মঙ্গলবার, ২২ অক্টোবর ২০১৯, ০৭:৪৩ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ার অনলাইন পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম। আপনার চারপাশে চলমান অনিয়ম দুর্নীতির খবর আমাদের জানান। দেশকে বাচাঁন দেশকে ভালবাসুন

টেকনাফে দুদিনে ৬০৯ মিলিমিটার বৃষ্টি, ভূমিধসের ঝুঁকি

  • সময় বৃহস্পতিবার, ১২ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ৪৯ বার পড়া হয়েছে

টেকনাফ প্রতিনিধিঃ

চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায় সোমবার (৯ সেপ্টেম্বর) ভারী বৃষ্টিপাত হয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার ও আজ বুধবারও বৃষ্টিপাত হয়েছে বিভাগটির অধিকাংশ জায়গায়। তবে টেকনাফের ধারের-কাছেও ছিল না চট্টগ্রামের অন্য অঞ্চলের বৃষ্টিপাত। মঙ্গল ও বুধবারে ৬০৯ মিলিমিটার (বুধবার ১৮৭ ও মঙ্গলবার ৪২২ মিলিমিটার) বৃষ্টিপাত হয়েছে টেকনাফে।

ভারী বৃষ্টিপাতের কারণে আবহাওয়া অধিদফতর, চট্টগ্রাম বিভাগে ভূমিধসের পূর্বাভাস জানিয়ে আসছে মঙ্গলবার থেকে। বৃহস্পতিবারও (১২ সেপ্টেম্বর) ভারী থেকে অতি ভারী বৃষ্টিপাতের পূর্বাভাস দিয়েছে আবহাওয়া অফিস। এ রকম পরিপ্রেক্ষিতে আবহাওয়াবিদরা বলছেন, চট্টগ্রাম বিভাগের অন্য জায়গাগুলো ভূমিধসের ঝুঁকিতে থাকলেও সবচেয়ে বেশি ঝুঁকিতে রয়েছে টেকনাফ। কারণ সেখানে অস্বাভাবিক বৃষ্টিপাত হয়েছে, সেখানকার মাটি হালকা হয়ে গেছে।

এ বিষয়ে বুধবার রাতে আবহাওয়াবিদ ওমর ফারুক জাগো নিউজকে বলেন, ‘৯ সেপ্টেম্বর থেকে মূলত বৃষ্টিপাতটা শুরু হয়। সে সময় চট্টগ্রামের আরও কিছু কিছু জায়গায় বৃষ্টিপাত হয়েছে। মূলত চট্টগ্রাম অঞ্চলেই বৃষ্টি বেশি, এ অঞ্চলেই ভূমিধসের শঙ্কাটাও বেশি। এর মাঝে টেকনাফে বৃষ্টির পরিমাণটা অস্বাভাবিক। টেকনাফে ভূমিধসের ঝুঁকিটাও সবচেয়ে বেশি। পাহাড়ি মাটিটা হালকা হয়ে গেছে।’

অন্যদিকে, বুধবার সন্ধ্যা ৬টা পরবর্তী ২৪ ঘণ্টার আবহাওয়ার পূর্বাভাসে বলা হয়েছে, মৌসুমি বায়ু বাংলাদেশের ওপর মোটামুটি সক্রিয় এবং তা উত্তর বঙ্গোপসাগরে মাঝারি থেকে প্রবল অবস্থায় রয়েছে। এর প্রভাবে খুলনা, বরিশাল ও চট্টগ্রাম বিভাগের অধিকাংশ জায়গায়; ঢাকা ও সিলেট বিভাগের অনেক জায়গায় এবং রংপুর, রাজশাহী ও ময়মনসিংহ বিভাগের কিছু কিছু জায়গায় অস্থায়ী দমকা হাওয়াসহ হালকা থেকে মাঝারি ধরনের বৃষ্টি অথবা বজ্রসহ বৃষ্টি হতে পারে। সেই সঙ্গে দেশের কোথাও কোথাও মাঝারি ধরনের ভারী থেকে ভারী বর্ষণ হতে পারে।

বৃহস্পতিবার সারাদেশে দিন এবং রাতের তাপমাত্রা প্রায় অপরিবর্তিত থাকতে পারে বলেও জানিয়েছে আবহাওয়া অফিস। দেশে সর্বোচ্চ বৃষ্টিপাত হয়েছে টেকনাফে ১৮৭ মিলিমিটার। সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল রাজশাহীতে ৩৫ সেন্টিমিটার এবং সর্বনিম্ন তাপমাত্রা ছিল ২৩ দশমিক ৫ সেন্টিমিটার।

বুধবার ঢাকায় বৃষ্টিপাত হয়েছে ২ মিলিমিটার, সর্বোচ্চ তাপমাত্রা ছিল ৩৩ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস এবং সর্বনিম্ন ছিল ২৭ দশমিক ৫ ডিগ্রি সেলসিয়াস। ঢাকায় বৃহস্পতিবার সূর্যোদয় ভোর ৫টা ৪৩ মিনিটে এবং সূর্যাস্ত সন্ধ্যা ৬টা ৮ মিনিটে।

Comments Below
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ
Shares