রবিবার, ২৫ অক্টোবর ২০২০, ০৭:৫৫ পূর্বাহ্ন

ভারুয়া খালীতে চুরির সন্দেহে শারীরিক নির্যাতন

  • সময় শনিবার, ১০ অক্টোবর, ২০২০
  • ২৭১ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক::
কক্সবাজার সদর উপজেলা অন্তর্গত
ভারুয়া খালী সওদাগর পাড়ার বর্তমান ২ নম্বর ওয়ার্ডের
মেম্বার শামসু বাহিনীর হাতে এক কিশোর কে মধ্য যুগীয় কায়দায় শারীরিক নির্যাতন হয়েছে।
ভিক্টিম প্রতিবেদককে জানান, ০৭ অক্টোবর দিবাগত রাত ২০২০ইং রোজ বুধবার রাত ১১ : ৩০ মিনিটের সময় ভারুয়াখালী ২ নম্বর ওয়ার্ডের মেম্বার শামসু অালমের নির্দেশে পর পর তিন বার বাসায় এসে বাড়ির তালা ভাঙ্গচুর করে মোহাম্মদ ইসহাকের (বলি) ছেলে মোঃ রিসাত (১৭) কে , অস্ত্র ধরে তুলে নিয়ে যায় গুরা মিয়ার তিন (৩) ছেলে ১। রহিম উল্লাহ ২। অামান উল্লাহ ৩। সাইফুল, লুলু মাঝির তিন ছেলে ৪,। ফয়েজ ৫। আবু সুফিয়ান ৬। ফয়সাল সহ অারো অনেকে।
নিয়ে যাওয়ার পর রিসাতের মুখে কালো কাপড় বেদে দেয় এবং হাড়ের গিরায় গিরায় লাঠি ও হাতুড়ি দিয়ে আঘাত করা হয়। ক্যাডার বাহিনীর প্রধানের অাদেশ ছিলো মেরে ধুনে ফেলা।
মা রেজিয়া বেগম ও রিশাদের বড় ভাই মো: দিদার যখন জানতে পারে তখন রিশাদকে কোন জায়গায় রাখা হয় ওই জায়গার খবর নিয়ে ঘটনাস্থলে গেলে মাকে ধাক্কা দিয়ে গালাগালি করে তাড়িয়ে দেয় এবং বড় ভাই মো: দিদার কে লাঞ্চিত করে । সন্তানকে মধ্যযুগীয় কায়দায় অন্ধ রুমে কালো কাপড় দিয়ে মুখ বেঁধে রেখে নির্যাতনের কান্নার শব্দ শুনে মা কান্না করতে করতে বেহুঁশ হয়ে যায়। পরে বড় ভাই মো: দিদার কোন উপায় না পেয়ে ৯৯৯ নম্বরে কল দিয়ে প্রশাসন কে জানানোর মাধ্যমে ঈদগাও থানা পুলিশের এসঅাই সামীমের সহায়তায় রিশাদ কে আহত অবস্থায় উদ্ধার করা হয় এবং কক্সবাজার সদর হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় রয়েছে এখনো। এই নির্যাতনের সুষ্ঠু বিচারের দাবির লক্ষ্যে কক্সবাজার সদর থানায় মামলা দায়েরের প্রস্তুতি চলছে বলে জানিয়েছেন রিসাতের মা ও বড় ভাই দিদার ।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: