সোমবার, ২৬ অগাস্ট ২০১৯, ১২:৫৬ অপরাহ্ন
শিরোনাম
একজন আল মাহমুদ বঙ্গবন্ধুর আদর্শ থেকে শিক্ষা নিতে হবে : স্পিকার সিলিন্ডারে গ্যাস কতটুকু আছে জানার সহজ উপায় ইউআইইউতে স্পিড মার্কেটিং সামুরাই কমপিটিশন অনুষ্ঠিত তামিমের জায়গায় জহুরুল না সাইফ? ৮০টির পর্যালোচনায় ডেঙ্গুতে মৃত্যু ৪৭ : ডেথ রিভিউ কমিটি শরীরে ভিটামিনের ঘাটতি বুঝবেন যেভাবে প্রোফাইল ছবি দিয়ে লগইন বন্ধ করুন ঢাকায় আসছে বিশ্বসেরা ইয়ান্নি অর্কেস্ট্রা ও স্করপিয়ন্স লামায় ভাড়াটিয়া সন্ত্রাসী দিয়ে কুতুবউদ্দিনের বাগানে হামলার অভিযোগ রাখাইনে বিমান হামলা, ব্যাপক গোলাবর্ষণ সাঘাটার পরিশ্রমী শিল্পি বেগম এর গল্প ।। পলাশবাড়ীতে বয়স্ক, বিধবা ও প্রতিবন্ধী ভাতা প্রদানের শুভ উদ্বোধন ।। পাইকগাছায় ভাঙ্গনকবলিত এলাকায় ক্ষতিগ্রস্থ পরিবারের মাঝে এমপি – বাবুর খাদ্য সামগ্রী বিতরণ ২৭শে অগাস্ট বিশাল শোক র‍্যালী ও শোক সভার আয়োজন করতে যাচ্ছে কৃষকলীগ কক্সবাজার জেলা। পাইকগাছায় শিববাটি ব্রিজের টোল মুক্ত ও শিবসা নদী খননের দাবীতে মানববন্ধন অনুষ্ঠিত হয়েছে গোবিন্দগঞ্জ থানা জুলাই মাসে ৮ ক্যাটাগরিতে শ্রেষ্ঠত্ব অর্জন পেকুয়ায় চিকিৎসক ও ব্যাংক কর্মকর্তাকে কুপিয়ে জখম আসামীদের গ্রেফতারের দাবীতে মানববন্ধন সেনাবাহিনীর ক্যাপ্টেন পরিচয়ে ১৬ লাখ টাকাসহ মোবাইল নিয়ে উধাও হওয়া প্রতারক গ্রেফতার রাখাইনে তুমুল সংঘর্ষ, নিহত ৫৩ রোহিঙ্গা: সংকট বাড়ছে, কমছে শরণার্থীদের জন্য অর্থ মহেশখালীতে চলাচলের রাস্তা না থাকায় ধান ক্ষেতের উপর দিয়ে লাশ বহন ! নাগরিকত্ব দিলে একসঙ্গে মিয়ানমারে ফিরব, ঘোষণা রোহিঙ্গাদের অষ্টম শ্রেণি পাসেই নিয়োগ দেবে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ কাবিননামায় ‘কুমারী’ শব্দ বাদ দেয়ার নির্দেশ উখিয়ায় উদ্ধার গুলিবিদ্ধ লাশের পরিচয় মিলেছে ১০ বছর মেয়াদি ইলেকট্রনিক্স পাসপোর্ট মিলবে তিন দিনের মধ্যেই ঢাকায় গাঁজার নিয়ন্ত্রণ ১০ মহাজনের হাতে মাহী বি চৌধুরীকে দুদকের জিজ্ঞাসাবাদ গফরগাঁওয়ে বলাৎকারের অভিযোগে মাদ্রাসা শিক্ষক গ্রেফতার

কক্সবাজারে এক দিনেই ১১ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত

  • সময় বুধবার, ৩১ জুলাই, ২০১৯
  • ২৫ বার পড়া হয়েছে

আলোকিত রিপোর্ট:

কক্সবাজার জেলায় ডেঙ্গু উদ্বেগজনকভাবে ছড়িয়েছে। গতকাল মঙ্গলবার এক দিনেই জেলা সদর হাসপাতালে ১১ ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। আর ১১ জনই ভর্তি রয়েছে হাসপাতালে। এর মধ্যে ৯ জন রোগী কক্সবাজারের বাইরের থেকে তারা এই ডেঙ্গু জীবাণু বহন করে নিয়ে আসেন। এই প্রথম কক্সবাজারে বসবাসকারীদের মধ্যে দুইজন ডেঙ্গু রোগী পাওয়া গেছে।

হাসপাতাল সূত্রে জানা গেছে,  গত ৭ দিনে ২৫ জন রোগী শনাক্ত করা হয়। এর মধ্যে একজন মারা গেছেন, ১২ জন চিকিৎসা নিয়ে ফিরে গেছেন আর ১১ জন ভর্তি রয়েছেন। ভর্তিকৃতদের মধ্যে ৯ জন পুরুষ ও ২ জন নারী। এদিকে ভুল চিকিৎসা হলে এবং সতর্ক না থাকলে মৃত্যুর ঝুঁকির শংকা রয়েছে বলে জানিয়েছেন বিশেষজ্ঞ চিকিৎসকরা।

কক্সবাজারের সিভিল সার্জন ডা. আবদুল মতিন জানান, কক্সবাজারে এক মাস আগে থেকে মশক নিধন অভিযান শুরু করা প্রয়োজন ছিল। এক মাস আগে না হলেও যখন থেকে ঢাকায় ডেঙ্গু বিস্তার শুরু করেছে তখন থেকে কক্সবাজারে মশক নিধন করা হলে কক্সবাজারে ডেঙ্গু বিস্তার না হওয়ার সম্ভাবনা ছিল।

শুধু মশক নিধন অভিযান চালালে ডেঙ্গু থেকে রক্ষা পাওয়া সম্ভব নয়। নিয়মিত নালা নর্দমা পরিস্কার পরিচ্ছন্ন থাকা প্রয়োজন। কিন্ত কক্সবাজারে সেটা হয়ে উঠেনি। তাই কে বা কোনো প্রতিষ্ঠান নালা নর্দমা পরিস্কার করবে, মশক নিধন স্প্রে করবে তার ওপর নির্ভর না করে নিজের রক্ষায় নিজেকে এগিয়ে আসতে হবে।

তিনি সবার ঘর, আঙ্গিনা, আশে পাশের এলাকা পরিচ্ছন্ন রাখতে আর পানি জমিয়ে না রাখতে সবার দৃষ্টি আকর্ষণ করে বলেন, জ্বর হলেই দ্রুত হাসপাতালে এসে পরীক্ষা করে নিশ্চিত হতে হবে এটি ডেঙ্গু না অন্য কারণে জ্বর। হাতুড়ি ডাক্তারের কাছে চিকিৎসা নেয়া যাবে না। আবার নিজে যেন ডাক্তারি না করেন। দিন ও রাতে সব সময় মশারি টাঙ্গাতে হবে। শিশুদের প্রতি বেশি যত্নশীল হতে হবে।

সিভিল সার্জন ডা. আবদুল মতিন আরো জানান, কক্সবাজারে যাতে ডেঙ্গু ছড়াতে না পারে সেই জন্য প্রত্যেক ইউনিয়ন, পৌরসভা, উপজেলায় মাইকিং করে সচেতনতামূলক বিজ্ঞপ্তি প্রচার করা হচ্ছে। ডেঙ্গু নিয়ে আতংক হওয়ার কিছু নেই। তবে সবাইকে সচেতন হবে, থাকতে হবে সতর্ক।

জেলা সদর হাসপাতালের ডেঙ্গু টিমের সদস্য ডা. শামসুদ্দিন জানান, সদর হাসপাতালে মঙ্গলবার রাত ১০টা পর্যন্ত ১১ জন ডেঙ্গু রোগী শনাক্ত করা হয়েছে। এর মধ্যে দুইজন হচ্ছেন কক্সবাজারে বসবাসকারী। একজন উখিয়া থেকে আরেকজন রামু থেকে এসেছেন। এই প্রথম কক্সবাজারে বসবাসকারী দুইজন ডেঙ্গু রোগী পাওয়া গেল। এতে বুঝা যাচ্ছে ডেঙ্গু জীবাণু কক্সবাজারেও বিস্তার শুরু করেছে।

জানা যায়, সম্প্রতি রাজধানী ঢাকায় ডেঙ্গু রোগীর সংখ্যা বেড়ে গেছে। আতংকগ্রস্ত হয়ে পড়েছে ঢাকায় বসবাসকারীরা। শুধু ঢাকা নয় বিভিন্ন জেলায় এ রোগ ছড়িয়ে পড়ছে। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের তথ্য অনুযায়ী প্রতি ২৪ ঘণ্টায় সারাদেশে ১৪শ থেকে ১৬শ জন ডেঙ্গু রোগে আক্রান্ত হচ্ছে। এমনকি হবিগঞ্জ জেলা সিভিল সার্জন ডেঙ্গু আক্রান্ত হয়ে মারা যায়। মারা যায় আরো দুইজন ডাক্তার, ঢাকা বিশ্ববিদ্যালয় ও জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের শিক্ষার্থীও মারা যা। স্বাস্থ্য অধিদপ্তরের উপসচিবের স্ত্রী মারা গেছে।

মঙ্গলবার পর্যন্ত সারাদেশে ১৪ জন মারা গেছে। সবাই এখন ডেঙ্গু নিয়ে শংকিত। একইভাবে কক্সবাজারবাসী ডেঙ্গু নিয়ে আলোচনায় মেতে উঠেছে। কক্সবাজারে ডেঙ্গুর কি পরিস্থিতি সবাই জানার চেষ্টা করছেন।

কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালের তত্ত্বাবধায়ক ডা. মোহাম্মদ মহিউদ্দিন জানান, জ্বর হলে দ্রুত রেজিস্ট্রার্ড চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। হাতুড়ি ডাক্তারের কাছে যাওয়া যাবে না। প্যারাসিটামল ছাড়া অন্য ওষুধ দিলে রোগীর ভয়াবহতা বেড়ে যাবে। এমনকি মল ত্যাগের সময় রক্ত যেতে পারে। তাই সতর্ক থাকতে হবে সবাইকে।

কক্সবাজার সদর হাসপাতালের আবাসিক মেডিক্যাল অফিসার নোবেল কুমার বড়ুয়া জানান, ডেঙ্গু রোগীর কারণে সবার মাঝে ডেঙ্গু রোগ ছড়িয়ে যাওয়ার আশংকা রয়েছে। কারণ ডেঙ্গু রোগীকে কোনো মশা কামড়ালে সেই মশা অন্যদের কামড়ালে তাদের অবশ্যই ডেঙ্গু রোগ হবে। সেই জন্য আক্রান্ত রোগীদের অবশ্যই মশারির ভেতর থাকতে হবে। যাতে তাদের কোনো মশা কামড় দিতে না পারে।

তাদের যে মশা কামড় দেবে সেই মশা তখন ডেঙ্গু জীবাণুবাহী মশাই পরিণত হবে। শুধু ডেঙ্গু রোগী মশারির ভেতর থাকলে হবে না, সব মানুষকে রাতে হোক বা দিনে হোক মশারি টাঙ্গিয়ে ঘুমাতে হবে। তিনি বলেন, টবে, বালতিসহ কোনো পাত্রে পানি জমা রাখা যাবে না। জমে থাকা পানিতে এসব মশার উৎপত্তি হয়। বাড়ির আশেপাশে পরিস্কার পরিচ্ছন্ন রাখতে হবে। নালা-নর্দমায় ময়লা আবর্জনার স্তুপ রাখা যাবে না।

কারো জ্বর হলে আতংকিত না হয়ে দ্রুত চিকিৎসকের শরণাপন্ন হতে হবে। চিকিৎসকের পরামর্শ ছাড়া কোনো ওষুধ সেবন করা যাবে না। বিশেষ করে ডাইক্লোফেনাক সোডিয়াম জাতীয় ব্যথার ওষুধ খাওয়া যাবে না। ভুল চিকিৎসায় এবং সতর্ক না থাকলে ডেঙ্গু রোগীর মৃত্যু শংকা রয়েছে।

উল্লেখ্য, গত শনিবার বেলা দুইটায় কক্সবাজার সদর হাসপাতাল থেকে রিলিজ করে চট্টগ্রাম মেডিকেল কলেজ হাসপাতালে নেওয়ার পথে লোহাগাড়া উপজেলার আমিরাবাদে একইদিন বিকেল সাড়ে ৪টার দিকে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের ছাত্রী কক্সবাজারের মেয়ে উখিনো নুশাং শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন। এরপর ২৮ জুলাই ডেঙ্গু মনিটিরিং টিম গঠন করা হয়।

Comments Below

সংবাদটি শেয়ার করুন

আরো সংবাদ