মঙ্গলবার, ২১ জানুয়ারী ২০২০, ০১:৫৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ার অনলাইন পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম। আপনার চারপাশে চলমান অনিয়ম দুর্নীতির খবর আমাদের জানান। দেশকে বাচাঁন দেশকে ভালবাসুন

শহরবাসীর বিকট চিৎকার – ‘সড়ক সংস্কার চাই’

  • সময় মঙ্গলবার, ১৪ জানুয়ারি, ২০২০
  • ৪১ বার পড়া হয়েছে

আলোকিত রিপোর্ট::
অব্যাহত প্রতিবাদের মুখে তড়িৎকর্মা কর্তৃপক্ষ শহরের কোনো কোনো অংশে সড়ক সংস্কারের কাজ শুরু করেছে। এতে আরও ক্ষিপ্ত হয়ে উঠেছে শহরবাসী। এনিয়ে দিনভর সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে আরও বেশি ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া জানাতে থাকে পরিচিত মুখগুলো। দাবী উঠেছে- ‘জোড়াতালির সংস্কার নয় বরং সুস্থ সড়কের স্থায়ী সমাধান চাই’। কেউ কেউ এধরণের আংশিক কাজকে লোক দেখানো কাজ বলেও মন্তব্য করেছেন।

এরমধ্যে গতকাল ১৩ জানুয়ারী সন্ধ্যা ৬টায় জেলা প্রেসক্লাব চত্বরে এক নাগরিক সভা অনুষ্ঠিত হয়। উক্ত অনুষ্ঠানে উপস্থিত ছিলেন সংশ্লিষ্ট দুই কর্তৃপক্ষের কর্তা কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ ও কক্সবাজার পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান। সেখানে উপস্থিত সাংবাদিক এবং সুশীল সমাজের মুখোমুখি হন উভয়েই। শুধু প্রধান সড়ক নয়; শহরের উপসড়ক, পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতাসহ বিভিন্ন বিষয় নিয়ে তীব্র প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করেছেন সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা। কিন্তু সারাংশে মিললো শুধুই আশ্বাস আর প্রতিশ্রæতি। তবে নাগরিক সভার আয়োজক কমিটির সদস্য এইচ.এম. নজরুল বললেন- আমরা আপাতত কর্তাব্যাক্তিদের প্রতিশ্রæতিতে সন্তুষ্ট। আশা করছি শীঘ্রই কর্তাদ্বয় সমন্বয় করে উন্নত কক্সবাজার শহর উপহার দিবেন।

নাগরিক সভায় উপস্থিত নাগরিকগণ ক্ষুব্ধ প্রতিক্রিয়া ব্যক্ত করে জানিয়েছেন- কক্সবাজারের শহরের প্রধান সড়কের যে মরণ দশা হয়েছে তাতে চলাচল করা সম্পূর্ণভাবে বন্ধ হওয়ার উপক্রম হয়েছে। এই শহরে চলাচল করতে গিয়ে রোগী ও শিক্ষার্থীসহ সব স্তরের মানুষ তীব্র ভোগান্তি আর কষ্টে পাচ্ছে। এতে শহরবাসীর নাভিশ্বাস চরম পর্যায়ে পৌঁছেছে। বর্তমান এমন পরিস্থিতি দাঁড়িয়েছে দেয়ালে পিঠ ঠেকে যাওয়ার অবস্থা হয়ে দাঁড়িয়েছে। শুধু প্রধান সড়ক নয়; শহরের উপ-সড়কগুলোও চলাচলের উপযোগী নেই। প্রায় সব উপসড়ক খানা-খন্দে ভরে গেছে। কিন্তু পৌর কর্তৃপক্ষ এখন পর্যন্ত কোথাও কোনো আবাসিক সড়কের উন্নয়নের ব্যবস্থা নেয়নি। শহরের পরিস্কার-পরিচ্ছন্নতা কার্যক্রমও আশাপ্রসূত নয়। শহরের প্রধান সড়ক থেকে অলিগলিতে যত্রতত্র ময়লার স্তুপ জমে থাকতে দেখা যায়।

সুতরাং এই পরিস্থিতিতে আর প্রতিশ্রæতি নয়; খুব দ্রæত সময়ের মধ্যে প্রধান সড়কের ভঙ্গুর দশা সংস্কার করা হোক। পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান নির্বাচনের আগে এবং নির্বাচিত হওয়ার পর অনেক প্রতিশ্রæতি দিয়েছিলেন। কিন্তু দিন যত যাচ্ছে পৌরবাসী আশাহত হচ্ছে। সভায় এক পর্যায়ে সুশীল সমাজের প্রতিনিধিরা কক্সবাজার শহরের সমস্যাগুলো নিরসন করতে নির্দিষ্ট সময় দিয়ে আল্টিমেটাম বেঁধে দেন।

নাগরিক সভায় উপস্থিত কক্সবাজার উন্নয়ন কর্তৃপক্ষের চেয়ারম্যান লে. কর্ণেল (অব.) ফোরকান আহমদ জানান, কক্সবাজার নিয়ে নানা পরিকল্পনা গ্রহণ করেছে কউক। ইতিমধ্যে পরিকল্পনা বাস্তবায়ন হতে শুরু হয়েছে। অত্যাধুনিক মানের করে কাজ করতেই প্রধান সড়কটি উন্নয়নের জন্য কউক’র নিয়ন্ত্রণ দেয়া হয়েছে। একনেকে প্রকল্প পাশ হয়েছে। কাজ শুরুর অপেক্ষায় রয়েছে। কিন্তু তার আগেই জরুরী ভিত্তিতে এই সড়ক সংস্কার করা হবে। প্রতিনিয়ত এই সংস্কার কাজ অব্যাহত থাকবে। যতবার খানা খন্দ হতে থাকবে ততবার সংস্কার করা হবে। দয়া করে আপনারা আমার সাথে থাকবেন। যদিও একনেকে পাশ হওয়া প্রকল্পের কাজ কবে নাগাদ শুরু হবে এবিষয়ে সুনির্দিষ্ট সময় উল্লেখ করে কোনো তথ্য দেননি তিনি।
অন্যদিকে পৌর মেয়র মুজিবুর রহমান জানান- তিনি নির্বাচিত হওয়ার পর থেকে পৌরসভার একটি টাকাও তছরুপ করেননি। তার ব্যক্তিগত টাকা খরচ করে পৌরসভার কাজ করেছেন বলেও দাবী করেছেন। পৌরবাসীকে নিরাশ করবেন না এমন আশ্বাস দিয়ে তিনি আরও জানান- সবার পরামর্শ অনুযায়ী কাজ করে জনগণের কাছে দেওয়া প্রতিশ্রæতি তিনি বাস্তবায়ন করে দেখাবেন।

এদিকে, শুধু নাগরিক সভাতেই নয় সারা শহর ও জেলাজুড়ে রব উঠেছে সড়ক সংস্কার চাই। বিকট আর্তচিৎকারে ফেটে পড়েছে নিয়মিত ভোগান্তির শিকার জেলাবাসী। চতুর্দিকে এখন বাঁধভাঙ্গা আওয়াজ ভেসে বেড়াচ্ছে। কাঙ্খিত নিরাপদ সুস্থসড়ক এবং পরিচ্ছন্ন শহর পেতে অপেক্ষার প্রহর আর কত দীর্ঘ; এমন প্রশ্ন শহরবাসীর।

Comments Below
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ
Shares