বুধবার, ২৩ সেপ্টেম্বর ২০২০, ১২:১৩ অপরাহ্ন

কাফেরদের যারা ক্ষমা করবেন তারাও কাফের: আহমদ শফি

  • সময় সোমবার, ২ মার্চ, ২০২০
  • ২৬৭ বার পড়া হয়েছে

ফয়সাল শামীম, ষ্টাফ রিপোর্টার: সারা বিশ্বের মুসলমানের উপর নির্যাতন ও নিপীড়নের তীব্র নিন্দা ও ক্ষোভ জানিয়ে হেফাজত ইসলামের আমীর আহমদ শফি বলেছেন সৃষ্টিকর্তার নিকট দোওয়া করি বিশ্বের সকল মুসলমানের উপর শান্তি বর্ষিত হোক।

তিনি সোমবার দুপুরে কুড়িগ্রাম সরকারী কলেজ মাঠে ইসলামী মহা সম্মেলনে যোগ দিতে এসে সাংবাদিকদের একথা বলেন।

পরে তিনি কলেজ মাঠের সম্মেলনে মুসল্লীদের উদ্দেশ্যে বলেন কাফেরদের যারা ক্ষমা করবেন তারাও কাফের। এসময় তিনি সারা বিশ্বের মুসলমানের জন্য আল্লাহর নিকট দোওয়া প্রার্থনা করেন।

এর আগে আহমদ শফি হেলিকপ্টার যোগে ঢাকা থেকে কুড়িগ্রাম সরকারী উচ্চ বিদ্যালয় মাঠে আসেন।

হেফাজত ইসলামের নেতার কুড়িগ্রামে এই প্রথম আগমনে জেলার বিভিন্ন উপজেলা থেকে প্রায় আলেম ওলামাসহ লক্ষাধিক মুসল্লী সম্মেলনে অংশ নেয়।

সরকারী কলেজ মাঠে অনুষ্ঠিত মহা সম্মেলনে অন্যান্যের মধ্যে নুরুল ইসলাম ওলিপুরী, নুরুল ইসলাম জিহাদীসহ প্রমুখ বক্তব্য রাখেন। বক্তারা কাদিয়ানীদের অমুসলিম ঘোষনার দাবী জানান।

আরও পড়ুন…. বিশুদ্ধ বাংলায় কোরআন-হাদিস প্রচার করতে হবে: আল্লামা বাবুনগরী

হেফাজতে ইসলাম বাংলাদেশের মহাসচিব ও হাটহাজারী মাদরাসার সহযোগী পরিচালক আল্লামা জুনায়েদ বাবুনগরী বলেছেন, ভাষা আল্লাহ প্রদত্ত একটি বিশেষ নেয়ামত। ভাব প্রকাশের জন্য ভাষার উদ্ভব হয়েছে। বাংলা আমাদের মাতৃভাষা; মাতৃভাষা বাংলা চর্চা ও ভাষায় পারদর্শিতা অর্জনের মাধ্যমে ইসলামের সুমহান বাণী প্রচার করতে হবে।

শুক্রবার ২১ ফেব্রুয়ারি আন্তর্জাতিক ভাষা দিবস উপলক্ষে সংবাদমাধ্যমে প্রেরিত এক বিবৃতিতে তিনি এ অভিমত ব্যক্ত করেন।

বিবৃতিতে তিনি বলেন, দাওয়াতের ক্ষেত্রে ভাষা গুরুত্বপূর্ণ একটি বিষয়। বিশুদ্ধ ও প্রাঞ্জলভাষায় ইসলামের দাওয়াত পেশ করলে অনেকেই সহজে তা গ্রহণ করে। হযরত মুসা আলাইহিস সালামের জবান মোবারকে সামান্য অস্পষ্টতা ছিলো তাই তিনি আল্লাহ তায়া’লার কাছে আর্জি করে আপন ভাই হযরত হারুন আলাইহিস সালামকে দাওয়াতের কাজে নিজের সহযোগী বানিয়ে ছিলেন।
বাংলা ভাষা চর্চায় আমাদের আরো এগিয়ে আসতে হবে এমনটা আহ্বান করে হেফজত মহাসচিব বলেন, আমাদের পূর্বসূরীরা বাংলা ভাষা ও সাহিত্যে অনেক অবদান রেখেছেন যা ইতিহাসের পাতায় স্বর্ণাক্ষরে লিপিবদ্ধ রয়েছে। তাছাড়া বিশুদ্ধ বাংলায় কোরআন-হাদিসের সুমহান বাণী প্রচার করতে হবে। বাংলা ভাষা চর্চার পাশাপাশি সাহিত্যও চর্চা করতে হবে। গদ্য ও পদ্যে ইসলামের সৌন্দর্য ফুটিয়ে তুলতে হবে।

Please Share This Post in Your Social Media

আরো সংবাদ
%d bloggers like this: