রি করতে গেলে ইয়াবা সহ আটক হয়ে কারাবাস করে মাস তিনেক আগে জামিনে মুক্ত হয়ে আসেন।

আবুল কালাম প্রকাশ বড়’দা ৬/৭ বছর আগে এক কাপড়ে কক্সবাজারে আসলেও তার এখন অনেক সম্পদ, ইসলামাবাদে জমি কিনে করেছে বাড়ি, রয়েছে গাড়িও! বাড়ি ভিটা ছাড়াও অনেক জমির মালিক সে, এ ছাড়াও ইসলামাদসহ কক্সবাজার শহর জোড়ে গড়ে তুলেছে বিশাল এক সম্রাজ্য। ইসলামাবাদে বসেই চালাই তার সেই সম্রাজ্য, ইসলামাদে বানিয়েছে অনেক বিশ্বস্ত পরিবার যে পরিবার গুলাতে জমা রাখা হয় তার ইয়াবার চালান এবং তাদের কে দিয়ে পাচার করা হয় সেই ইয়াবা।

এই বড়’দা র বিষয়ে ব্যাপক অনুসন্ধান চালাচ্ছে আলোকিত উখিয়া পত্রিকার ক্রাইম টিম , অনুসন্ধানী প্রতিবেদন এর জন্য নিয়মিত চোখ রাখুন দৈনিক আলোকিত উখিয়ায়…

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: