বৃহস্পতিবার, ০৯ জুলাই ২০২০, ০৭:১২ পূর্বাহ্ন
নোঠিশ
ওয়েব সংষ্কারের কাজ চলিতেছে। সাময়িক অপরাগতার জন্য দু:খিত

এবার প্রকাশ্যে জকির বাহিনীর ফাঁকা গুলিবর্ষণে মানুষের মধ্যে আতংক সৃষ্টির চেষ্টা!

  • সময় মঙ্গলবার, ৩ মার্চ, ২০২০
  • ১৪৫ বার পড়া হয়েছে

টেকনাফে শালবাগান রোহিঙ্গা ক্যাম্প সংলগ্ন পাহাড়ে র‌্যাব ও সন্ত্রাসী গ্রæপের মধ্যে গোলাগুলিতে ৭জনের মৃতদেহ উদ্ধারের রেশ না কাটতেই আবারো দূধর্ষ সন্ত্রাসী ডাকাত জকির গ্রæপের লোকজন প্রকাশ্যে ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে এলাকায় আবারো আতংক সৃষ্টি চেষ্টা করেছে। এরা পুঁটি মাছের মতো যতই লাফালাফি করুক না কেন সব অপরাধীকে নির্মূলে আইন-শৃংখলা বাহিনী পূর্ণ শক্তি নিয়ে অভিযান অব্যাহত রাখবে।

জানা যায়, ৩ মার্চ (মঙ্গলবার) দুপুর ১২টারদিকে টেকনাফের জাদিমোরা ও শালবাগান ক্যাম্প সংলগ্ন লাল পরীর জুম নামক পাহাড়ে রোহিঙ্গা শীর্ষ সন্ত্রাসী ও ডাকাত জকির বাহিনীর লোকজন আকস্মিক ১০/১৫ রাউন্ড ফাঁকা গুলিবর্ষণ করে আতংক সৃষ্টি করে। এই ফাঁকা গুলিবর্ষণের খবর পেয়ে ক্যাম্পে নিরাপত্তা রক্ষায় নিয়োজিত নিরাপত্তা বাহিনীর সদস্য এবং আইন-শৃংখলা রক্ষী বাহিনীর সদস্যরা ঘটনাস্থল পরিদর্শন করলে দূবৃর্ত্ত ডাকাতেরা পালিয়ে গেলে পরিস্থিতি শান্ত হয় বলে স্থানীয় সুত্র জানায়।

গতকালের ঘটনার পর জেরধরে কুখ্যাত ডাকাত সর্দার জকির গ্রæপ আবারো সংগঠিত হয়ে পাশর্^বর্তী গ্রামবাসীদের উপর হামলা চালাতে পারে বলে আশংকা করছিল। দিনের বেলায় আইন-শৃংখলা নিয়োজিত বাহিনীকে উপেক্ষা করে আতংক সৃষ্টির চেষ্টায় স্থানীয় মানুষজন আরো উদ্বিগ্ন হয়ে উঠেছে।

স্থানীয়রা জানায়, কতিপয় রোহিঙ্গা অপরাধীদের অপকর্মে আমরা অতিষ্ঠ। আমরাও আইন-শৃংখলা বাহিনীর সহায়তায় এসব অপরাধের অবসান চায়।

এই বিষয়ে আইন-শৃংখলা বাহিনীর কয়েকটি ঘনিষ্ট সুত্র জানিয়েছেন,মূলত র‌্যাবের অভিযান ও হতাহতের ঘটনায় রোহিঙ্গা ক্যাম্প কেন্দ্রিক অপরাধ জগত গভীর জলে ডুব দেওয়ার মতো শান্ত হয়ে যায়। হয়তো এই অপরাধীরা পাহাড়ের ভেতরে ফাঁকা গুলিবর্ষন করে সাধারণ রোহিঙ্গা ও স্থানীয় জনসাধারণকে ভীতির মধ্যে রাখতে এই অপকৌশলের আশ্রয় নিয়েছে।

টেকনাফে নিয়োজিত আইন-শৃংখলা বাহিনী রোহিঙ্গা ক্যাম্পসহ পুরো টেকনাফে সুষ্ঠু,নিরাপদ এবং শান্তিপূর্ণ পরিবেশ ফিরিয়ে আনতে পূর্ণ শক্তি নিয়ে অভিযানে থাকবে বলে আশ^স্থ করেন।

ডেস্ক

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: