শুক্রবার, ২০ সেপ্টেম্বর ২০১৯, ১০:১৮ পূর্বাহ্ন
ব্রেকিং নিউজ
রোহিঙ্গা শিবিরে বন্ধ হলো  ৪১ এনজিও’র কার্যক্রম! নিষিদ্ধ ঘোষিত এনজিওগুলোর মধ্যে রয়েছে: ফ্রেন্ডশিপ, এনজিও ফোরাম ফর পাবলিক হেলথ, আল মারকাজুল ইসলাম, স্মল কাইন্ডনেস বাংলাদেশ, ঢাকা আহ্‌ছানিয়া মিশন, গ্রামীণ কল্যাণ, অগ্রযাত্রা, নেটওয়ার্ক ফর ইউনিভার্সাল সার্ভিসেস অ্যান্ড রুরাল অ্যাডভান্সমেন্ট, আল্লামা আবুল খায়ের ফাউন্ডেশন, ঘরনী, ইউনাইটেড সোশ্যাল অ্যাডভান্সমেন্ট, পালস, মুক্তি, বুরো-বাংলাদেশ, এসএআর, আসিয়াব, এসিএলএবি, এসডব্লিউএবি, ন্যাকম, এফডিএসআর, জমজম বাংলাদেশ, আমান, ওব্যাট হেলপার্স, হেল্প কক্সবাজার, শাহবাগ জামেয়া মাদানিয়া কাসিমুল উলুম অরফানেজ, ডেভেলপমেন্ট ইনস্টিটিউট ফর সোশ্যাল অ্যান্ড হিউম্যান অ্যাফেয়ার্স, লিডার্স, লোকাল এডুকেশন অ্যান্ড ইকোনমিক ডেভেলপমেন্ট অর্গানাইজেশন, অ্যাসোসিয়েশন অব জোনাল অ্যাপ্রোচ ডেভেলপমেন্ট, হিউম্যান এইড অ্যান্ড রিলিফ অর্গানাইজেশন, বাংলাদেশ খেলাফত যুব মজলিশ, হোপ ফাউন্ডেশন, ক্যাপ আনামুর, টেকনিক্যাল অ্যাসিস্ট্যান্স ইনকরপোরেশন, গরীব, এতিম ট্রাস্ট ফাউন্ডেশনসহ কয়েকটি এনজিও।

কুতুবদিয়ায় নিখোঁজ নৌকা থেকে ৩ জেলেকে উদ্ধার

  • সময় মঙ্গলবার, ৬ আগস্ট, ২০১৯
  • ৬০ বার পড়া হয়েছে
  •  
  •  
  •  
  •  

কুতুবদিয়া থেকে ৯ কিলোমিটার দূরে নিখোঁজ হওয়া একটি মাছ ধরার নৌকা থেকে তিন জেলেকে জীবিত উদ্ধার করেছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

মঙ্গলবার (৬ আগস্ট) সকালে নৌবাহিনীর জাহাজ ‘নির্মূল’ তাদের উদ্ধার করে। আন্তঃবাহিনী জনসংযোগ পরিদফতরের (আইএসপিআর) এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে এ তথ্য জানানো হয়েছে।

বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, বঙ্গোপসাগরে নিয়মিত টহল ‘অপারেশন প্রতিরোধ’ চলছিল। এসময় বানৌজা নির্মূল কুতুবদিয়া লাইট হাউজ থেকে ৯ কিলোমিটার দূরে একটি মাছ ধরার বোটকে ভাসমান অবস্থায় দেখতে পায়। তাৎক্ষণিকভাবে ঘটনাস্থলে পৌঁছে ওই বোট থেকে তিন জেলেকে উদ্ধার করেন বানৌজা নির্মূলের সদস্যরা।

উদ্ধার হওয়া জেলেরা হলেন— মৃত বাদশার সন্তান মো. শাকিল (১৮), মৃত আব্দুল মোতালেবের ছেলে মো. মিনহাজ উদ্দিন (১৯) ও মো. সরোয়ার আহমেদের ছেলে মো. শওকত আহমেদ (২৪)। তাদের জাহাজে প্রাথমিকভাবে চিকিৎসা সহায়তা ও প্রয়োজনীয় খাবার দেওয়া হয়। পরে কুতুবদিয়ায় স্থানীয় প্রতিনিধিদের উপস্থিতিতে তাদের আত্মীয়দের কাছে হস্তান্তর করা হয়।

আইএসপিআরের বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, সমুদ্রে মাছ ধরার দুই মাসের সাময়িক নিষেধাজ্ঞা শেষে মাছ ধরতে প্রতিদিনই শত শত নৌকা ও ট্রলার উপকূলীয় অঞ্চল ও গভীর সমুদ্রে যাতায়াত করছে। এসব মৎস্যজীবীদের জীবনের নিরাপত্তায় সজাগ দৃষ্টি রাখছে বাংলাদেশ নৌবাহিনী।

Comments Below
  •  
  •  
  •  
  •  

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ