রবিবার, ০১ নভেম্বর ২০২০, ০১:৪৫ পূর্বাহ্ন

কিস্তির বই কি জামিনের কাগজ? নাকি ইয়ার মোহাম্মদ পরিবারের ইয়াবা ব্যবসার লাইসেন্স?

  • সময় শুক্রবার, ১৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ১৬৪ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ

কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের বহুল আলোচিত ইয়াবা ব্যবসায়ী ইয়ার মোহাম্মদের ছেলে আজম মিজানের ইয়াবা কারবার কিছুতেই প্রতিরুধ করা যাচ্ছেনা বলে আভিযোগ উঠেছে।

ইয়ার মোহাম্মদের দুই ছেলে আজম মিজান বহুবার আইনশৃঙ্খলা বাহিনীর হাতে আটক হলেও ইয়াবার কালো টাকার প্রভাবে আইনের ফাকফোকর থেকে বেরিয়ে আসে।

অনুসন্ধান করতে গেলে এলাকাবাসী জানান তারা আগে কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনলে খুচরা ইয়াবা বিক্রি করলেও এখন অনেক বড় মাপের ইয়াবা কারবারী। তাদের ইয়াবার ব্যবসা কে ঝামেলা মুক্ত করার জন্য সম্পর্ক গড়ে তুলেছিল সম্প্রতি বিদায় হওয়া কক্সবাজার সদর মডেল থানার কয়েকজন অফিসারের সাথে। এলাকাবাসীর পক্ষ থেকে তাদের ইয়াবার ব্যবসার বিরুধীতা করলে তাদের কে পুলিশ প্রশানের ভয় দেখিয়ে চুপ করে দেওয়া হয়।

এই বিষয়ে পুর্বে বহুল প্রচারিত দৈনিক আলোকিত উকিয়া সহ অন্যান্য প্রিন্ট ও অনলাইনে খবর প্রচারিত হলে তারা বিভিন্ন সমাজ পতি ও মিডিয়া ব্যক্তিত্বের কাছে গিয়ে ইয়ার মোহাম্মদ ও তার বঊয়ের নামে বিভিন্ন এনজিও ও মাল্টিপারপাস ঋণ দাতা সংস্থার ঋণ সংক্রান্ত হিসাবের বই প্রদর্শন করে বলে তারা ঋন নিয়ে ব্যবসা করেন।

অনুসন্ধান করতে গেলে ঋন সংক্রান্ত বিষয়ে জানতে চাইলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একজন তাদের খুব কাছের লোক বলে পরিচয় দিয়ে বলেন এই সব ঋন তিন এগুলা সম্পুর্ন নাটক, আসল কথা হল ইয়াবার ব্যবসা থেকে দায় মুক্তির হাতিয়ার হবে মনে করে প্রতি বছর অনেক টাকা সুদ দিতে হওয়ার শর্তেও তারা এইসব এনজিও সংস্থা থেকে ঋণ গ্রহন করেন। তিনি আরও বলেন ঋণ নিয়ে ব্যাংক একাউন্টে জমা করেন আর দৈনিক ইয়াবা ব্যবসার আয় থেকে সেই ঋনের টাকা পরিশোধ করেন। না হলে দৈনিক যে পরিমান টাকা ঋনের পরিশোধ হিসেবে দিতে হয় সেই পরিমান তাদের দোকানে বিক্রি ও হয় না।

সম্প্রতি অনুসন্ধানে আরও জানাযায় যে ইয়ার মোহাম্মদ ও তার ছেলে আজম এলাকায় পুলিশের সোর্স হিসেবে পরিচয় দেন। এই বিষয়ে পার্শবর্ত্তি এক দোকানদার বলেন সম্প্রতি মেজর সিনহা হত্যার পর কক্সবাজার পুলিশের সমুলে বদলি হওয়ায় পুরাতন পুলিশ সদস্য গন চলে যাওয়ার আগে নবাগত কিছু পুলিশ অফিসার কে ইয়ার মোহাম্মদের দোকানে এনে পরিচয় করায় দিতে দেখা যায়।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: