বৃহস্পতিবার, ০১ অক্টোবর ২০২০, ১০:৪৭ অপরাহ্ন

টেকনাফে হঠাৎ বেড়েছে ইয়াবা পাচার

  • সময় রবিবার, ২৩ আগস্ট, ২০২০
  • ১৩৩ বার পড়া হয়েছে

ইয়াবা পাচারের প্রবেশদ্বার খ্যাত টেকনাফে পু’লিশী কার্যক্রমে স্থবিরতার সুযোগে ইয়াবা তথা মা’দক পাচার বেড়েছে। গু’লিতে সাবেক মেজর সিনহা নি’হতের পর পু’লিশের কার্যক্রমে প্রভাব পড়েছে বলে নাম প্রকাশে অনিচ্ছুক একাধিক ব্যক্তি সূত্রে এ তথ্য জানা গেছে । গত ১৫ আগস্ট রাতে টেকনাফের হ্নীলা ইউনিয়নের জাদিমোড়া ওম’র খাল এলাকা কেওড়া বাগানের ভেতর থেকে বিজিবি অ’ভিযান পরিচালনা করে ৫টি বস্তা ইয়াবা উ’দ্ধার করে । সংখ্যায় ৩ লক্ষ ৯০ হাজার ইয়াবা । যার মূল্য প্রায় ১২ কোটি টাকা ।

সে’নাবাহিনীর অবসরপ্রাপ্ত মেজর সিনহা মো. রাশেদ খান হ’ত্যা মা’মলার আ’সামি টেকনাফ থা’না থেকে প্রত্যাহারকৃত ওসি প্রদীপ কুমা’র দাশ ও বাহারছরা পু’লিশ ত’দন্ত কেন্দ্রের পরিদর্শক লিয়াকত আলীসহ সাত পু’লিশ সদস্যকে চাকরি থেকে সাময়িকভাবে বরখাস্ত করা হয় আগস্টের প্রথম সপ্তাহে । প্রদীপসহ আ’সামিরা এখন কারাগারে রয়েছেন । গত ১১ আগস্ট টেকনাফ থা’নায় পদায়ন করা হয় ওসি মো. আবুল ফয়সলকে। পরে ২০ আগস্ট তাকে আর্মড পু’লিশ ব্যাটালিয়নে বদলী করা হয়।

এসব কারণে টেকনাফে পু’লিশের কার্যক্রমে ভাটা পড়েছে । এই সুযোগে ইয়াবা পাচারে নতুন নতুন কৌশল অবলম্বন করছে পাচারকারীরা । পাচারের সাথে জ’ড়িতদের পঞ্চাশ ভাগই রোহিঙ্গা।

মেজর সিনহা নি’হতের পর মা’দক চো’রাচালানে পু’লিশের নজরদারি অনেকাংশে কমে গেছে । ইয়াবার মূল ব্যবসায়ীরা যারা ইতিপূর্বে ধ’রাছোঁয়ার বাইরে ছিল তাদের কেউ কেউ প্রকাশ্য হচ্ছে । বিভিন্ন কৌশলে ইয়াবা পাচার হচ্ছে ।

মিয়ানমা’রে অবস্থানরত রোহিঙ্গাদের দিয়ে টেকনাফের মা’দক ব্যবসায়ীরা সরাসরি ইয়াবা পাচার করছে । এসব মা’দক রোহিঙ্গা ক্যাম্প ছাড়াও বিভিন্নস্থানে মজুদ করা হচ্ছে বলে গোয়েন্দা সূত্রে জানা গেছে ।

টেকনাফ থা’না পু’লিশ সূত্রে জানা গেছে, চলতি মাসে থা’নায় মা’দক বিরোধী অ’ভিযান খুব একটা হয়নি । গ্রে’ফতার ও মা’মলার সংখ্যাও তুলনামূলক অনেক কম । কমেছে জিডি ও সড়কে নেই পু’লিশের টহল । অর্থাৎ কমেছে এক তৃতীয়াংশ । থা’নায় ভেতর জনসাধারণ ও সোর্সের যাতায়াতও কমে গেছে ।

জানা গেছে, টেকনাফে দুই লাখ মানুষের মধ্যে আশি ভাগ কোনো না কোনোভাবে ইয়াবা ব্যবসায় সংশ্লিষ্ট । গোয়েন্দ ঐ সূত্র জানায়, টেকনাফে পু’লিশের অ’ভিযান কমে যাওয়ায় মা’দকের পাচার কয়েকগুণ বেড়েছে ।

অ’ভিজ্ঞরা বলছেন, পু’লিশের কার্যক্রম থমকে যাওয়া মা’দক ব্যবসায়ীদের নেটওয়ার্ক বেড়েছে । পু’লিশের কার্যক্রম জোড়দার করে মা’দক সিন্ডিকেট এখনই ভেঙ্গে দিতে হবে । পু’লিশের কার্যক্রম স্থবির হওয়ায় টেকনাফ মা’দক পাচারের নিরাপদ রুট মনে করার প্রবণতা দিন দিন বৃদ্ধি পাচ্ছে কারবারিদের । তাই, টেকনাফকে মহিরুহে বেছে নিচ্ছে মা’দক ব্যবসায়ীরা। তারা অ’স্ত্র নিয়ে মা’দকবহন করছে বলেও অ’ভিযোগ উঠেছে ।

চট্রগ্রাম রেঞ্জের ডিআইজি গো’লাম ফারুক জানান, ২-১ দিন পেট্রোল ডিউিটিতে সমস্যা হলেও এখন সব ঠিক হয়েছে ।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: