সোমবার, ২১ অক্টোবর ২০১৯, ০২:৩৬ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ার অনলাইন পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম। আপনার চারপাশে চলমান অনিয়ম দুর্নীতির খবর আমাদের জানান। দেশকে বাচাঁন দেশকে ভালবাসুন

মাতারবাড়ীতে মসজিদ নিয়ে প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতার আত্মীয়দের হয়রানির অভিযোগ

  • সময় শুক্রবার, ৪ অক্টোবর, ২০১৯
  • ২৬৫ বার পড়া হয়েছে

মহেশখালীর মাতারবাড়ি ৯নং ওয়ার্ডের প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা ও কাউন্সিলর জনাব, মৃত হাজ্বী ছৈয়দ আহমদ। তিনি ছিলেন আওয়ামীলীগের নিবেদিত প্রাণ।উনার মৃত্যুর পর এ দায়িত্ব পান উনার পুত্র জনাব,হাফেজ ছিদ্দিক আহমদ।হাফেজ ছিদ্দিক আহমদ বর্তমান ৯নং ওয়ার্ডের কাউন্সিলর।এক কথায় বলতে গেলে মাতারবাড়ির পুরনো এক আওয়ামী লীগ পরিবার।

অথচ এ প্রবীণ আওয়ামীলীগ পরিবারকে প্রতিনিয়ত হুমকি দিয়ে যাচ্ছে একই ওয়ার্ডের নব্য আওয়ামীলীগ বতর্মান ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি নজরুল ইসলাম। আওয়ামীলীগের সাথে তাদের পরিবারের কোন দিন কোন সংগঠনের সাথে সম্পৃক্ততা ছিলনা। নজরুলের আগে ৯নংওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতি ছিলেন প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতা বদর উদ্দিন।উনার দুর্বলতার সুযোগকে কাজে লাগিয়ে টাকা দিয়ে সভাপতির পদটা কেড়ে নেয় এই সন্ত্রাসী নজরুল।যার বিরুদ্ধে রয়েছে অগনিত মেয়েকে ধর্ষণের অভিযোগ।যাকে সবাই লুইচ্চা নজরুল নামে চিনে।সন্ত্রাসী নজরুল এ ওয়ার্ড নেতা আওয়ামীলীগের প্রভাবকে অপব্যবহার করে একই এলাকার আওয়ামীলীগের প্রবীণ নেতা ও বর্তমান ওয়ার্ড কাউন্সিলরকে হুমকি দিয়ে যাচ্ছে।

এতে এ আওয়ামীলীগ পরিবার প্রতিনিয়ত সন্ত্রাসীদের হাতে নাজেহাল হচ্ছে।সুষ্ঠু কোন বিচার পাচ্ছে না বলে অভিযোগ করেন এ পরিবার। সুষ্ঠু বিচারের জন্য মাতারবাড়ী আওয়ামীলীগ পরিবার ও আওয়ামীলীগ সহ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ কাছে আবেদন করেন।যাতে তদন্ত করে এর সুষ্ঠু নিরপেক্ষ বিচার করেন এবং নব্য ওয়ার্ড আওয়ামীলীগ নেতা সন্ত্রাসী নজরুলকে বহিষ্কার করেন।

এই নব্য ওয়ার্ড নেতার পরিবারের সাথে প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতার পরিবারের বিরোধ দীর্ঘদিনের।তাও একটা মসজিদের নাম নিয়ে। প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতার বাড়ীর সামনে একটা মসজিদ আছে।মসজিদটার প্রতিষ্ঠাতা আওয়ামীলীগের প্রবীণ নেতা মৃত হাজ্বী ছৈয়দ আহমদ পিতা হানির বাপ। তাই মসজিদটার নাম ছিল হানিরবাপের নামানুসারে হানির বাপের মসজিদ। মসজিদ ছাড়াও মসজিদের পাশে কবরস্থান,হেফজখানা,ফুরকানিয়া মাদ্রাসা এমনকি মসজিদের সামনে একটি পুকুরও স্থাপন করেন।

হানিরবাপ তেমন পড়ালেখা করেনি।কিন্তু শিক্ষিত লোককে অনেক সম্মান ও বিশ্বাস করতেন।অশিক্ষিত ছিল বলে মসজিদ,মাদ্রাসা,কবরস্থানের কাগজপত্র দুর্বল রেখে দিয়েছিল।আর কাগজপত্র করার দায়িত্ব দিয়েছিল ৯নং ওয়ার্ডের নব্য আওয়ামিলীগের সভাপতি সন্ত্রাসী নজরুলে বাবাকে।কারণ উনি বি.এ পাশ ছিল।কিন্তু উনার মুনাফিকের সীমা ছিলনা।কাগজপত্র তৈরির জন্য হানিবাপের কাছ থেকে অনেক টাকাও নিয়েছিল।কিন্তু হানিবাপের অশিক্ষিতার দূর্বলতার সুযোগ নিয়ে কাগজপত্র নকল রেখে দেয়। হানিবাপের মৃত্যুর পর সন্ত্রাসী নজরুল বাহিনী মসজিদটা দাবি করতেছে বলে অভিযোগ করেন প্রবীণ আওয়ামীলীগ নেতার আত্মীয়রা আর মসজিদের নাম নাকি নজরুলের পরিবারের নামানুসারে হতে হবে। কয়েক মাস আগে জায়গার প্রকৃত মালিকদের কাছ থেকে আবার জায়গাটা ক্রয় করা হয়।

হানিবাপের আত্মীয়রা বলেন,এটা নিয়ে অনেক মারামারিও হয়েছিল,বিচার হয়েছিল চেয়ারম্যানের মাধ্যমে অনেকবার তদন্ত করতে থানা পর্যন্ত এসেছিল। কিন্তু কোন সুষ্ঠু সমাধান হয়নি।

এরকম নব্য আওয়ামীলীগ দ্বারাই আজকে দেশ কলংকের মুখে। ছাত্রলীগ,যুবলীগ, আওয়ামীলীগ বলেন,যারা জীবনে রাজনীতি না করেও টাকা দিয়ে সভাপতি,সেক্রটারির পদ কিনে ক্ষতি করতেছে নিজ দলের নেতা কর্মীদের উপর এমনকি গোটা দেশের।আজকে আওয়ামী পরিবার বলে কি বারবার হামলার শিকার হতে হবে এসব সন্ত্রাসীদের দ্বারা? আজকে মাননীয় প্রধানমন্ত্রী দলের যে শুদ্ধি অভিযান চালাচ্ছে তাকে সাধুবাদ জানান এ পরিবার। কারণ এসব অনুপ্রবেশকারিদের দ্বারাই আজকে অনেক আওয়ামীলীগ পরিবার হুমকির মুখে।

মাতারবাড়ি আওয়ামিলীগ পরিবার হিসাবে দাবি জানান,মাতারবাড়ি ৯নং ওয়ার্ড আওয়ামীলীগের সভাপতির পদ থেকে নজরুলকে অব্যহতি দিয়ে যথার্থ শাস্তির দাবি জানাচ্ছে।এ বিষয়ে মাতারবাড়ি ইউনিয়ন আওয়ামীলীগ পরিবার ও আওয়ামীলীগের অঙ্গ সহযোগী সংগঠনের নেতৃবৃন্দ হস্তক্ষেপ কামনা করছে।

Comments Below
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ
Shares