বৃহস্পতিবার, ০৬ অগাস্ট ২০২০, ০৭:১৮ পূর্বাহ্ন
নোঠিশ
ওয়েব সংষ্কারের কাজ চলিতেছে। সাময়িক অপরাগতার জন্য দু:খিত

আমাদের কাঁদিয়ে চলে গেলেন স্যার

  • সময় বুধবার, ১ জুলাই, ২০২০
  • ২১৪ বার পড়া হয়েছে

সালাহ্ উদ্দিন জাসেদ

মানুষ এই পৃথিবীতে আসে
পৃথিবীকে ভালোবাসে
মায়ায় জড়িয়ে কাঁদে হাসে

কেউ এসে দাঁড়ায় পাশে
তারপর বিদায় নিলে সবাই শোকে ভাসে।

পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে নিরব নিস্তব্ধতা। বর্ষার আগমনী বার্তায় ছল ছল প্রকৃতি। এমনি এক উদাসী ক্ষণে বিদায় নামের বেদনা বিধুর পর্বে আমরা উপনীত হয়েছি। দীর্ঘদিন এ প্রতিষ্ঠানের প্রধান হিসেবে দায়িত্ব পালনের পর নিয়মের বাধ্যবাধকতা আর সময়ের তাগিদে আপনার বিদায় যেনো এক অসহনীয় যন্ত্রণার নির্মম বাস্তবতা। তাইতো বিদায়ের করুণ সুরে আমাদের অন্তর আজ অব্যক্ত বেদনায় ভারাক্রান্ত। আমাদের হৃদয়-মন আজ বিষণ্নতায় আচ্ছন্ন; আমাদের চোখ আজ অশ্ত্রু ছল ছল।

আপনার করুন হৃদয়ের বুক ফাটা আর্তনাদ,
“আমার যাবার সময় হল দাও বিদায় মোছ আঁখি দুয়ার খোল দাও বিদায়।।”

আজ বিদায় ক্ষণে পুরো ক্যাম্পাস জুড়ে আর্তনাদের হাহাকার, আজ ক্যাম্পাস কালো বর্ণে শোক স্তব্ধ। আজ আপনাকে বিদায় দিতে গিয়ে আমাদের মাঝে কান্নার রোল ধ্বনিত না হলেও আমাদের কণ্ঠ আজ বাষ্পরুদ্ধ; আমাদের চোখ আজ আশ্ত্রুসজল । স্নেহভাজন হিসেবে আমরা আপনার কাছাকাছি ছিলাম। বয়সজনিত চপলতায় হয়ত কখনো মনের অজান্তে আমরা আপনার বিরক্তির কারণ হয়েছি; আমাদের কথায় বা আচরণে হয়ত কষ্ট পেয়েছেন। আজ এ বিদায় লগ্নে আপনার মহানুভবতার কাছে আমাদের দাবী- আপনি আমাদের ক্ষমা করে দেবেন।

বিদায়লগ্নে আমাদের কচি হৃদয়ের করুণার সুর,

বিদ্যাগুরু করো মোদের ভুল-ভ্রান্তি ক্ষমা,
জীবন মোদের ধন্য হবে, শ্রাদ্ধ হবে জমা।
শেষের কালে সবার নিকট দোয়া ভিক্ষা মাগি,
জীবন পথে চলতে গিয়ে সফল হওয়ার লাগি।”

ভাল থাকবেন, সুস্থ থাকবেন।
মহান আল্লাহর দরবারে আপনার সু-স্বাস্থ্য ও দীর্ঘায়ু কামনা করছি।
আমার জীবনে দেখা শ্রেষ্ঠ শিক্ষক ও শ্রেষ্ঠ মানুষ, কক্সবাজার সরকারি কলেজের অবসরজনিত বিদায়ী অধ্যক্ষ প্রফেসর একে এম ফজলুল করিম চৌধুরী স্যার।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: