বুধবার, ২৫ নভেম্বর ২০২০, ০২:০২ পূর্বাহ্ন

কিছুতেই প্রতিরোধ করা যাচ্ছেনা টুকাই কবির ও তার ভাই কোরবানের ইয়াবা ব্যবসা

  • সময় সোমবার, ২৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৩২৩ বার পড়া হয়েছে

ফার্মেসির ঔষুধের মত করে বিক্রি হচ্ছে ইয়াবা!

ক্রাইম প্রতিবেদনঃ
বর্তমানে কক্সবাজারে আইনশৃংখলা বাহিনীর মাদক ও সন্ত্রাস বিরুধী অভিযান বন্ধ থাকায় মাদক বেপারী ও সন্ত্রাসীদের দৌরাত্ত বেড়েগেছে কল্পনাতীত হারে। আইনশৃংখলা বাহিনীর অভিযানের সময় তালিকা ভুক্ত যে সকল ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসী এলাকার বাহিরে চলে গিয়ে গা-ডাকা দিয়েছিল তারা এখন প্রকাশ্যে ঘুরে বেড়াচ্ছে এবং তাদের ইয়াবা ব্যবসা সহ সকল ধরনের অপকর্ম চালিয়ে যাচ্ছে। তেমনি ভাবে আবারও বেপরোয়া ভাবে মরন ব্যধি ইয়াবা ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংজা পশ্চিম লাহার পাড়ার শীর্ষ ইয়াবা ব্যবসায়ী টুকাই কবির ও তার ভাই কোরবান আলি।

টুকাই কবির ও কোরবান আলি দুজনেই কক্সবাজার সদর উপজেলার ঝিলংজা পশ্চিম লাহার পাড়ার বাসিন্ধা কক্সবাজার সদর থানার শীর্ষ দালাল ও ইয়াবা ব্যবসায়ী লাল মোহাম্মদের নাতি নামে পরিচিত। কবির ৫/৭ বছর আগে কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাসটার্মিনালে গাড়ি পরিষ্কারের কাজ করে টুকাই কবির হিসেবে প্রতিষ্টিত হলেও এখন বিপুল পরিমান নগদ টাকা ও সম্পদের মালিক। তার ও তার ছোট ভাইয়ের পশ্চিম লাহার পাড়ায় রয়েছে ৭ টি জায়গা ও দুইটি বাড়ী এবং রামু উপজেলার জোয়ারিয়ানালা এলাকায় বিশাল জায়গা ক্রয় করে বানিয়েছে বাগান বাড়ী। তাদের রয়েছে টেকনাফ কক্সবাজার লাইনের কয়েকটি মিনি বাস, ছাড়পোকা গাড়ী ও টেকনাফ কক্সবাজার লাইনের নিনি কার গাড়ী। এই সব গাড়ী করে সীমান্ত উপজেলা টেকনাফ থেকে মরন নেশা ইয়াবা বহন করে এনে কক্সবাজার সহ সারা দেশে ব্যবসার উদ্দেশ্যে পাচার করেন। টুকাই কবির কিছুটা গা ডাকা দিয়ে থাকলেও এখন প্রকাশ্যে থেকে ইয়াবার ব্যবসা চালিয়ে যাচ্ছে তার ছোট ভাই কোরবান আলি।
পশ্চিম লাহার পাড়ার প্রবীন মুরুব্বী মোহাম্মদ হোছন জানান, ইতি পুর্বে তারা দুই ভাই বহুবার আইনশৃনংখলা বাহিনীর কাছে ইয়াবা সহ গ্রেপ্তার হলেও ইয়াবার কালো টাকার প্রভাবে আইনের ফাকফোখর থেকে বেরিয়ে আসেন এবং পুনরায় ইয়াবা ব্যবসা চালু করেন। কিছুতেই প্রতিরোধ করা যাচ্ছে না।

সম্প্রতি জেল ফেরত একজন ইয়াবা ব্যবসায়ী জানান টুকাই কবির ও কোরবান আলীর ইয়াবা ব্যবসা এখন হরদমে চলতেছে, ফার্মেসিতে ঔষধ বিক্রির মত করে প্রায় প্রকাশ্যে বিক্রি করতেছে মরণ নেশা ইয়াবা।
টুকাই কবির ও কোরবান আলির ইয়াবা ব্যবসা সম্পর্কে জানতে চাইলে কক্সবাজার জেলা পুলিশের এক কর্মকর্তা জানান আমরা বিট পুলিশিং কার্যক্রমের মাধ্যমে সকল ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সকল প্রকার সন্ত্রসীর খোজ নিয়ে তালিকা করা হচ্ছে, অল্প কিছুদিনের মধ্যে অভিযান পরিচালনা করে সকল ইয়াবা ব্যবসায়ী ও সন্ত্রাসীদের কে আইনের আওতায় আনা হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: