শনিবার, ১১ জুলাই ২০২০, ০৪:০৩ অপরাহ্ন
নোঠিশ
ওয়েব সংষ্কারের কাজ চলিতেছে। সাময়িক অপরাগতার জন্য দু:খিত

‘খুরুশ্কুল রাস্তার পাড়ায়…” শিরোনামে প্রকাশিত সংবাদের প্রতিবাদ

  • সময় বৃহস্পতিবার, ১৯ মার্চ, ২০২০
  • ১৩৫ বার পড়া হয়েছে

গত ১৭মার্চ মঙ্গলবার অনলাইনে প্রকাশিত ”খুরুশ্কুল রাস্তার পাড়ায় জমির বিরোধে প্রতিবেশির উপর হামলা, আহত ২” শিরোনামে সংবাদটি আমি নিম্নসাক্ষরকারীর দৃষ্টিগোচর হয়েছে। ঘটনার বর্ণনায় মৃত নাছির উদ্দিনের তিন ছেলে উল্লেখ করে আমাদের তিন ভাই যথাক্রমে সোনা মিয়া (৩৮), নজির আহমদ (৩২) ও আকবর আহমদ (২৫)কে অভিযুক্ত করা হয়েছে। যা সম্পূর্ণভাবে মিথ্যা একটি তথ্য। আমাদের প্রতিপক্ষ গং সাংবাদিক ভাইদের যে ধরণের তথ্য দিয়েছে তার উপর নির্ভর করে এটি লেখা হয়েছে। অথচ সেদিনের ঘটনায় আমরা কেউ ঘটনাস্থলে ছিলাম না। সুতরাং ঘটনার সাথে আমাদের তিন ভাইয়ের নূন্যতম সম্পৃক্ততা নেই। সংবাদে আমাদের তিন ভাইকে জড়িয়ে মিথ্যা তথ্য পরিবেশন করায় আমরা এর তীব্র নিন্দা ও প্রতিবাদ জানাচ্ছি। কারণ সেদিন মোরশেদ গং যথাক্রমে-০১. রানা পিতা শাহা আলম বহদদার, ২.মিজান পিতা ঐ, ৩.শাহজান পিতা-ঐ, ৪.মেরশেদ আলম পিতা জাফর মুনসি, ৫. শামসুল হুদা.পিতা জফর মুনসি, ৬.জিয়াওর রহমান পিতা ফয়েজ আহামদ, ৭.জসিম প্রকাশ ফাইল জসিম পিতা অজ্ঞাত, ৮.আরিফুল ইসলাম পিতা এনামুল হকসহ ৮/১০ জন মিলে আমাদের পরিবারের নারীদের সাথে ঝগড়া দিয়ে তাদের উপর হামলা করে। হামলায় আমাদের পরিবারের নারী সদস্য রীনা আক্তার (৩৫) স্বামী বশির আহমদ ও দিলদার বেগম (৫৫) স্বামী মৃত নাছির উদ্দিন এদুজন গুরুতর আহত হয়। প্রতিপক্ষের লোকজন এসব তথ্য গোপন করে গণমাধ্যমকর্মীদের অসম্পূর্ণ তথ্য প্রদান করে।
এটা সত্য যে, সেদিন আমাদের দুই প্রতিবেশির মধ্যে হাতাহাতি পর্যায়ের ঘটনা ঘটেছিলো। এবং উভয় পক্ষেই কমবেশি আহত হয়েছিলো। পরবর্তীতে এটি স্থানীয় ভাবে একটি শালিসের মাধ্যমে মিমাংসার পথে থাকায় আমরা উভয় পক্ষ থানায় অভিযোগ করা থেকে বিরত রয়েছি। সুতরাং উল্লেখিত ঘটনায় উদ্ভূত পরিস্থিতি নিয়ে কেউ যেনো বিভ্রান্ত না হন। আমরা উভয় পক্ষ প্রতিবেশি হওয়ায় তা অচীরেই মিমাংসা করে নিতে সক্ষম হবো বলে আশা করছি।

প্রতিবাদকারী
আকবর আহমদ
পিতা: মৃত নাছির উদ্দিন
খুরুশ্কুল রাস্তার পাড়া, সদর, কক্সবাজার।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: