সোমবার, ২৮ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০৮:৩৯ পূর্বাহ্ন

সদর উপজেলা শিশুশ্রম পরিবীক্ষণ কমিটির সমন্বয় সভা অনুষ্টিত

  • সময় বৃহস্পতিবার, ৩ সেপ্টেম্বর, ২০২০
  • ৬৪ বার পড়া হয়েছে

নিজস্ব প্রতিবেদক:
ঝুঁকিপূর্ণ পেশায় নিয়োজিত শিশুদের শ্রম পেশা বন্ধ করে তাদের অধ্যয়ন এবং সুস্থ জীবনে ফিরিয়ে আনার লক্ষ্যে কক্সবাজার সদর উপজেলা শিশু পরিবীক্ষণ কমিটি পেশাজীবী শিশুদের ডাটাবেজ তৈরির কাজ শুরু করছে।
এ লক্ষ্যে বুধবার (২ সেপ্টেম্বর) উপজেলা পরিষদের এড. শাহাব উদ্দিন আহমেদ মিলনায়তনে উইনরক ইন্টারন্যাশনাল নামের বেসরকারি সংগঠনের সহযোগীতায় ক্লাইম্ব প্রকল্পের আওতায় এ্যালায়েন্স ফর কোঅপারেশন এন্ড লিগ্যাল এইড বাংলাদেশ (একলাব) এর আয়োজনে শিশু পরিবীক্ষণ কমিটির সমন্বয় সভা অনুষ্ঠিত হয়েছে।
সভায় সিদ্ধান্ত হয়, গঠিত কমিটি সরকারি নির্দেশনা অনুযায়ী সংশ্লিষ্ট কর্তৃপক্ষকে সমন্বিত করে কাজ করবে। আগামীতে ডাটাবেজ তৈরি করে যথাযথ কর্তৃপক্ষের কাছে পাঠানো হবে।
শুরুতে ক্লাইম্ব প্রকল্পের প্রোগ্রাম কোঅডিনেটর মাহবুব উল আলম শহরের নাজিরারটেকসহ বিভিন্ন অঞ্চলের শিশুশ্রমের চিত্র ও শিশুশ্রম নিরসনে তাঁর দপ্তরের গৃহীত কার্যক্রম তুলে ধরেন এবং শিশুশ্রম নিরসন সংক্রান্ত তাদের গৃহীত পরিকল্পনা ও লক্ষ্য বাস্তবায়নে বিভিন্ন সরকারি দপ্তর ও সমাজের সকলের সহযোগীতা কামনা করেন।
সভায় সভাপতিত্ব করেন, উপজেলা নির্বাহী কর্মকর্তা মাহমুদ উল্লাহ মারুফ। তিনি বলেন, বর্তমান সরকার ২০২১ সালের মধ্যে ঝুঁকিপূর্ণ পেশা থেকে শিশুশ্রম নির্মূলের লক্ষ্যে দেশব্যাপী কাজ শুরু করেছে। সরকারি সিদ্ধান্ত মোতাবেক ১৪ বছরের কম বয়সী শিশুরা যেসব পেশায় শ্রমজীবী হিসেবে নিয়োজিত আছে তাদের ডাটাবেজ তৈরির নির্দেশনা দেয়া হয়েছে।
সভায় অন্যদের মধ্যে পরিবীক্ষণ কমিটি সদস্য সচিব ও কক্সবাজার মহিলা বিষয়ক অধিদপ্তরের উপ পরিচালক সুব্রত বিশ্বাস, উপজেলা ভাইস চেয়ারম্যান রশিদ মিয়া, মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান হামিদা তাহের, উইনরক ইন্টারন্যাশনাল এর প্রতিনিধি তানভীর শরীফ, সিভিক এইয়গেজমেন্ট এন্ড ক্যাপাসিটি ডেভেলপম্যান্টের স্পেশালিষ্ট মো: খায়রুল ইসলাম, একলাবের মনিটরিং এন্ড ইভায়লুশন স্পেশালিষ্ট প্রোগ্রাম ডিরেক্টর আবু বক্কর সিদ্দিক, প্রোগ্রাম কো অডিনেটর মোঃ মাহাবুব উল আলম প্রমুখ ছাড়াও এ সময় বিভিন্ন সরকারি দপ্তরের কর্মকর্তা, এনজিও ফোরামের নেতৃবৃন্দ উপস্থিত ছিলেন।
সমন্বয় সভায় বক্তারা শিশুদের নিরাপদ কর্মস্থান, শিশুশ্রম কীভাবে পর্যায়ক্রমে কমানো যায় সে বিষয়ে আলোচনা করেন। শিশুরা কেন শিক্ষা গ্রহণ না করে কর্মক্ষেত্রে আসে সে বিষয়টিও খতিয়ে দেখার আহবান জানানো হয়।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: