বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:২০ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
রোহিঙ্গা শিবিরে বন্ধ হলো  ৪১ এনজিও’র কার্যক্রম! নিষিদ্ধ ঘোষিত এনজিওগুলোর মধ্যে রয়েছে: ফ্রেন্ডশিপ, এনজিও ফোরাম ফর পাবলিক হেলথ, আল মারকাজুল ইসলাম, স্মল কাইন্ডনেস বাংলাদেশ, ঢাকা আহ্‌ছানিয়া মিশন, গ্রামীণ কল্যাণ, অগ্রযাত্রা, নেটওয়ার্ক ফর ইউনিভার্সাল সার্ভিসেস অ্যান্ড রুরাল অ্যাডভান্সমেন্ট, আল্লামা আবুল খায়ের ফাউন্ডেশন, ঘরনী, ইউনাইটেড সোশ্যাল অ্যাডভান্সমেন্ট, পালস, মুক্তি, বুরো-বাংলাদেশ, এসএআর, আসিয়াব, এসিএলএবি, এসডব্লিউএবি, ন্যাকম, এফডিএসআর, জমজম বাংলাদেশ, আমান, ওব্যাট হেলপার্স, হেল্প কক্সবাজার, শাহবাগ জামেয়া মাদানিয়া কাসিমুল উলুম অরফানেজ, ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট ফর সোশ্যাল অ্যান্ড হিউম্যান অ্যাফেয়ার্স, লিডার্স, লোকাল এডুকেশন অ্যান্ড ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন, অ্যাসোসিয়েশন অব জোনাল অ্যাপ্রোচ ডেভেলপমেন্ট, হিউম্যান এইড অ্যান্ড রিলিফ অর্গানাইজেশন, বাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিশ, হোপ ফাউন্ডেশন, ক্যাপ আনামুর, টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স ইনকরপোরেশন, গরীব, এতিম ট্রাস্ট ফাউন্ডেশনসহ কয়েকটি এনজিও।

সিলেট কারাগারে দুই ফাঁসির আসামিসহ ৩ জনের মৃত্যু

  • সময় শুক্রবার, ৬ সেপ্টেম্বর, ২০১৯
  • ২৮ বার পড়া হয়েছে
  •  
  •  
  •  
  •  

আলোকিত ডেস্কঃ

দুইদিনের ব্যবধানে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত দুই আসামি ও এক কয়েদির মৃত্যু হয়েছে। হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে বৃহস্পতিবার রাতে ও শুক্রবার দুপুরে ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় তারা মারা যান।

সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু সায়েম বিষয়টি নিশ্চিত করেছেন। চিকিৎসকদের বরাত দিয়ে কারা কর্তৃপক্ষ জানান মারা যাওয়া তিনজনই হৃদরোগী ছিলেন।

কারাসূত্র জানায়, চেক ডিজঅনার মামলায় সাজাপ্রাপ্ত আসামি ছিলেন সিলেট নগরীর শাহজালাল উপশহর এলাকার ৪৮ নম্বর বাসার বাসিন্দা হাজী মোহাম্মদ মনোয়ারুল হক।

বৃহস্পতিবার রাতে বুকে ব্যথা অনুভব হলে তাকে সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে পাঠায় কারাগার কর্তৃপক্ষ। চিকিৎসাধীন শুক্রবার দুপুর দেড়টার দিকে তিনি হাসপাতালে মারা যান। তিনি ওই এলাকার মন্তাজ আলীর ছেলে। ১ কোটি ৫৭ লাখ টাকার চেক ডিজঅনার মামলায় তার এক বছরের সাজা ছিল বলে কারাগার সূত্র জানিয়েছে।

এদিকে বৃহস্পতিবার বুকের ব্যথা অনুভব করায় সিলেট ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আফিজ আলী ইউনুছকে (৪৯)। হাসপাতালে চিকিৎসাধীন অবস্থায় বৃহস্পতিবার রাত ২টার দিকে তিনি মারা যান।

তিনি জগন্নাথপুরের একটি হত্যা মামলায় ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ছিলেন। ইউনুছ ২০১৭ সালের ২৬ জুলাই থেকে সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারে আছেন।

এ ছাড়া দক্ষিণ সুরমার নারী ও শিশু নির্যাতন মামলার ফাঁসির দণ্ডপ্রাপ্ত আসামি ছিলেন ৬৩ বছরের মছব্বির আলী। বুকে ব্যথা অনুভব করায় বুধবার ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে ভর্তি করা হয় মছব্বির আলীকে।

বৃহস্পতিবার গভীর রাত ওসমানী মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে চিকিৎসাধীন তিনি মারা যান। মছব্বির আলী দক্ষিণ সুরমা উপজেলার শস্যউরা গ্রামের জুবেদ আলীর ছেলে। সিলেট কেন্দ্রীয় কারাগারের জেলার আবু সায়েম জানান, তারা তিনজনই হৃদরোগে আক্রান্ত হয়ে মারা গেছেন। হাসপাতালের চিকিৎসকরা এমন তথ্য দিয়েছেন। তবে ময়নাতদন্তে বিস্তারিত জানা যাবে।

Comments Below
  •  
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ