বৃহস্পতিবার, ২২ অক্টোবর ২০২০, ০৩:২০ পূর্বাহ্ন

কক্সবাজার জেলা অটো রিকশা-টেম্পু শ্রমিক ইউনিয়নের নাম ভাগিয়ে লক্ষ লক্ষ টাকা চাঁদাবাজির অভিযোগ

  • সময় রবিবার, ২৭ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৩৯৬ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:

কক্সবাজার কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে সি এন জি, মাহিন্দ্রা ও অটো রিকশা থেকে দৈনিক হাজার হাজার টাকা যা প্রতি মাসে লক্ষ লক্ষ টাকা অবৈধভাবে চাঁদা আদায়ের মাধ্যমে হাতিয়ে নিচ্ছে বলে অভিযোগ উঠেছে।

কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালের সি এন জি মাহিন্দ্রা চালকেরা বলেন তাদের শ্রমিক সংসদের নির্দিষ্টভাবে কোন নিয়ম না থাকলেও উত্তর হাজীপাড়ার গুরা মিয়ার ছেলে মোহাম্মদ আবদুল্লাহ সহ তাদের লালিত সন্ত্রাসী বাহিনী মিলে তাদের ( সি এন জি, মাহিন্দ্রা ও অটোরিকশা ড্রাইভার) কাছ থেকে জোর পূর্বক ভাবে প্রতিদিন অবৈধ চাঁদা আদায় করতেছেন।

অনুসন্ধানে জানা যায় কক্সবাজার জেলা অটোরিকশা-টেম্পু পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন ( রেজিঃ নং ১৪৯১) এর অভ্যন্তরীণ কোন্দলের কারণে দীর্ঘদিন আদালতে মামলা বিচারাধীন থাকলেও তারা অবৈধ ভাবে শ্রমিক ইউনিয়নের কল্যাণ ফান্ডের নাম ভাগিয়ে উক্ত চাঁদা আদায় করেন যা বর্তমানে চলমান।

আদালতের আদেশ মতে শ্রম ও কর্মসংস্থান মন্ত্রণালয়ের বিভাগীয় শ্রম দপ্তর চট্রগ্রাম এর পরিচালকের দপ্তর হইতে বর্তমানে রাশেদুল মোস্তফা ও আহসান উল্লাহ কে জেলা অটোরিকশা-টেম্পু পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়ন( রেজিঃ নং ১৪৯১) এর অন্তবর্তীকালীন কমিটি হিসেবে বৈধতা দিলেও তারা উক্ত চাঁদার ব্যাপারে কিছু জানেন না।

জেলা অটোরিকশা-টেম্পু পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের সভাপতি রাশেদুল মোস্তফা বলেন আব্দুল্লাহ আওয়ামিলীগ ও শ্রমিকলীগের নাম ভাগিয়ে, জেলা অটোরিকশা-টেম্পু পরিবহন শ্রমিক ইউনিয়নের নামে ভুয়া চাঁদার রশিদ চাপিয়ে সম্পুর্ন অবৈধ ভাবে উক্ত চাঁদা আদায় করতেছে এই ব্যপারে তাদের সার্বিক সহযোগিতা করেতেছেন পৌর আওয়ামিলীগ এর ৬ নং ওয়ার্ডের সভাপতি শাহনেওয়াজ চৌধুরী। কেন্দ্রীয় বাস টার্মিনালে আমাদের অনুমোদিত একটি শ্রমিক কমিটি আছে, আমরা এখন পর্যন্ত কল্যাণ ফান্ড বা অন্য কোন ফান্ডের নামে চাঁদা আদায় করতেছিনা এবং আমাদের অনুমোদিত কমিটির নেতৃবৃন্দগন অবৈধ চাঁদা আদায়ে বাধা প্রধান করিলে তাদের কে হুমকি ধমকি ও লাঞ্চিত করেন।

উক্ত অবৈধ চাঁদা আদায় বন্ধের ব্যপারে আইনানুগ ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য প্রশাসনের হস্তক্ষেপ কামনা করেন সর্বস্থরের সি এন জি, মাহিন্দ্রা ও অটোরিকশা চালক সহ সংশ্লিষ্ট শ্রমিক নেতৃবৃন্দগণ।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: