বৃহস্পতিবার, ২৩ জানুয়ারী ২০২০, ০১:২৩ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ার অনলাইন পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম। আপনার চারপাশে চলমান অনিয়ম দুর্নীতির খবর আমাদের জানান। দেশকে বাচাঁন দেশকে ভালবাসুন

মারা গেছেন ওমানের সুলতান

  • সময় শনিবার, ১১ জানুয়ারি, ২০২০
  • ১১৪ বার পড়া হয়েছে

ওমানের শাসক সুলতান কাবুস বিন সাইদ আল সাইদ মারা গেছেন। শনিবার ভোরে দেশটির রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন জানিয়েছে শুক্রবার সন্ধ্যায় ৭৯ বছর বয়সে মৃত্যু হয় তার। দেশটিতে তিন দিনের রাষ্ট্রীয় শোক ঘোষণা করা হয়েছে। এছাড়া ৪০ দিন পর্যন্ত অর্ধনমিত থাকবে জাতীয় পতাকা। কাতারভিত্তিক সংবাদমাধ্যম আল জাজিরা জানিয়েছে, ৭২ ঘণ্টার মধ্যে নতুন সুলতানের মনোনয়নের বিষয়ে সিদ্ধান্ত নেবে রাজ পরিবার।

সাবেক উপনিবেশিক শক্তি ব্রিটেনের সহায়তায় ১৯৭০ সালে এক রক্তপাতহীন অভ্যুত্থানে বাবা সাইদ বিন তৈমুরকে উৎখাত করে ওমানের ক্ষমতা নেন কাবুস বিন সাইদ। আরবের দীর্ঘতম শাসক থাকার সময়ে তিনি বিচ্ছিন্ন আর অবকাঠামোহীন ওমানকে আধুনিক রাষ্ট্রে পরিণত করেছেন। পশ্চিমা দেশগুলোর সমর্থন পেয়েছেন তিনি। সম্প্রতি অসুস্থতার কারণে দীর্ঘদিন ধরেই তিনি শাসনকাজে অনুপস্থিত থেকেছেন।

জার্মানি ও বেলজিয়ামে চিকিৎসা শেষে সম্প্রতি রাজধানী মাস্কটে ফেরেন সুলতান কাবুস বিন সাইদ। অসুস্থতার বিষয়ে কোনও আনুষ্ঠানিক ঘোষণা দেওয়া না হলেও ধারণা করা হয়ে থাকে তিনি কোলন ক্যান্সারে ভুগছিলেন।

সুলতান কাবুস বিন সাইদের কোনও সন্তান বা ভাই নেই। উত্তরাধিকার কে হবেন সেই ঘোষণা তিনি দেননি। নিকটাত্মীয় হিসেবে আছেন তার চাচাত ভাইয়েরা। ফলে তার উত্তরাধিকারী কে হবেন তা নিয়ে প্রশ্ন দেখা দিয়েছে। তবে ২০১১ সালে উত্তরাধিকার নির্ধারণের প্রক্রিয়ায় সংশোধনী আনেন কাবুস। এতে বলা হয়েছে, রাজপরিবারে কোনও বিরোধ দেখা দিলে সুলতানের নিয়োগকৃত শীর্ষ পাঁচ কর্মকর্তার একটি কাউন্সিল নতুন সুলতান নির্বাচনের প্রক্রিয়ায় সংযুক্ত হবেন।

দেশটির সংবিধান অনুযায়ী, ওমানের নতুন সুলতান হবে রাজ পরিবারের সদস্য। তাকে অবশ্যই মুসলমান, প্রাপ্তবয়স্ক, যৌক্তিক এবং ওমানের মুসলমান বাবা-মায়ের পুত্র হতে হবে। বিশেষজ্ঞরা বলছেন, এসব শর্ত পূরণ করতে পারা ৮০ জনেরও বেশি পুরুষ রয়েছে। তবে ৬৫ বছর বয়সী আসাদ বিন তারিকই নতুন সুলতান হিসেবে মনোনয়ন পাওয়ার ক্ষেত্রে এগিয়ে আছেন বলে ধারনা করা হচ্ছে। ২০১৭ সালে আসাদকে আন্তর্জাতিক সম্পর্ক ও সহযোগিতা বিষয়ক উপপ্রধানমন্ত্রী নিয়োগ করা হয়। এই সিদ্ধান্তকে সুলতান কাবুসের নিকটাত্মীয়দের সমর্থনের ইঙ্গিত হিসেবে দেখা হয়।

তবে শেষ পর্যন্ত ওমানের আইন অনুযায়ী রাজ পরিবার যদি নতুন সুলতান মনোনয়নে সম্মত হতে ব্যর্থ হয় তাহলে কাবুসের লিখে রেখে যাওয়া দুটি সিল করা চিঠিতে যে ব্যক্তির নাম থাকবে তিনিই শাসকের দায়িত্ব পাবেন।

Comments Below
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ
Shares