শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০৫:৪৭ অপরাহ্ন
নোঠিশ
ওয়েব সংষ্কারের কাজ চলিতেছে। সাময়িক অপরাগতার জন্য দু:খিত

করোনার বিভীষিকায় থমকে গেছে পুরো বিশ্ব!

  • সময় শনিবার, ১৬ মে, ২০২০
  • ১৭২ বার পড়া হয়েছে

করোনার বিভীষিকায় থমকে গেছে পুরো বিশ্ব!

পুরো পৃথিবী জুড়ে মানব সভ্যতাকে ভাঁটাই পরিণত করেছে করোনা নামক বিভীষিকা। নিস্তব্ধ করেছে গ্রাম থেকে শহর, নগর থেকে নগরী।

কি এমন হলো? পৃথিবীবাসী কি সৃষ্টিকর্তার কোন নাফরমানি করেছি, নাকি আল্লাহ আমাদের পরিকল্পিত পরিক্ষা নিচ্ছে? বোঝে আসেনা। আল্লাহ তোমার সৃষ্টির সেরা জীব মানববাসীকে রহমত করো মাবুদ।

দিনদিন বেপরোয়া Covid-19 বা করোনা ভাইরাস। মৃত্যুর মিছিলে জানিনা আমি আপনি কখন হারিয়ে যায়। প্রিয়, সৃষ্টিকর্তা আল্লাহ ক্ষমা করে দিও। তোমার সুদৃষ্টি ছাড়া এ মহামারি থেকে আমাদের আর কেউ বাঁচাতে পারবে না। তোমার দিকে তাকিয়ে আছে পুরো বিশ্বের বৃহত্তর মানবসভ্যতা। তোমার উপর ছেড়ে দিলাম, আল্লাহ তুমি যা-ই করো ভালোর জন্য করো। পরিশেষে, আসুন এবারের ঈদটা আমরা ভিন্নভাবে কাটিয়ে দিই।

মার্কেট খুলছে, অনলাইনে শপিং চলছে, তা আমাদের দেখার বিষয় নই। আপনি আমি যদি না যাই তাহলে মার্কেট নিয়ে কথা নাইবা বাড়াই। আমরা মার্কেট না গিয়েই তো হয়। মার্কেট বন্ধ তবুও কি করোনা আক্রান্তের হার কমেছে? বরং বেড়েছে। কাজেই আমি আমার পরিবারকে বুঝাই, আপনি আপনার পরিবারকে বুঝান। এবার বেঁচে থাকলে আগামীবার অবধি অনেকগুলো ঈদে শপিং সহ আনন্দঘন মুহূর্ত আসবে।

তাই আমরা বাড়িতে থাকি। প্রিয়জনদের নিয়ে আল্লাহ ইবাদত এবং আড্ডা, খাওয়া-দাওয়া, বিনোদন করে সময় কাটিয়ে দিই।

পাশাপাশি আমরা দশদিনের বাজার একদিনে করি, এতে করে বাজারে যেতে হবে আমাকে মাসে তিনবার। আর যে পারছেনা সেও অন্তত সপ্তাহে দুইবার যাক, তাহলেও সচেতন ভাবে চলুন।

সরকারের টাকায় গরীবদের সাহায্য করতেই যদি এতো ছবি তোলা হয়! তাহলে নিজের টাকায় সাহায্য করলে তো ঐ ছবি ঘরের দেয়ালে বাঁধিয়ে রাখতেন মনে হয়।

আর নাইবা বললাম এইবার ঈদটানভিন্নভাবে হয়ে যাক। আজ থেকে আবারো আমরা নিজেদের সচেতন করি। ঘরে থাকি নিরাপদ থাকি। আপনজনদের বাঁচায় ও নিজেরাই বাঁচি। পাশাপাশি সরকারের নির্দেশনা মেনে চলি। আগামী সুন্দর মুহূর্তের জন্য অপেক্ষা করি।
Stay Home
Stay Safe…….

লেখকঃ নাসরিন শাহরিয়ার জেলি,
সহ-সম্পাদক “কক্সবাজার দর্পণ” ও নির্বাহী সম্পাদকঃ উখিয়া নিউজ টুডে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: