শনিবার, ২৪ অক্টোবর ২০২০, ১১:৫৪ অপরাহ্ন

যুব সংগঠক নাসরিনের উপর হামলার বিচার দাবিতে মানব বন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন

  • সময় মঙ্গলবার, ৬ অক্টোবর, ২০২০
  • ৪৮ বার পড়া হয়েছে

ঝালকাঠিতে যুব সংগঠক নাসরিন আক্তার সারার ওপর হামলা ও সাইবার অপরাধ সহ সারাদেশে-নারী শিশু নির্যাতন ও ধর্ষন বন্ধের দাবিতে বরিশালে মানব বন্ধন ও সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়েছে। বাংলাদেশ মডেল ইয়ুথ পার্লামেন্ট, ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিস, তারুণ্যের কন্ঠস্বর প্লাটর্ফম ও এনগেজ মেন এন্ড বয়েজ নেটওয়ার্ক বাংলাদেশ’র আয়োজনে সোমবার (৫ সেপ্টেম্বর) বরিশাল অশ্বিনী কুমার হলের সামনে প্রতিবাদী মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়। মানববন্ধনে বিভিন্ন শিশু ও যুব সংগঠনের সদস্যরা প্লাকার্ড হাতে দেশব্যাপি চলমান নারী ও শিশুদের প্রতি সহিংসতা বন্ধে সবাইকে ঐক্যবদ্ধ হওয়ার দৃঢ় আহ্বান জানায়। মানব বন্ধন শেষে এক পদযাত্রা করে বরিশাল রিপোর্টার্স ইউনিটিতে এক সংবাদ সম্মেলন অনুষ্ঠিত হয়।
লিখিত বক্তব্য পাঠ করেন ইয়ুথনেট ফর ক্লাইমেট জাস্টিসের সমন্বয়ক সোহানুর রহমান। তিনি বলেন, দেশের প্রতিটি নারী ও শিশু সহিংসতার ঝুঁকির মধ্যে রয়েছে। নারী ও শিশুর উপর সহিংসতার মাত্রা, ধরণ ও নিষ্ঠুরতা বেড়েছে বহুগুণ। এর মূল কারণ নারীকে মানুষ হিসাবে গণ্য না করার দৃষ্টিভঙ্গী ও আচরণ। নারীবিদ্বেষী দৃষ্টিভঙ্গী ও সংস্কৃতি একদিকে নারীকে নিপীড়ণ করার প্রবণতা তৈরি করে, অন্যদিকে নিপীড়িত নারীকেই দোষারোপ করে। দোষীরা বিনা বিচারে পার পেয়ে যায় বা বিচারের আওতায়ই আসে না। অন্যদিকে মামলার দীর্ঘসূত্রিতা ন্যায়বিচার প্রাপ্তিকে অনিশ্চিত করে। বক্তারা আরো বলেন, ঝালকাঠিতে যুব সংগঠক নাসরীন আক্তার সারাকে খুনের উদ্দ্যেশে বাসায় হামলা করে আহত করা হয়েছে। মামলার ৪ দিনেও আসামী ধরা ছোঁয়ার বাইরে থেকে সাইবার অপরাধ চালিয়ে যাচ্ছে। উল্টো আজকে নির্যাতনের শিকার সারা ও তার পরিবারের বিরুদ্ধে ভিত্তিহীন চাঁদাবাজি মামলা করেছে হামলাকারী জুবায়ের আদনান। যত দ্রুত সম্ভব অপরাধীদের গ্রেফতার ও বিচার কাজ সম্পন্ন করার পাশাপাশি ঘটনার তদন্তের সাথে সম্পৃক্ত পুলিশ, প্রশাসন, ডাক্তার ও সংশ্লিষ্ট প্রত্যেকের জবাবদিহিতা নিশ্চিত করার দাবী জানানো হয়। কর্মস্থল ও শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে যৌন হয়রাণী বন্ধের জন্য বাংলাদেশের মহামান্য হাইকোর্ট কর্তৃক প্রদত্ত রায় বাস্তবায়নে বিভিন্ন সংগঠন ও প্রতিষ্ঠানকে ব্যবস্থা গ্রহণ করার জন্য নির্দেশ প্রদান করার জন্য জোড় দাবী জানাতে চাই। এবং আইসিটির মাধ্যমে সংগঠিত সাইবার সহিংসতা প্রতিরোধে যথোপোযুক্ত ব্যবস্থা গ্রহণ করার। নারী ও শিশুদের উপর ধর্ষণ ও যৌন সহিংসতার ঘটনা দিন দিন বেড়েই চলছে। যার এবং ভয়াবহ আকার ধারণ করেছে। এই ঘটনার হাত থেকে রক্ষা পাচ্ছেনা প্রতিবন্ধী নারী, মেয়েশিশু এমনকি ছেলে শিশুরাও। তারা ঘরে-বাইরে, রাস্তাঘাটে, যানবাহনে, কর্মক্ষেত্রে, শিক্ষাপ্রতিষ্ঠানে প্রতিনিয়ত ধর্ষণ, গণধর্ষণ, ধর্ষণের পর হত্যা, ধর্ষণচেষ্টা, নানাধরণের যৌন হয়রানীর শিকার হচ্ছে। ঘটনার নির্মমতায় বাংলাদেশের মানুষ শংকিত ও আতঙ্কিত হয়ে পড়েছে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: