বৃহস্পতিবার, ১৪ নভেম্বর ২০১৯, ০২:৩৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ার অনলাইন পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম। আপনার চারপাশে চলমান অনিয়ম দুর্নীতির খবর আমাদের জানান। দেশকে বাচাঁন দেশকে ভালবাসুন

সদর যুবলীগ নেতা সো‌হেল সন্ত্রসীর হা‌তে লাঞ্চিত এবং হুম‌কির মু‌খে

  • সময় রবিবার, ৩ নভেম্বর, ২০১৯
  • ৫৭৩ বার পড়া হয়েছে

ক্রাইম রি‌পোর্টারঃ

কক্সবাজার সদর যুবলীগের সদস্য এবং ক‌মি‌নিউ‌টি পু‌লি‌শের অন্যতম সদস্য, ভারুয়াখালী চান্দুর পাড়া ম‌নির আহম‌তের পুত্র মোস্তাফিজুর রহমান সোহেল, অস্ত্রধারী ও ইয়াবা ব্যবসায়ীর সুমনে হাতে লাঞ্চিত হ‌য়ে‌ছে শুধু লাঞ্চিত নয় তা‌কে জা‌নে মারার বি‌ভিন্ন ভা‌বে হুম‌কি দি‌চ্ছে ব‌লে অ‌ভি‌যোগ কর‌ছে। তথ্যম‌তে ১ ন‌ভেম্বার ভোর সকাল‌বেলা সুমন ও জাহাঙ্গীরের নেতৃ‌ত্বে একদল সন্ত্রাসী হঠাৎ সো‌হেলের উপর হামলা ক‌রে বেধম মারধর ক‌রে। উ‌ল্লেখ্য এরা দুজন ভারুয়াখালী চান্দের পাড়া, ৫নং ওয়ার্ড ই‌দ্রি‌সের পুত্র। চিন‌তে পারা এরা দুজন‌ ১)সুমন (২) জাহাঙ্গীকে আসামী ক‌রে কক্সবাজার সদর ম‌ডেল থানায় একখানা এজার করা হয়। সো‌হেল একই এ‌লেকার বা‌সিন্দা। সো‌হে‌লের বক্তব্য ম‌তে, তার সাথে এবং সন্ত্রাসী সুমনের পা‌রিবা‌রিক ভা‌বে পূর্ব ভুল বুঝাবুঝির কারণে প্রায় সময় কথা কাটাকাটি হইত এবং বেশ কয়েকবার ভুল বুঝাবুঝির বিষয়টি অবসান ঘটানাের জন্য চেষ্টা করা হলেও আসামীগণ তা না মানিয়া ১লা ন‌ভেম্বার সকাল আনুমানিক ৬:৩০ ঘটিকার সময় ফজর নামাজ পড়ে আমার নিজ ব্যবসা প্রতিষ্ঠান ভারুয়াখালী আদর্শ
উচ্চ বিদ্যালয় পূর্ব পার্শ্বে রাইচ মিল খুলে চেয়ারে বসে কাজ করার সময়, সুমন ও জাহাঙ্গীর সহ আরাে ২/৩ জন ব্য‌ক্তি উচ্চ স্বরে গালাগালি করে আমার রাইচ মিলের দিকে গুলি ছুড়তে ছুড়তে রাইচ মি‌লের বিত‌রে ঢুকে এবং আমাকে চার পাশ দিয়ে গিরে ফেলে এবং সবাই আ‌মাকে মারধর করা শুরু করে। যখন আ‌মি চিৎকার করে তখন ১নং আসামীর সুমন হাতে থাকা বন্দুকের নল দ্বারা মাথায় আগাত ক‌রে এবং বলে শালারপুত চিৎকার করলে গুলি করে মেরে ফেলব এবং
১নং আসামী, ২নং আসামী জাহাঙ্গীর হুকুম করে যে বন্দুক দিয়ে মারার জন্য তারপর ২নং আসামীর হাতে থাকা বন্দুক দিয়ে আমার ডান পার্শ্বের কানের উপর ও বাম পার্শ্বের ঘাড়ে বন্দুক দিয়ে বারি দেয় । অতপর ১নং আসামীর প্যান্টের পকেট থে‌কে ১টি ৩০০ টাকার নন জুডিসিয়াল খালি স্ট্যাম্প বের করে ২নং আসামীর হাতে দিয়ে বলে আমার কাছ থেকে দস্তখত নিতে। আমি দস্তখত দিতে না চাইলে অন্যান্য আসামীরা তাদের হাতে থাকা হকিষ্টিক দ্বারা শরীরের বিভিন্ন স্থানে এলােপাতাড়ি মারধর ক‌রতে থাকে এবং জোর করে দস্তখত
নিয়ে নেয়। পরে আসামীরা পালিয়ে যায়। অতঃপর সো‌হে‌লের আত্মীয় স্বজন ও আশে পাশের লােকজন এসে তা‌কে ঘটনা স্থান থে‌কে উদ্ধার করে শরীরের বিভিন্ন অংশে ব্যথা কারন বশত উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতাল নিয়ে যায়, এবং হাসপাতাল থে‌কে পু‌লিশ কেস নি‌য়ে কক্সবাজার ম‌ডেল থানায় ঐ দুজনকে আসামী ক‌রে এজাহার দায়ের করা হয়। প্রশাস‌নের প্র‌তি সো‌হে‌লের প‌রিবা‌রের বি‌নিত অনু‌রোধ এই অস্ত্রধারী সন্ত্রসীর বি‌রো‌দ্ধে যেন আইনগত প্রয়ােজনীয় ব্যবস্থা গ্রহণে করা হয়।

Comments Below
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ
Shares