মঙ্গলবার, ২৭ অক্টোবর ২০২০, ০৬:০২ অপরাহ্ন

জালাল সওদাগরের ইয়াবা কারবার থেমে নেই গ্রেফতার জরুরী

  • সময় রবিবার, ১৮ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৪০ বার পড়া হয়েছে

সদর ক্রাইম প্রতিনিধি::
কক্সবাজার ঝিলংজা ইউনিয়নের ১নং ওয়ার্ডের পশ্চিম লার পাড়া বাস টার্মিনাল এলাকার চিহ্নিত ইয়াবা কারবারি স্থান পরিবর্তন করে পিএমখালী ইউনিয়নের উত্তর নোয়া পাড়া এলাকায় মেয়ের জামাইয়ের এলাকায় আশ্রয় নিয়ে বিভিন্ন বৈধ ব্যবসার আড়ালে মরন নেশা ইয়াবা কারবার চালিয়ে যাবার গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে।

গত কোরবানের আগে তার বড় ছেলে রানা ইয়াবাসহ কক্সবাজার সদর মডেল থানা পুলিশের হাতে আটক হয়ে কক্সবাজার জেলা কারাগারে বন্দি আছে বলে সুত্রে জানাযায়। শ্যালক শফিক, বৈমাত্রীক ভাই নুরুল আবছার, বিভিন্ন ব্যবসার আড়ালে মুলত মরন নেশা ইয়াবা কারবারের সাথেই জড়িত। এই জালাল সওদাগরের পরিবার ভিত্তিক দেশব্যাপী একটি ইয়াবা সিন্ডিকেট রয়েছে। এই সিন্ডিকেটের মাধ্যমে বর্তমানে ইয়াবার রমরমা কারবার চালিয়ে যাচ্ছে।

এক সময় জালাল সওদাগর কক্সবাজার পৌর শহরের আলীর জাঁহালে ফলের ও মুরগীর ব্যবসা করত। সে ব্যবসার আড়ালে গোপনে ইয়াবা কারবার চালাতে গিয়ে তার সিন্ডিকেটের একজন সদস্য ইয়াবা সহ চট্টগ্রামে পুলিশের হাতে গ্রেফতার হলে, সেই সুত্র ধরে কক্সবাজার সদর মডেল পুলিশ জালাল সওদাগরকে গ্রেফতার করতে একাধিক বার আলীর জাঁহাল ষ্টেশনে তার ব্যবসায়ীক প্রতিষ্ঠানে অভিযান পরিচালনা করে। কিন্তু সুচতুর ইয়াবা কারবারি জালালকে বার বার গ্রেফতারের চেষ্টা করার পরও পুলিশ ধরতে পারেনি। কারণ সদর মডেল থানার তৎকালীন কিছু সোর্স ইয়াবা কারবারি জালাল সওদাগরের কাছ থেকে মাসিক মোটা অংকের টাকা পেত বলে গোপন সুত্রে খবর পাওয়া যায়। যার জন্য একের পর এক পুলিশি অভিযান চালিয়েও ইয়াবা কারবারি জালাল সওদাগরকে আটক করতে ব্যর্থ হয়।

একের পর এক পুলিশি অভিযান চলতে থাকায় অবস্থার বেগতিক হওয়ার ফলে এক সময় আলীর জাঁহাল স্টেশন থেকে সমস্ত ব্যবসা গুটিয়ে নিয়ে মেয়ের জামাইর বাড়ী পিএমখালী এলাকার উত্তর নোয়া পাড়াতে গিয়ে আত্মগোপন করে থাকে। সেখানে জালাল এন্ড সন্স নামে সাইন বোর্ড টাঙিয়ে বিভিন্ন ব্যবসা প্রতিষ্ঠান খোলে ব্যবসা করে যাচ্ছে। পুলিশ ইয়াবা কারবারি জালাল সওদাগরকে গ্রেফতার করতে পিএমখালী এলাকাতেও একাধিকবার অভিযান চালিয়ে ব্যর্থ হয়েছে সেখানকার বাসিন্দারা আমাদের ক্রাইম ব্রাঞ্চ টিমকে জানিয়েছে ।

কক্সবাজার মেরিন ড্রাইভে শামলা পুরে পুলিশের গুলিতে অবসরপ্রাপ্ত সেনা কর্মকর্তা রাসেদ মোহাম সিনহা নিহত হওয়ার পর জেলা ব্যাপী পুলিশি অভিযান শিথিল হলে আত্মগোপনে থাকা ইয়াবা কারবারি জালাল সওদাগর প্রকাশ্যে চলে আসেন এবং বৈধ ব্যবসার আড়ালে আবারও মরন নেশা ইয়াবা কারবার চালিয়ে যাচ্ছে এমন গুরুতর অভিযোগ পাওয়া গেছে। বর্তমানে এই ইয়াবা কারবারিকে গ্রেফতার করা সময়ের দাবী হয়ে উঠেছে। ইয়াবা কারবারি জালাল সওদাগরের মুঠোফোনে যোগাযোগ করলে তিনি আমাদের ক্রাইম রিপোর্টারকে জানান, তার বিরুদ্ধে আনা অভিযোগ মিথ্যা বলে জানিয়েছেন। সেই আলীর জাঁহাল ষ্টেশন থেকে তার ব্যবসা গুটিয়ে নেওয়ার কথা জিজ্ঞাসা করলে সে কৌশলে এড়িয়ে যায়। তার ছেলেকে কেন গ্রেফতার করা হয়েছে জানতে চাইলে আমাদের প্রতিনিধিকে জানান,তার ছেলে রঙের কাজ করে। কাজ করে বাড়ী ফেরার পথে পুলিশ তার ছেলেকে গ্রেফতার করে ইয়াবা দিয়ে কোর্টে চালান দিয়েছে এমনটাই দাবী করেছেন। তার বিরুদ্ধে একাধিক ইয়াবা মামলা থাকার বিষয়ে জানতে চাইলে তিনি জানান,প্রমাণ থাকলে তার বিরুদ্ধে আইনী ব্যবস্থা নিতে বলেন ।

আমাদের ক্রাইম ব্রাঞ্চের অনুসন্ধানী টিম তার ইয়াবা সাম্রাজ্যের আদ্যপ্রান্ত জানতে, আদালতে এবং সদর মডেল থানায় তথ্য যাচাই করে এবং আলীর জাঁহাল ষ্টেশনের ব্যবসায়ীসহ স্থানীয় সচেতন মহলের কাছ থেকে তথ্য সংগ্রহ করতে গোপনে অনুসন্ধান চালিয়ে যাচ্ছে। অনুসন্ধান পরবর্তী প্রতিবেদন প্রকাশ করা হবে চোখ রাখুন দৈনিক আলোকিত উখিয়া সংবাদ পত্রে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: