মঙ্গলবার, ২৮ জানুয়ারী ২০২০, ০৬:৩৭ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
দৈনিক আলোকিত উখিয়ার অনলাইন পোর্টালে আপনাকে স্বাগতম। আপনার চারপাশে চলমান অনিয়ম দুর্নীতির খবর আমাদের জানান। দেশকে বাচাঁন দেশকে ভালবাসুন

চাঁদা না পেয়ে পুলিশের ঘুষিতে প্রাণ গেল ব্যবসায়ীর

  • সময় শনিবার, ১০ আগস্ট, ২০১৯
  • ১২৯ বার পড়া হয়েছে

আলোকিত ডেস্কঃ
নারায়ণগঞ্জের সোনারগাঁয়ে সাদিপুর ইউনিয়নের নানাখি এলাকায় সোনারগাঁ থা’নার এক এএসআই ও কনস্টেবলের মা’রধরে আবদুল বাদশা (৪৮) নামের এক সয়াবিন তেল ব্যবসায়ীর মৃ’ত্যুর অ’ভিযোগ উঠেছে।

শুক্রবার বিকালে ওই ব্যবসায়ী চাঁদা না দেয়ায় মা’রধরে আ’হত হওয়ার পর ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে তার মৃ’ত্যু হয়।

ওই ব্যবসায়ীর মৃ’ত্যুর খবর ছড়িয়ে পড়লে এলাকাবাসী নয়াপুর-পঞ্চ’মীঘাট সড়ক অবরোধ করে রাখে। ঘটনার পর এলাকায় উত্তোজনে বিরাজ করছে। অ’ভিযুক্ত দুই পু’লিশ সদস্যের বিচার দাবিতে বিভিন্ন শ্লোগান দিয়ে বি’ক্ষোভ মিছিল করে এলাকাবাসী। এ রিপোর্ট লেখা পর্যন্ত রাত সাড়ে ৮টা পর্যন্ত সড়ক অবরোধ চলছিল।

এলাকাবাসী সূত্রে জানা গেছে, উপজে’লার সাদিপুর ইউনিয়নের নানাখি উত্তরপাড়া গ্রামের মৃ’ত ইদ্রিস আলীর ছে’লে ও স্থানীয় ম’সজিদের সভাপতি আব্দুল বাদশা বাজারে দীর্ঘদিন ধরে সয়াবিন তেলের ব্যবসা পরিচালনা করে আসছে। সোমবার বিকালে সোনারগাঁ থা’নার সহকারী এএসআই মাসুদ তার দোকানে গিয়ে ব্যবসায়িক কাগজপত্র দেখার নাম করে তার কাছ থেকে ২০ হাজার টাকা নিয়ে আসে।

শুক্রবার সাদা পোশাকে ওই এএসআই কনস্টেবল তুষারকে নিয়ে পুনরায় ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে যান। ওই ব্যবসা প্রতিষ্ঠানে নি’হত আবদুল বাদশাহর ছে’লে মিঠু দোকানে বসা ছিল। এ সময় মিঠুর কাছে এএসআই মাসুদ ও কনস্টেবল তুষার কাগজপত্র দেখতে চান। মিঠু কাগজপত্র তার বাবার কাছে রয়েছে বলে জানান।

মিঠু তার বাবাকে ফোন দিলে ব্যবসায়ী আব্দুল বাদশার আসতে দেরি হয়। পু’লিশ সদস্যরা পুনরায় ওই ব্যবসায়ীর কাছে টাকা দাবি করলে তাদের মধ্যে তর্কবিতর্ক হয়। এক পর্যায়ে ব্যবসায়ী আবদুল বাদশা ও ছে’লে মিঠুকে পু’লিশ সদস্যরা কিল-ঘুষি চড় থাপ্পর ও মা’রধর করে।

এক পর্যায়ে ব্যবসায়ী আব্দুল বাদশা মাটিতে লুটিয়ে পড়ে। স্থানীয়রা তাকে উ’দ্ধার করে ঢাকা মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেয়ার পথে ওই ব্যবসায়ী মা’রা যান।

নি’হত ব্যবসায়ী আবদুল বাদশাহর ছে’লে মিঠু বলেন, একজন সাদা পোশাকে ও তুষার নামের একজন পোশাক পড়ে আমাদের দোকানে যান। এ সময় আমা’র কাছে তারা কাগজপত্র দেখতে চান। আমি কাগজপত্র বাবার কাছে রয়েছে বলে জানালে আমা’র কাছে টাকা চান। পরে আমি বাবাকে ফোন দিলে ওই সময়ে বাবার কাছে তারাও টাকা চাইলে তর্ক-বিতর্ক হয়।

তিনি বলেন, এক পর্যায়ে আমাকে ও বাবাকে চড় থাপ্পর ও কিল-ঘুষি মা’রে। বাবা মাটিতে লুটিয়ে পড়লে হাসপাতালে নেয় আমাদের আত্মীয় স্বজনরা। পথে বাবার মৃ’ত্যু হয়।

নানখি গ্রামের ব্যবসায়ী সাইদুল ইস’লাম ও আবু সুফিয়ান জানান, সোনারগাঁ থা’না পু’লিশ ও তালতলা ফাঁড়ি পু’লিশের চাঁদাবাজিতে অ’তিষ্ঠ হয়ে পড়েছি। আমাদের ব্যবসা করা অ’তি ক’ষ্টদায়ক হয়ে পড়েছে। কোনো কিছুর অজুহাতে তারা আমাদের কাছে টাকা দাবি করে। টাকা না দিলেই আমাদের মা’রধর ও মা’মলার হুমকি দিয়ে থাকে। এ হ’ত্যাকা’ণ্ডের সুষ্ঠু ত’দন্তের মাধ্যমে বিচার দাবি করছি।

সাদিপুর ইউনিয়ন পরিষদের চেয়ারম্যান আবদুর রশিদ মোল্লা জানান, আমি ঘটনা শুনে এলাকায় গিয়ে এলাকার লোকজনের সঙ্গে কথা বলেছি। এলাকার লোকজনের ভাষ্যমতে, পু’লিশের মা’রধরে ওই ব্যবসায়ীর মৃ’ত্যু হয়েছে। তবে পু’লিশের সঙ্গে আমা’র কথা হয়েছে। তারা অ’ভিযোগ অস্বীকার করেছেন।

অ’ভিযুক্ত সোনারগাঁ থা’নার এএসআই মাসুদের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলে তার মোবাইল ফোন বন্ধ পাওয়া যায়।

সোনারগাঁ থা’নার ওসি মনিরুজ্জামান বলেন, এএসআই মাসুদের সঙ্গে আমা’র কথা হয়েছে। পু’লিশের সঙ্গে বাকবিতণ্ডার কোনো ঘটনা ঘটেনি। আমি ঘটনাস্থলে যাচ্ছি। বিষয়টি সুষ্ঠু ত’দন্তের মাধ্যমে ব্যবস্থা নেয়া হবে। তবে সড়ক অবরোধ ও বি’ক্ষোভ মিছিলের ঘটনা আমা’র জানা নেই।

Comments Below
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ
Shares