বৃহস্পতিবার, ১৯ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ০৯:৩৮ অপরাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
রোহিঙ্গা শিবিরে বন্ধ হলো  ৪১ এনজিও’র কার্যক্রম! নিষিদ্ধ ঘোষিত এনজিওগুলোর মধ্যে রয়েছে: ফ্রেন্ডশিপ, এনজিও ফোরাম ফর পাবলিক হেলথ, আল মারকাজুল ইসলাম, স্মল কাইন্ডনেস বাংলাদেশ, ঢাকা আহ্‌ছানিয়া মিশন, গ্রামীণ কল্যাণ, অগ্রযাত্রা, নেটওয়ার্ক ফর ইউনিভার্সাল সার্ভিসেস অ্যান্ড রুরাল অ্যাডভান্সমেন্ট, আল্লামা আবুল খায়ের ফাউন্ডেশন, ঘরনী, ইউনাইটেড সোশ্যাল অ্যাডভান্সমেন্ট, পালস, মুক্তি, বুরো-বাংলাদেশ, এসএআর, আসিয়াব, এসিএলএবি, এসডব্লিউএবি, ন্যাকম, এফডিএসআর, জমজম বাংলাদেশ, আমান, ওব্যাট হেলপার্স, হেল্প কক্সবাজার, শাহবাগ জামেয়া মাদানিয়া কাসিমুল উলুম অরফানেজ, ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট ফর সোশ্যাল অ্যান্ড হিউম্যান অ্যাফেয়ার্স, লিডার্স, লোকাল এডুকেশন অ্যান্ড ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন, অ্যাসোসিয়েশন অব জোনাল অ্যাপ্রোচ ডেভেলপমেন্ট, হিউম্যান এইড অ্যান্ড রিলিফ অর্গানাইজেশন, বাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিশ, হোপ ফাউন্ডেশন, ক্যাপ আনামুর, টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স ইনকরপোরেশন, গরীব, এতিম ট্রাস্ট ফাউন্ডেশনসহ কয়েকটি এনজিও।

শারিরীক-মানসিক পরীক্ষায় উৎরে গেলেন জাতীয় ফুটবলাররা

  • সময় মঙ্গলবার, ২৭ আগস্ট, ২০১৯
  • ৩৯ বার পড়া হয়েছে
  • 12
  •  
  •  
  •  
    12
    Shares

বিশ্বকাপ বাছাইয়ের আগে বিকেএসপির ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগে শারীরিক ও মানসিক সক্ষমতার পরীক্ষা দিয়েছেন জাতীয় দলের ফুটবলাররা। ম্যাচের আগে জামাল ভুইয়ারা ফিটনেস টেস্টে ভাল করায় খুশি কোচ জেমি ডে।

ছোটখাটো যে ঘাটতি আছে তা দ্রুত পুষিয়ে নেয়া সম্ভব হবে বলে জানান ফুটবলাররা। সে সঙ্গে এমন আয়োজন তাদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতেও ভূমিকা রাখবে বলে মনে করেন তারা।

২৪ আগস্ট থেকে ঢাকায় টানা অনুশীলনের পর বাংলাদেশ ক্রীড়া শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে বাংলাদেশ জাতীয় ফুটবল দল। ১০ সেপ্টেম্বর আফগানিস্তানের বিপক্ষে ম্যাচ সামনে রেখে ফুটবলারদের শারিরীক ও মানসিক সক্ষমতা যাচাই করার লক্ষ্য কোচ জেমি ডের। এজন্যই বিকেএসপিতে ক্যাম্পে থাকা ১৯ ফুটবলারের। এএফসি কাপে আবাহনীর ফুটবলাররা খেলতে যাওয়ায় ফিটনেস টেস্টে অংশ নেননি মামুনুলরা।

মনস্তাত্তিকভাবে একজন ফুটবলার কতটা এগিয়ে আছেন, তার জন্য বিকেএসপির ক্রীড়া বিজ্ঞান বিভাগে পারি দিতে হয়েছে নানা ধাপ। মনস্তাত্তিক পরীক্ষা শেষে ফুটবলাররা নেমে পড়েন শারিরীক সক্ষমতা যাচাইয়ের মঞ্চে।

প্রতিপক্ষ আফগানিস্তান শারিরীক দিক থেকে বাংলাদেশের চেয়ে বেশ এগিয়ে। এ বিষয়টা মাথায় রেখেই বিশ্বনাথ, জামাল ভুঁইয়াদের জন্য এ পরীক্ষার আয়োজন। ফুটবলারদের শরীরে অতিরিক্ত চর্বির পরিমাণ নির্ণয়, মাংশপেশীর শক্তির পরীক্ষা দিতে হয়েছে এখানে। সব ধাপেই মোটামুটি সাফল্যের সঙ্গেই পাশ করেছেন ফুটবলাররা। তাই সন্তুষ্টি কোচের কণ্ঠে।

জেমি ডে বলেন, ওরা টানার খেলার মধ্যে ছিলো। ফিটনেস লেভেলও ভাল আছে। এখানে পরীক্ষার পর আমার দুঃশ্চিন্তা অনেকটাই কেটে গেছে। সবাই টেস্টে অংশ নিতে পারলে ভাল হত। তবে, যা হয়েছে তাতেই খুশি আমি। অনুশীলনে যে ঘাটতি থাকবে, তা তাজিকিস্তানে পুষিয়ে নেয়া যাবে।
ম্যাচের আগে ফুটবলাররাও নিজেদের শারিরীক ও মানসিক সক্ষমতা সম্পর্কে জানতে পেরে বেশ খুশি। যতটুকু ঘাটতি আছে তা দ্রুতই ঠিক করে নেয়া সম্ভব হবে বলেও জানান তারা।

আশরাফুল ইসলাম রানা বলেন, নতুন কিছু শিখতে পারলাম। শারিরীক শক্তির সঙ্গে মানসিক শক্তিও গুরুত্বপূর্ণ। এখানে অনেক টেস্ট হয়েছে। এটা নতুন অভিজ্ঞতা।

বিশ্বনাথ বলেন, আমরা যদি শারিরীক ও মানসিকভাবে সুস্থ থাকি তাহলে ভালো খেলতে পারবো। ভালো খেললে জিততে পারবো।
চলছে প্রস্তুতি। আফগানিস্তানকে হারিয়ে বিশ্বকাপ ফুটবলের বাছাইয়ের প্রথম ম্যাচটা ভালভাবে উৎরে যাওয়াই এখন প্রতিটি ফুটবলারের স্বপ্ন।

Comments Below
  •  
    12
    Shares
  • 12
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ