বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ০১:১৭ অপরাহ্ন

আন্তর্জাতিক নারী দিবস উদযাপন উপলক্ষে সমাবেশ

  • সময় শুক্রবার, ৬ মার্চ, ২০২০
  • ১৫৫ বার পড়া হয়েছে

মহিবুল ইসলাম সৌরভ::

ঐতিহ্যবাহী বরিশাল জেলার বাকেরগঞ্জ উপজেলায় ৮ মার্চ আন্তর্জাতিক নারী দিবস- ২০২০ উদযাপন উপলক্ষে এই সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়। উপজেলা নির্বাহী অফিসার মাধবী রায়ের সভাপতিত্বে সমাবেশে উপস্থিত ছিলেন উপজেলা সহকারী কমিশনার (ভূমি) মো. তরিকুল ইসলাম উজ্জ্বল, উপজেলা মহিলা ভাইস চেয়ারম্যান তহমিনা বেগম, উপজেলা মহিলা বিষয়ক কর্মকর্তা মৌমিতা নাজমিন, উপজেলা তথ্য সেবা কর্মকর্তা মাহাবুবা মাহি, দুধলমৌ সরকারি প্রাথমিক বিদ্যালয়ের প্রধান শিক্ষক নুরুন্নাহার বেগম, আবু জাফর, নুসরাত জাহান, সমাজসেবক হাসিনা বেগম, কাজল বেগম প্রমূখ। উপজেলা নির্বাহী অফিসার উপস্থিত সকল নারীদের উদ্দেশ্যে বলেন, এই দিবসটি উদযাপনের পেছনে রয়েছে নারী শ্রমিকের অধিকার আদায়ের সংগ্রামের ইতিহাস। ১৮৫৭ খ্রিস্টাব্দে মজুরিবৈষম্য, কর্মঘণ্টা নির্দিষ্ট করা, কাজের অমানবিক পরিবেশের বিরুদ্ধে প্রতিবাদ জানাতে মার্কিন যুক্তরাষ্ট্রের নিউইয়র্কের রাস্তায় নেমেছিলেন সুতা কারখানার নারী শ্রমিকেরা। সেই মিছিলে চলে সরকার লেঠেল বাহিনীর দমন-পীড়ন। ১৯০৯ সালের ২৮ ফেব্রুয়ারি নিউইয়র্কের সোশ্যাল ডেমোক্র্যাট নারী সংগঠনের পক্ষ থেকে আয়োজিত নারী সমাবেশে জার্মান সমাজতান্ত্রিক নেত্রী ক্লারা জেটকিনের নেতৃত্বে সর্বপ্রথম আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন হলো। ক্লারা ছিলেন জার্মান রাজনীতিবিদ; জার্মান কমিউনিস্ট পার্টির স্থপতিদের একজন। এরপর ১৯১০ খ্রিস্টাব্দে ডেনমার্কেরকোপেনহেগেনে অনুষ্ঠিত হয় দ্বিতীয় আন্তর্জাতিক নারী সম্মেলন। ১৭টি দেশ থেকে ১০০ জন নারী প্রতিনিধি এতে যোগ দিয়েছিলেন। এ সম্মেলনে ক্লারা প্রতি বৎসর ৮ মার্চকে আন্তর্জাতিক নারী দিবস হিসেবে পালন করার প্রস্তাব দেন। সিদ্ধান্ত হয়ঃ ১৯১১ খ্রিস্টাব্দ থেকে নারীদের সম-অধিকার দিবস হিসেবে দিনটি পালিত হবে। দিবসটি পালনে এগিয়ে আসে বিভিন্ন দেশের সমাজতন্ত্রীরা। ১৯১৪ খ্রিস্টাব্দ থেকে বেশ কয়েকটি দেশে ৮ মার্চ পালিত হতে লাগল। বাংলাদেশেও ১৯৭১ খ্রিস্টাব্দে স্বাধীনতার লাভের পূর্ব থেকেই এই দিবসটি পালিত হতে শুরু করে। অতঃপর ১৯৭৫ খ্রিস্টাব্দে ৮ মার্চকে আন্তর্জাতিক স্বীকৃতি প্রদান করা হয়। দিবসটি পালনের জন্য বিভিন্ন রাষ্ট্রকে আহ্বান জানায় জাতিসংঘ। এরপর থেকে সারা পৃথিবী জুড়েই পালিত হচ্ছে দিনটি নারীর সমঅধিকার আদায়ের প্রত্যয় পুনর্ব্যক্ত করার অভীপ্সা নিয়ে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: