শুক্রবার, ০২ অক্টোবর ২০২০, ০১:২১ পূর্বাহ্ন

প্রবাসী গফুরের অপকর্মের শেষ নাই; অতিষ্ঠ এলাকাবাসী

  • সময় বুধবার, ৯ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ১৩৭ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদকঃ
মহেশখালী উপজেলা মাতারবাড়ীর প্রবাসী গফুরের অপকর্মের শেষ নাই। মাতারবাড়ীর মানুষের মুখে মুখে শোনা যায় তার অপকর্মের কথা! গফুর একজন লম্পট হিসেবে যেমন দেশে পরিচিত, ঠিক তেমনিভাবে প্রবাসেও ঐ নামে পরিচিত। জানা যায়, অাব্দুল গফুর মাতারবাড়ী ইউনিয়নের মাইজপাড়া গ্রামের মৃত মনোহর অালীর পুত্র। গফুর দীর্ঘদিন ধরে সৌদি অারবে প্রবাসে থাকতেন। সেখান থেকে ছয়মাস পর পর দেশে অাসতেন। সেখানে তিনি নামে মাত্র সবজি চাষ করলেরও মুলত চোরাইপথে স্বর্ণ পাচার ও হোন্ডি ব্যবসা চালিয়ে যেতেন। যার কারণে সরকার লাখ লাখ টাকা রেমিট্রেন্স থেকে হতেন বঞ্চিত। তার এই অবৈধ অায়ের টাকার প্রলোভন ফেলে এলাকা ও এলাকার বাইরে সহজ সরল যুবতিদের বিবাহ করার অাশ্বাস দিয়ে ইজ্জত হানি করেছে। এক অনুসন্ধানে যানা গেছে, বিগত ৩০ ডিসেম্বর ২০১২ ইং তারিখে চকরিয়া উপজেলার বহদ্দার কাটা বি.এম.চর ইউনিয়নের আব্দুল মালেক ও সাজেদা বেগমের কন্যা রুমা আক্তার( ২২) কক্সবাজার নোটারী পাবলিক এর কার্যালয়ে বিবাহ সম্পন্ন হয়, ১৯ নভেম্বর ২০১৩ ইং মহেশখালী উপজেলার হোয়ানক ইউনিয়নের ছনখোলা পাড়া গ্রামের মৃত জাগির আহমদ ও কত বানুর কন্যা মুবিনা ফারুকী (২৩) সাথে বিবাহ সম্পন্ন হয় ও ২০১৫ ইং সালে চকরিয়া উপজেলার বড় ভেওলা ইউনিয়নের ঈদমনি গ্রামের অাব্দুল মন্নানের কন্যা আসমাউল হোসনা সাথির মধ্যে বিবাহ সম্পন্ন হয়। কিন্তু অন্যান্য মহিলার সাথে লম্পটতা থাকার কারণে স্বামী স্ত্রীর মধ্যের মনমালিন্য দেখা দেয়, একপর্যাযে ঐ বিবাহও ভেঙ্গে যায়। এছাড়া অলিখিতভাবে আরো বহু মলিলার ইজ্জত হানি করেছে। তার নিকটততা এক অাত্মীয় জানান, মগডেইল এক মেয়ের সাথে অানুষ্ঠানিকভাবে বিয়ের ঠিক পদ্দও হয়। ইত্যো বৎসরে ঐ মহিলা সাথে শারিরীক বেশকিছুদিন মেলামেশা করার পর বিয়েটি পন্ড হয়ে যায়। এতে ঐ মহিলা অাত্মহননের চেষ্টাও করেছিলো অপর দিকে পার্শ্ববর্তী ধলঘাটা ইউনিয়নের নাছির মোহাম্মদ ডেইলের এক মেয়ের সাথে একই কায়দায় ঘটনা ঘটে। যা তদন্ত করলে সরেজমিনে অনেকেই স্বাক্ষী দেবে। এসব তালগোল পাঁকার পর অাত্মীয় স্বজনের চাপের মূখে মাতারবাড়ী ইউনিয়নের হংস মিয়াজির পাড়ার এক গরীব ঘরের সুন্দরী মেয়েকে বিয়ে করেন। তাদের দাম্পত্য জীবন খুবই সুখে থাকার স্বত্ত্বেও পূর্বের চরিত্র পরিবর্তন করতে পারেননি। এমনকি লোকে মূখে শোনা যাচ্ছে কালারমারছড়া ইউনিয়নের মাইজপাড়ার এক অসহায় গরীবে মেয়েকে বিয়ের প্রলোভনে ফেলে নিয়মিত যাওয়া অাসা করছে। অভিযুক্ত গফুর শিকার করে বলেন, নারী কেলেঙ্কারি জড়িত নয়। তবে কয়েকটি বিয়ে করেছেন। এব্যাপারে এলাকাবাসী লম্পট গফুরের কবল থেকে নিরীহ, গরীব, অসহায় সুন্দরী যুবতি মহিলাদের ইজ্জত রক্ষা করতে সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষের অাশু হস্তাক্ষেপ কামনা করেন।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: